লন্ডন: দূষণের হাত থেকে বাঁচানো গেল না পৃথিবীর গভীরতম স্থানকেও। মারিয়ানা খাতের গভীরে খোঁজ মিলল শিল্পাঞ্চলে ব্যবহার করা হয়, এমন বেশ কিছু সিনথেটিক যৌগের। সম্প্রতি বিজ্ঞানীদের গবেষণার রিপোর্ট বলছে, প্রশান্ত মহাসাগরের বুকে দীর্ঘ সময় ধরে প্রচুর পরিমাণে নিষিদ্ধ রাসায়নিক জমেছে। শুধু তাই-ই নয়, এই রাসায়নিক রীতিমত বিষিয়ে ফেলেছে প্রশান্ত মহাসাগরের একটা বড় অঞ্চল।

মারিয়ানা এবং কারমাডেক খাতে চালানো বিজ্ঞানীদের সমীক্ষার ফলাফল সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে ‘নেচার, ইকোলজি অ্যান্ড ইভলিউশন’ জার্নালে। নিউক্যাসেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক আল্যান জেমিসন জানিয়েছেন, “মারিয়ানা খাতের দূষণের মাত্রা রীতিমতো পাল্লা দিচ্ছে জাপানের সবচেয়ে দূষিত এলাকা সুরুগা বে অঞ্চলের সঙ্গে। জনবসতি না থাকলেই আমরা আশা করি, সেই অঞ্চল, মানুষের তৈরি করা দূষণের প্রভাব থেকে মুক্ত থাকবে। কিন্তু এটি আর সত্য রইল না। মারিয়ানা খাত তার জ্বলন্ত প্রমাণ”। 

deepest-point-of-earth

আশ্চর্যের বিষয়, মারিয়ানা এবং কারমাডেক খাত কিন্তু পাশাপাশি নয়। দুই অঞ্চলের মধ্যে ব্যবধান প্রায় ৭০০০ কিলোমিটারের। এ থেকে বিজ্ঞানীরা অনুমান করছেন, গোটা প্রশান্ত মহাসাগর জুড়েই দূষণের মাত্রাটা কম বেশি একই। মারিয়ানা খাতের দূষণের মাত্রা এতটাই ভয়াবহ, ইতিমধ্যে সেখানকার সামুদ্রিক জৈববৈচিত্রে বেশ কিছু নেতিবাচক পরিবর্তন লক্ষ করা গিয়েছে। 

দুটি খাতেই খোঁজ পাওয়া গিয়েছে ‘পারসিস্ট্যান্ট অরগানিক পলিউট্যান্ট’ অথবা পিওপি যৌগের। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় বছর ৪০ আগে নিষিদ্ধ হয়েছে এই ধরনের যৌগের ব্যবহার। 

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here