warning

নয়াদিল্লি : দূষিত গঙ্গার জল সিগারেটের মতোই ক্ষতিকর। তাই সিগারেটের প্যাকেটের গায়ে যেমন লেখা থাকে ‘স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর’, তেমনি দূষিত গঙ্গার জল ব্যবহারের ক্ষেত্রে তেমন সতর্কতাবাণী লেখা থাকবে না কেন ? শুক্রবার এই প্রশ্ন তুলল জাতীয় গ্রিন ট্রাইবুনাল। ট্রাইবুনালের চেয়ারপার্সন এ কে গোয়েলের নেতৃত্বে গঠিত একটি বেঞ্চ এই প্রশ্ন তুলে নির্দেশ দিয়েছে, অবিলম্বে দূষিত গঙ্গার ধারে বোর্ড লাগিয়ে এই সতর্কতাবাণী জানিয়ে দিতে হবে।

এ দিন বোর্ড বলে, উত্তরাখণ্ডে হরিদ্বার থেকে উত্তরপ্রদেশের উন্নাও পর্যন্ত গঙ্গার জল পান করা তো দূরের কথা স্নানেরও অযোগ্য। কিন্তু সাধারণ মানুষ তা না জেনেই গঙ্গার জল ব্যবহার করছেন। তাই এ ব্যাপারের তাঁদের সর্তক করে দেওয়া উচিত।

আরও পড়ুন : গত চার বছরে গঙ্গা পরিষ্কার হয়েছে মাত্র এক শতাংশ!

ট্রাইবুনাল তাই জাতীয় ক্লিন গঙ্গা মিশনকে (এনএমসিজি) নির্দেশ দিয়েছে, প্রতি একশো মিটার অন্তর বোর্ড লাগিয়ে জানিয়ে দিতে সেই অংশের জল ব্যবহারের যোগ্য কিনা। পাশাপাশি, এনএমসিজি এবং কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডকে নির্দেশ দিয়েছে, আগামী ২ সপ্তাহের মধ্য গঙ্গার যে অংশের জল ব্যবহারের যোগ্য তা একটি ম্যাপে স্পষ্ট করে চিহ্নিত করে নিজেদের ওয়েবসাইটে আপলোড করতে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here