দেহরাদুন: গত মাসে গঙ্গাকে দেশের ‘প্রাচীনতম জীবন্ত সত্তা’ আখ্যা দিয়েছিল উত্তরাখণ্ড হাইকোর্ট। এ বার একটি বিষয়ে গঙ্গার জবাব চেয়ে তাকে আইনি নোটিশ পাঠাল রাজ্যের শীর্ষ আদালত।

উল্লেখ্য, হৃষীকেশ শহরের সমস্ত আবর্জনা জঞ্জাল এক জায়গায় ফেলার জন্য একটি জমি চিহ্নিত করেছে উত্তরাখণ্ড সরকার। এই বিষয়েই আদালতে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন খাড়াগমাফ গ্রামের প্রধান স্বরূপ সিংহ পুন্দের। নিজের আইনজীবী গোপাল বর্মার মাধ্যমে আদালতে তিনি দাবি করেন, হৃষীকেশে যে জায়গায় এই আবর্জনা-স্তূপের জন্য দশ একর জমি চিহ্নিত করেছে রাজ্য সরকার তার দু’দিক দিয়ে বয়ে চলেছে গঙ্গা। স্বরূপবাবুর দাবি, সেখানে  আবর্জনার পাহাড় তৈরি হলে অবশ্যম্ভাবী ভাবে আবর্জনা পড়বে গঙ্গায় এবং গঙ্গা দূষিত হবে।

আরও পড়ুন: ঙ্গা ভারতের ‘প্রাচীনতম জীবন্ত সত্তা’, বলল উত্তরাখণ্ড হাইকোর্ট

তাঁর আবেদনের মাধ্যমে স্বরূপবাবু আরও বলেন যে ‘নমামি গঙ্গে’ প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে গঙ্গাকে দূষণমুক্ত করার জন্য কোটি কোটি টাকা খরচ করছে কেন্দ্র, তখনই এমন একটা জমিতে এই আবর্জনার স্তূপ বানানো হচ্ছে যার দু’দিকদেই বয়ে চলেছে গঙ্গা।

স্বরূপবাবুর এই আবেদনের ভিত্তিতে, এ ব্যাপারে জবাব চেয়ে রাজ্য সরকার, রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ, কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ এবং হৃষীকেশ নগরপালিকাকে নোটিশ পাঠিয়েছে ভিকে বিস্ত এবং অলোক সিংহের ডিভিশন বেঞ্চ। সেই সঙ্গে গঙ্গার কাছে নোটিশ পাঠিয়েও তার জবাব চাওয়া হয়েছে। ৮ মে মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here