ওয়েবডেস্ক: প্রতিবছর গঙ্গাসাগর যাওয়ার সময়ে এই সমস্যায় ভোগেন পর্যটক এবং তীর্থযাত্রীরা। সমস্যাটা মুড়িগঙ্গার নাব্যতা। ঠিকমতো ড্রেজিং না হওয়ায় নাব্যতা কমে যায় মুড়িগঙ্গার। ফলে পারাপারের জন্য জোয়ার-ভাটার উপর নির্ভর করতে হতো।

তাই মুড়িগঙ্গার নাব্যতা সমস্যার সমাধান করতে আগে থেকেই উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার। কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনস্থ একটি সংস্থার সঙ্গে চুক্তি করে ইতিমধ্যে মুড়িগঙ্গায় ড্রেজিং শুরু করা হয়েছে। হল্যান্ড থেকে দু’টি ড্রেজিং যন্ত্র এনে এই কাজ শুরু হয়েছে।

এই প্রসঙ্গে সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র বলেন, “দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা অনুযায়ী ড্রেজিং শুরু হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনস্থ একটা সংস্থা এই ড্রেজিং করছে। তারাই আগামী আট বছর (নাব্যতার বিষয়টি) দেখভাল করবে।” পুরো প্রকল্পটির জন্য ওই সংস্থার সঙ্গে ১২০ কোটি টাকার চুক্তি করা হয়েছে বলে জানান সেচমন্ত্রী।

সেচমন্ত্রী জানান, গঙ্গাসাগরকে পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার। পর্যটকদের জন্য ইতিমধ্যেই একাধিক সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তাই এখন পর্যটকরা বছরভরই গঙ্গাসাগরে পাড়ি দিচ্ছেন। মুড়িগঙ্গায় পলি জমার জন্য তাঁদেরও সমস্যায় পড়তে হতো। তাই সমস্যা সমাধানে উদ্যোগী হয় রাজ্যের পর্যটন দফতর এবং সেচ দফতর।

এর ফলে আগামী দিনে গঙ্গাসাগরে পর্যটকদের আনাগোনা আরও বাড়বে বলে আশাপ্রকাশ করেন সেচমন্ত্রী।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here