Connect with us

কলকাতা

করোনা আবহে বিধিনিষেধ মেনে রাসযাত্রা উৎসব পালিত হচ্ছে শোভাবাজার রাজবাড়িতে

শ্রীগোপীনাথ জিউ এবং শ্রীমতী রাধারানিকে ঘিরে রয়েছেন সখীগণ এবং নানা রকমের ফুল দিয়ে রাসমঞ্চ সাজানো – এ যেন এক ঐতিহ্যের নিদর্শন রাজবাড়ির ঠাকুরদালানে।

Published

on

শ্রীগোপীনাথ জিউ এবং শ্রীমতী রাধারানি, শোভাবাজার রাজবাড়িতে।

শুভদীপ রায় চৌধুরী

দুর্গাপুজো থেকে শুরু হয়েছে বাঙালির উৎসবের আমেজ, রাসযাত্রা তার অন্তিমপর্ব। শান্তিপুর এবং নবদ্বীপের রাস যেমন বিখ্যাত ঠিক তেমনই কলকাতার বিভিন্ন বনেদিবাড়িতে সাড়ম্বরে পালিত হয় রাস উৎসব। এ বছর করোনাভাইরাসের কারণে লোকসমাগম না হলেও নিয়মনিষ্ঠা মেনেই পালিত হচ্ছে রাসযাত্রা। উত্তর কলকাতার শোভাবাজারের ছোটোরাজবাড়িতে শ্রীশ্রীগোপীনাথ জিউ-এর রাস উৎসব পালিত হচ্ছে ঠাকুরদালানে।

Loading videos...

শ্রীগোপীনাথ জিউ এবং শ্রীমতী রাধারানিকে ঘিরে রয়েছেন সখীগণ এবং নানা রকমের ফুল দিয়ে রাসমঞ্চ সাজানো – এ যেন এক ঐতিহ্যের নিদর্শন রাজবাড়ির ঠাকুরদালানে।

রাসমঞ্চে সখী পরিবৃত হয়ে শ্রীগোপীনাথ ও শ্রীমতীরাধারানি।

তবে শোভাবাজার রাজবাড়ির শ্রীগোপীনাথ কিন্তু অগ্রদ্বীপের। কী ভাবে তিনি রাজবাড়িতে এলেন? কেন এলেন? এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গেলে প্রসঙ্গক্রমে চলে আসে তৎকালীন কলকাতার স্বনামধন্য পুরুষ মহারাজা নবকৃষ্ণ দেবের কথা। ইতিহাসের সেই সব কাহিনি যেন আজও কথা বলে শোভাবাজার রাজবাড়িতে গোপীনাথকে দর্শন করলে।

অগ্রদ্বীপের গোপীনাথের আদি বিগ্রহ বর্তমানে কলকাতার শোভাবাজারের রাজপরিবারে অবস্থান করছেন। প্রসঙ্গত ১৭৬৬ সালে রাজা নবকৃষ্ণ দেব তাঁর বাড়িতে গোবিন্দজি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এর কিছু দিন পরেই তিনি শ্রীশ্রীগোপীনাথকে প্রতিষ্ঠা করলেন রাজা রাজকৃষ্ণ দেবের বসতবাড়িতে।

১৭৬২ সালে দিল্লির দরবার থেকে নবকৃষ্ণ দেব ‘মহারাজা বাহাদুর’ খেতাব এবং সেই সঙ্গে ‘হাজারি মনসবদারি’ পদ লাভ করেন। সেই সময় রাজা নবকৃষ্ণ দেব বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানের ঠাকুরদের নিয়ে একটি সন্মেলন তথা মহোৎসবের আয়োজন করেন। সেই সম্মেলনে বিখ্যাত সমস্ত দেববিগ্রহকে আনা হয়েছিল। তাঁদের মধ্যে খড়দহের শ্রীশ্রীরাধাশ্যামসুন্দর, বল্লভপুরের রাধাবল্লভ, সাইবনের নন্দদুলাল, বিষ্ণুপুরের মদনমোহন এবং অগ্রদ্বীপের গোপীনাথ অন্যতম। ধনী দরিদ্র নির্বিশেষে কাতারে কাতারে মানুষ যোগ দিয়েছিল সেই মহোৎসবে। জনশ্রুতি, সে দিনের সেই বিরাট সভা থেকে অঞ্চলের নাম হয় সভাবাজার এবং পরবর্তীকালে লোকমুখে হয়ে যায় শোভাবাজার। অন্য মতে শোভারাম বসাকের নাম থেকেই শোভাবাজার নামের উৎপত্তি।

