মুম্বই: মাস কয়েক আগেই দিল্লিকে বিশ্বের সব চেয়ে দূষিত স্থান হিসেবে চিহ্নিত করেছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু। ঘটনাটি খুব একটা অপ্রত্যাশিত ছিল না রাজধানীর মানুষের কাছে। গত কয়েক বছর ধরে ক্রমাগত বাড়তে থাকা দূষণের সঙ্গে নিয়মিত অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন দিল্লিবাসী। শীতকালে তাপমাত্রার পারদ কমার পাশাপাশি বাড়তে থাকে দূষণের হার। কিন্তু দেশের মানুষ এ বার রীতিমতো চমকেছে অন্য একটি খবরে। শীতের শেষে ফেব্রুয়ারি-মার্চে দিল্লির বায়ুদূষণকে ছাপিয়ে গেছে মুম্বই-এর  দূষণ।

‘সিস্টেম অব এয়ার কোয়ালিটি ওয়েদার ফোরকাস্টিং অ্যান্ড রিসার্চ’ (সফর) নামের এক সংস্থা তাদের সমীক্ষায় দেখিয়েছেন, শেষ দু’মাস ধরে মুম্বই-এ ক্রমশ বাড়ছে দূষণের মাত্রা। বাতাসে ভাসমান কণা ছাড়িয়েছে বিপদসীমা। 

দিল্লি, পুনে এবং মুম্বই – এই তিনটি শহরে সমীক্ষা চালিয়েছিল সফর। সমীক্ষা থেকে উঠে আসা তথ্য বলছে, ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাসে, দিল্লি এবং পুনের তুলনায় অনেক বেশি দূষিত হয়েছে মুম্বই-এর বায়ু। সমীক্ষাকারী সংস্থার প্রকাশিত তথ্য বলছে, রাজধানীর বায়ুর গুণগত মানের সূচক (এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স) ১০৫। আর মুম্বই-এর ক্ষেত্রে এই পরিসংখ্যানটা হল ৩১২। এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের মান যত বেশি হয়, ধরে নেওয়া হয় বায়ুর দূষণের মাত্রাও তত বেশি। অতএব হিসেব বলছে, শেষ দু’মাসে মুম্বই-এর বায়ুদূষণের মাত্রা দিল্লির প্রায় তিন গুণ।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন