plastic

ওয়েবডেস্ক: ভারতে প্রতিদিন ২৫ হাজার ৯৪০ টন প্লাস্টিক বর্জ্য সৃষ্টি হয়। তার ৪০ শতাংশই থেকে যায় অসংগৃহীত অবস্থায়। ফলে তা ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে আমাদের পরিবেশের। মূলত ক্ষতি করে নালা-নর্দমা, নদী, মাটির। ফলে ব্যাহত হয় জলের বাস্তুতন্ত্র।

এই মর্মে গোটা দেশে একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধের জন্য কিছু পদক্ষেপ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন – জেনে নিন ২০১৯ সালের প্রজাতন্ত্র দিবসের এক ডজন বিশেষত্ব

মোট প্লাস্টিক বর্জ্যের এক এর ছয় ভাগ তৈরি হয় দেশের ৬০টি বড়ো শহরে। তার মধ্যে রয়েছে দিল্লি, মুম্বই, কলকাতা, চেন্নাই, বেঙ্গালুরুও। এই ৬০টি শহরে যে পরিমাণ বর্জ্য উৎপন্ন হয় তার ৫০ শতাংশই তৈরি হয় শুধু দিল্লি, মুম্বই, কলকাতা, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু এই শহরগুলিতে।

কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড একটি সমীক্ষা করেছে। তাতে দেখা গিয়েছে এই ৬০টি বড়ো শহরে প্রতিদিন চার হাজার ৪৯ টন প্লাস্টিক বর্জ্য উৎপন্ন হয়। প্রত্যেক দিন ২৫ হাজার ৯৪০ টন প্লাস্টিক বর্জ্য উৎপন্ন হচ্ছে। তার মধ্যে ৪০ শতাংশ অর্থাৎ ১০ হাজার ৩৭৬ টন অসংগৃহীত থেকে যাচ্ছে। এই পরিমাণ প্রকৃত অর্থেই ভীতি প্রদর্শক।

আরও পড়ুন – রাজপথে প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজ দেখার টিকিট কোথায় কখন?

যাইহোক, ২০২২ সালের মধ্যে ‘সিঙ্গেল ইউজ প্লাস্টিক’ অর্থাৎ  একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক-মুক্ত দেশ গড়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ভারত।

কেন্দ্রীয় পরিবেশ সচিব সি কে মিশ্র একটি নির্দেশাবলি প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, সকলে মিলে এগিয়ে এলে ২০২২ সালের লক্ষ্য পূরণ সম্ভব হবে। এই নির্দেশাবলিতে রয়েছে আইনি ব্যবস্থার কথাও। সবাই মিলে এগিয়ে এলে অন্তত পক্ষে এক বার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক উৎপাদন আর ব্যবহার বন্ধ করা যাবে।

আরও পড়ুন – প্রজাতন্ত্র দিবসে নিজেকে দিন দেশাত্মবোধের পরশ

টক্সিক ওয়াচ অ্যালায়েন্সের গোপাল কৃষ্ণ বলেন, এই ক্ষেত্রে সীমিত পদক্ষেপে কাজ হবে না। তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে সরকারের উচিত সত্বর প্লাস্টিক বর্জ্য আমদানি বন্ধ করতে হবে। মালয়েশিয়া আর চিন এই কাজ ইতিমধ্যেই করে ফেলেছে। তা হলে ভারত কেন পারবে না? তিনি বলেন, সরকার ২০১৫ সালেই পেট (পিইটি) বোতলের আমদানি বন্ধ করে দিয়েছে।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ৯৪ শতাংশ প্লাস্টিকই হল ‘থার্মোপ্লাস্টিক’ গোছের। থার্মোপ্লাস্টিক হল পুনঃব্যবহার যোগ্য। যেমন পেট আর পিভিসি। বাকি ৬ শতাংশ হল ‘থার্মোসেট’ আর অন্যান্য ধরনের প্লাস্টিক। এই দ্বিতীয় ধরনের প্লাস্টিক পুনঃব্যবহার যোগ্য নয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here