বহুদিন ধরে উৎসব চলার পর সব দেবতারা ফিরে গেলেন, ফিরিয়ে দেওয়া হল তাঁদের গহনা ও জমিজমা। কিন্তু মহারাজা নবকৃষ্ণ দেব অগ্রদ্বীপের গোপীনাথকে কিছুতেই ফেরত দিলেন না। অগ্রদ্বীপের মালিক মহারাজা কৃষ্ণচন্দ্রের দূতকে তিনি জানালেন যে তিনি স্বপ্নাদেশ পেয়েছেন, গোপীনাথ তাঁর হাতের পুজো নিতে চান। তাঁর কাছে কৃষ্ণচন্দ্রের তিন লক্ষ টাকার যে ঋণ রয়েছে তা তিনি মুকুব করে দেবেন একটি শর্তে। শর্তটি হল গোপীনাথ তাঁর কাছেই থাকবেন। কৃষ্ণচন্দ্র এই শর্ত না মেনে আদালতে মামলা করলেন। যদিও সেই সময়ে ইংরেজ মহলে নবকৃষ্ণের প্রতিপত্তি ছিল তবুও তিনি হেরে গেলেন মামলায়। তবুও আদালতের কাছে কিছু সময় চেয়ে নিলেন এবং সেই আবেদনও মঞ্জুর হল।

ইতিমধ্যে তিনি দক্ষ শিল্পী দিয়ে তৈরি করালেন অবিকল আরও কয়েকটি বিগ্রহ। কৃষ্ণচন্দ্রের দূত বিগ্রহ নিতে এসে ধাঁধায় পড়ে যান – দুটি বিগ্রহই তো এক রকম। শেষে কৃষ্ণচন্দ্রের পুরোহিত একটি বিগ্রহ নিয়ে যান। সেই থেকে একটি মূর্তি রয়েছে নদিয়ায় এবং আর একটি শোভাবাজারের রাজবাটীতে। এখন আসল বিগ্রহ কোনটি তা নিয়ে বিস্তর তর্ক থাকলেও অনুমান করা হয় নবকৃষ্ণ দেব যে হেতু যথেষ্ঠ বুদ্ধিমান ছিলেন, তাই তিনি বুদ্ধি খাটিয়ে আসলটিই রেখে দিয়েছিলেন।

শোভাবাজার রাজবাড়িতে রাসমঞ্চে শ্রীগোপীনাথ ও শ্রীমতীরাধারানি।

রাজবাড়ির সেই প্রাচীন যুগলমূর্তির নয়নাভিরাম রূপ, গঠনে প্রাচীনত্বের ছাপ। তার পর ১৭৮৯ সালে নবকৃষ্ণ দক্ষিণ দিকে রাজা রাজকৃষ্ণের জন্য ঠাকুরদালান-সহ  বিশাল বাড়ি নির্মাণ করে সেখানে গোপীনাথকে প্রতিষ্ঠা করেন। আর রাজা রাজকৃষ্ণও বিষয়সম্পত্তি ছেড়ে গোপীনাথকেই বেছে নেন। তিনি গোপীনাথকে পুত্র রূপে দেখতেন, সকালে ঘুম থেকে উঠে দোতলা থেকে নেমে গোপীনাথের বাড়িতে গিয়ে চোখ খুলতেন, তার পর তাঁকে কোলে নিয়ে বসতেন। আজও রাজবাড়িতে গোপীনাথ জিউের নিত্যসেবা হয়। জন্মাষ্টমীর উৎসব, দোল উৎসব বিভিন্ন উৎসব পালিত হয় শ্রীগোপীনাথকে কেন্দ্র করে।

