karnaphuli river
কর্ণফুলী নদী। ফাইল ছবি

ঢাকা: জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের উপকুলীয় অঞ্চলে বসবাসকারী প্রায় ২ লক্ষ মানুষকে অন্যত্র চলে যেতে হতে পারে। এমনই তথ্য জানানো হয়েছে বিজ্ঞান বিষয়ক সাময়িক পত্রিকা ‘নেচার’-এ।

এই ব্যাপারেই গবেষণা করেছেন ইন্টারন্যাশনাল ফুড পলিসি রিসার্চ ইন্সটিটিউটের (আইএফপিআরআই) গবেষক ভালেরি মুলার এবং ওহাইও স্টেট ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক জয়েস শেন। তাঁদের মতে, বন্যা, জমিতে লবণাক্ততা বেড়ে যাওয়া, ফসলের উৎপাদন কমে যাওয়া এবং ফলস্বরূপ সেখানকার বাসিন্দাদের পেশা ক্ষতির মুখে পড়া, প্রভৃতি কারণে তাদেরকে নিজেদের জায়গা ছেড়ে চলে যেতে হতে পারে।

মুলার এবং শেন বলেন, “লবণাক্ততার ফলে দেশের ভেতরে স্থান পরিবর্তনের ঘটনা বেশি ঘটছে এবং দেশের বাইরে চলে যাওয়ার ঘটনা কম ঘটছে।”

তারা বলেন, “এখানকার কিছু গবেষণায় দেখা যাচ্ছে যারা সাধারণত দেশের বাইরে যেতে ইচ্ছুক ছিল তারা হয়তো নতুন জলীয় পরিবেশে জীবিকায় বেশি সুবিধা নিতে দেশেই থেকে যাচ্ছে।” মাটির লবণাক্ততা বেড়ে যাওয়ার ফলে জলাশয় সংশ্লিষ্ট পেশায় মানুষের যুক্ত হওয়ার পরিমাণ বাড়বে। ফলে সাধারণ কৃষিকাজের সঙ্গে যারা যুক্ত তারা সমস্যায় পড়বে।

আরও পড়ুন আন্দামানে বদলি করা হল রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে তদন্তকারী দলের মূল অফিসারকে

তা হলে মানুষগুলো কোথায় যাবে?

নিজের বাসস্থান ছেড়ে চলে যাওয়া এই মানুষগুলো অধিকাংশ ক্ষেত্রেই রাজধানী ঢাকায় প্রবেশ করবে। পাশাপাশি চট্টগ্রাম এবং খুলনাতেও বছরে ১৫ থেকে ৩০ হাজার মানুষ বেশি প্রবেশ করতে পারে। ফলে এই সব শহরে জনসংখ্যা এবং অর্থনীতিতে চাপ পড়তে পারে।

গবেষণায় বলা হয়, জলবায়ুর এই পরিবর্তনের ফলে সব চেয়ে খারাপ অবস্থা হবে অতি দরিদ্র পরিবারগুলির। অন্যত্র চলে যাওয়ার মতো অর্থনৈতিক অবস্থাও তাদের নেই। আবার যেখানে তাঁদের বাসস্থান সেখানে জীবিকা নির্বাহের মতো কাজও তাঁরা খুঁজে পাবেন না।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here