সেই শ্রীগোপীনাথের রাসযাত্রা পালিত হচ্ছে, রাজবেশে সেজে উঠেছেন তিনি। রাজবাড়িতে তিন দিন ধরে রাস উৎসব পালিত হয়। ঠাকুরদালান আলো করে সখীগণকে সঙ্গে নিয়ে শ্রীমতীর সঙ্গে অবস্থান করছেন তিনি। রাস উৎসব উপলক্ষ্যে গোপীনাথের বিশেষ সেবা হচ্ছে, চলছে ভোগ নিবেদন, আরতি ইত্যাদি। ভোগে থাকছে লুচি, তরকারি, নানা রকমের মিষ্টান্ন ইত্যাদি। বিকালবেলায় গোপীনাথ নিজের কক্ষ থেকে এসে রাসমঞ্চে আসছেন। তার পর সেখানে মূল পূজার শেষে রাত্রে নিজ কক্ষে ফিরে যাচ্ছেন। উৎসবের আমেজে রাজবাড়ির প্রতিটি সদস্যই মেতে উঠেছেন তাঁদের গোপীনাথকে নিয়ে। রাসমঞ্চে শ্রীরাসেশ্বর রূপে বসে আছেন তিনি। করোনার জন্য নানা বিধিনিষেধ থাকলেও নিয়ম নিষ্ঠায় কোনো খামতি নেই।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

শান্তিপুরে পালিত হচ্ছে রাস উৎসব, অন্যতম আকর্ষণ রাইরাজা

কলকাতা

মাস্ক থাকলেও কালীঘাট-দক্ষিণেশ্বরে শারীরিক দুরত্ব চুলোয়, গা ঘেষাঘেঁষি করে হল ভক্ত সমাগম

প্রতিবারের মতো এবারও সকাল থেকেই দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে ভক্তদের সমাগম ছিল। কিন্তু, তা অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশ কম।

Published

on

পয়লা বৈশাখ

কলকাতা : অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে আতঙ্কিত রাজ্যবাসী। গত বারও পয়লা বৈশাখে করোনার প্রকোপ ছিল ঊর্ধ্বগগনে। দেশ জুড়ে তখন লকডাউন চলছিল। এক বছর ঘুরে গেলেও ছবিটা প্রায় একই। এই পরিস্থিতিতে ১৪২৮- এর শুরুটা আর যাই হোক ভালো বলা চলে না।

পয়লা বৈশাখে দক্ষিণেশ্বরে বা কালীঘাটের কালীমন্দিরে ভিড় জমে। বছরের প্রথম দিন পুজো দিয়ে নতুন বছরটা শুরু করতে চান অনেকে। এ ছাড়া ছোটো ও বড়ো ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে এ দিন হালখাতা হয়। লক্ষ্মী ও গণেশের পুজো শেষে হালখাতায় স্বস্তিক এঁকে শুরু হয় নয়া বছরের বেচাকেনা।

Loading videos...

প্রতি বারের মতো এ বারও সকাল থেকেই দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে ভক্তদের সমাগম ছিল। কিন্তু তা অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশ কম। করোনাবিধি মেনে ভক্তদের মাস্ক পরতে দেখা গিয়েছে। তবে একাংশকে চোখ পড়েছে মাস্ক ছাড়াই।

একই ছবি দেখা গিয়েছে কালীঘাটেও। ভিড় কম হলেও সকাল থেকে ব্যবসায়ীরা লক্ষ্মী-গণেশ পুজোর জন্য মন্দিরে পৌঁছে গিয়েছিলেন। মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সকলকে মন্দিরে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। মন্দিরের প্রবেশের আগে থার্মাল স্ক্রিনিং-ও করা হচ্ছে। সকলের জন্য ছিল স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা।

তবে দু’টি মন্দিরের ক্ষেত্রেই কাউকেই শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে দেখা যায়নি। দক্ষিণেশ্বরে গা ঘেঁষাঘেঁষি করেই মন্দিরের লাইনে দাঁড়াতে দেখা গিয়েছে ভক্তদের। একই ছবি ছিল কালীঘাটেও। গা ঘেঁষাঘেঁষি করেই পুজো দিতে দেখা গিয়েছে।

অন্য দিকে গত বছর লকডাউনের ঢেউ এসে লেগেছিল কুমোরটুলিতেও। আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছিলেন কুমোরটুলির শিল্পীরা। তাঁদের কারখানা বন্ধ থাকায় অনেক কারিগর দেশে ফিরে গিয়েছেন। গত বছরের শেষের দিক থেকে এই পরিস্থিতিতে কিছুটা হলেও পাল্টায়। শিল্পী প্রশান্ত পাল খবর অনলাইনকে জানান, ‘‘গত বছরের তুলনায় এ বার ব্যবসায় একটু হলেও উন্নতি হয়েছে। ক্ষতি কাটিয়ে আলোর মুখ দেখেছে শিল্পীরা। এ বারে পয়লা বৈশাখের আগে লক্ষ্মী-গণেশ কেনাবেচা বেড়েছে।’’

তবে বাড়তে থাকা করোনা সংক্রমণে তাঁরা ফের লকডাউনের সিঁদুরে মেঘ দেখেছেন।

আরও পড়তে পারেন : পয়লা বৈশাখ এমন এক আনন্দ-উৎসব যার কোনো সংজ্ঞা নেই

Continue Reading

কলকাতা

Bengali New Year: সুরক্ষাবিধি মেনেই নববর্ষের পুজো হবে বিভিন্ন কালীমন্দিরে

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে অবস্থা আরও নাজেহাল। তা হলে এ বার পয়লা বৈশাখে কি বাঙালি আনন্দ করতে পারবে?

Published

on

কালীঘাটের মা কালী।

শুভদীপ রায় চৌধুরী

উৎসবপ্রিয় বাঙালির জীবনে দু’টি পার্বণ বেশ জনপ্রিয়, একটি দুর্গাপুজো আর একটি পয়লা বৈশাখ। দুর্গাপুজোর সময় যেমন বাঙালি মেতে ওঠে ঠাকুর দেখা, নতুন জামাকাপড় পরার আনন্দে, তেমনি পয়লা বৈশাখে মেতে ওঠে হালখাতা, মিষ্টিমুখ ইত্যাদির মধ্য দিয়ে বর্ষবরণের আনন্দে। তবে গত বছর করোনাভাইরাসের কারণে বাঙালিকে গৃহবন্দি থাকতে হয়েছিল এই দিনটিতে, পুজোতেও যে তেমন আনন্দ করতে পেরেছিল তারা তাও নয়।

Loading videos...

এ বছরেও করোনা পরিস্থিতি একেবারেই ভালো নয়। বরং করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে অবস্থা আরও নাজেহাল। তা হলে এ বার পয়লা বৈশাখে কি বাঙালি আনন্দ করতে পারবে? উৎসবপ্রিয় মানুষে কি পৌঁছে যেতে পারবে বিভিন্ন মন্দিরে নতুন বছরের পুজো দিতে? কী বলছেন কলকাতার বিভিন্ন মন্দিরের সঙ্গে যুক্ত সদস্যরা? তাঁরা কতটা ছাড় দিচ্ছেন এ বার পয়লা বৈশাখে? সব কিছু নিয়েই এখন চলছে জোর আলোচনা। এরই মধ্যে হয়তো কলকাতার মানুষজন নতুন বছরের হালখাতা করতে দোকানে দোকানে পৌঁছে যাবেন এ বারও।

তিলোত্তমা মানেই ঐতিহ্য এবং সেই ঐতিহ্যের এক অন্যতম শ্রেষ্ঠ নিদর্শন হল কালীঘাট মন্দির। কথায় আছে বঙ্গদেশ কালীক্ষেত্র, অর্থাৎ এখানে মহামায়া আদ্যাশক্তি হলেন সর্বময় কর্ত্রী। ভক্তদের  উপচে পড়া ভিড়, সবার হাতে পুজোর থালা এবং সঙ্গে এক জোড়া লক্ষ্মী-গণেশ, পয়লা বৈশাখে এ যেন এক অতিপরিচিত ছবি কালীঘাটে।

মা করুণাময়ী, টালিগঞ্জ।

গত বছর করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতিতে কেউই সে ভাবে নতুন বছরের প্রথম দিন প্রণাম করতে যেতে পারেননি কালীঘাটের কালীকে। তবে এ বছর পয়লা বৈশাখে ভক্তদের পুজো দিতে দেখা যাবে কালীঘাটে, বিভিন্ন নিয়মবিধি মেনেই। করোনার পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হলেও নতুন বছরে তাঁরা সবাই মাকে দর্শন করতে যেতে পারবেন। তবে মাস্ক পরে যেতে হবে এবং মন্দির কমিটির তৈরি সমস্ত নিয়মবিধি মানতে হবে। তা ছাড়া একসঙ্গে সবাইকে মন্দিরে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না জানানো হয়েছে মন্দির কমিটির তরফ থেকে। সকলের জন্য স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে এবং মন্দিরে প্রবেশের আগে থার্মাল স্ক্রিনিং-এর ব্যবস্থাও থাকছে।

কালীঘাটের মন্দির থেকে একটু দূরেই রয়েছে আরও এক প্রাচীন মন্দির। টালিগঞ্জের করুণাময়ী কালীমন্দির, যে মন্দিরের ইতিহাস বহু দিনের এবং বহু ভক্তের সমাগম ঘটে এই মন্দিরে। কালীঘাটের মন্দিরের মতো করুণাময়ী কালীমন্দিরও সাবর্ণ রায় চৌধুরী পরিবারেরই প্রতিষ্ঠিত। নন্দদুলাল রায় চৌধুরী প্রতিষ্ঠা করেছিলেন মা করুণাময়ী কালীকে এবং রানি রাসমণি এই বিগ্রহ দেখেই তৈরি করান দক্ষিণেশ্বরের ভবতারিণী। করুণাময়ী কালীমন্দিরেও সমস্ত প্রশাসনিক নিয়মবিধি মেনে পয়লা বৈশাখের পুজো দেওয়া যাবে।

সিদ্ধেশ্বরী কালী, বেহালা।

সকাল ৬টা থেকে পুজো শুরু হবে বলেই জানালেন মন্দির কমিটির সদস্য অশোক রায় চৌধুরী। তিনি জানান, সকলকে মাস্ক পরে আসতে হবে মন্দিরে এবং সঙ্গে প্রসাদের মিষ্টি আনলেও কোনো ফুল নিয়ে প্রবেশ করা যাবে না। এ ছাড়া স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা থাকবে হবে। মন্দিরের গর্ভগৃহের সামনে যে নাটমন্দির রয়েছে সেখানে পাঁচজন করে ভক্তের একসঙ্গে পুজো নেওয়া হবে। সব কিছুই হবে শারীরিক দূরত্ববিধি মেনেই।

বেহালার আনুমানিক ২৫০ বছরের পুরোনো সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দিরে ভোর ৫টা থেকে পুজো শুরু হয়ে যাবে বলেই জানালেন দেবজিৎ ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, মন্দিরের দালানে এক একবারে পনেরো জন করে ভক্ত আসবেন এবং পুজো দেবেন। সবাইকে মাস্ক মাক্স পরে আসতে হবে এবং অবশ্যই সঙ্গে রাখতে হবে স্যনিটাইজার। শারীরিক দূরত্ববিধি মেনেই সিদ্ধেশ্বরীতে পুজো হবে বলে জানান তিনি।

মা কালী, ঢাকা কালীবাড়ি।

প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোডের ঢাকা কালীবাড়িতেও সকাল থেকে পুজো শুরু হবে বলে জানান মন্দিরের পুরোহিতরা। তবে এ বার সমস্ত রকমের স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুজো দিতে হবে ভক্তদের। শারীরিক দূরত্ববিধি মেনে সকলকে মাস্ক পরে আসতে হবে মন্দির চত্বরে – এমনটাই জানালেন তাঁরা।

দক্ষিণ কলকাতার কসবা অঞ্চলের আদ্যাকালী মন্দির ১৯৫১ সালে প্রতিষ্ঠিত। তারাপীঠ সিদ্ধ শ্রীশ্রী জ্ঞানানন্দ ভৈরবদাস মহারাজ এই মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন। এখানে ভোর ৫টা থেকে পুজো শুরু হবে বলে জানালেন মন্দিরের সেবায়েত গোপাল চক্রবর্তী।

আদ্যা কালীর মন্দির, কসবা।

গোপালবাবু বলেন, ১০ জন করে ভক্ত একবারে পুজো দিতে পারবেন এবং সকলকে মাস্ক পরে আসতে হবে এবং অবশ্যই মানতে হবে শারীরিক দূরত্ববিধি।

দক্ষিণ শহরতলির রাজপুর বিপত্তারিণী চণ্ডীবাড়িতেও সকাল থেকে পুজো শুরু হবে পয়লা বৈশাখে। চণ্ডীবাড়িতে কমপক্ষে ২০ জন করে ভক্ত একসঙ্গে পুজো দিতে পারবেন। তবে কোনো ফুল নিয়ে প্রবেশ করা যাবে না বলেই জানাল চণ্ডীবাড়ি। শারীরিক দূরত্ববিধি মেনে পুজো দিতে হবে চণ্ডীবাড়িতে।

বিপত্তারিণী চণ্ডী, রাজপুর।

একই ভাবে দক্ষিণ কলকাতার লেক কালীবাড়ি, ঢাকুরিয়া শীতলাতলা কালীবাড়িতেও একই নিয়ম রয়েছে সকল ভক্তের জন্য।

দক্ষিণ কলকাতা থেকে চলুন উত্তরে যাওয়া যাক। কলকাতার উত্তর শহরতলির বরানগর বাজারের কাছে রয়েছে আর এক প্রাচীন সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দির। সেই মন্দিরেও পয়লা বৈশাখে ভক্তদের ভিড় দেখার মতো হয় বলেই জানালেন মন্দিরের সেবায়ত সুদীপ্ত চক্রবর্তী।

সিদ্ধেশ্বরী কালী, বরানগর।

সুদীপ্তবাবু বলেন, এ বছর করোনা ভাইরাসের কারণে নানা বিধিনিষেধ থাকছে এই মন্দিরেও। সকলকে মাস্ক পরে আসতে হবে আর সঙ্গে অবশ্যই রাখতে হবে স্যনিটাইজার। এই মন্দিরে সে দিন সকাল ৭টা থেকেই পুজো শুরু হয়ে যাবে এবং নাটমন্দিরে সর্বাধিক পাঁচ জন করে ভক্ত একবারে পুজো দিতে পারবেন বলেই জানান তিনি। সকলকে শারীরিক দূরত্ববিধি মানতে হবে।

Continue Reading

কলকাতা

Bengal Corona Update: সংক্রমণের প্রথম চূড়াকে পেরিয়ে গেল কলকাতা, পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে

সাধারণ মানুষের একটা বড়ো অংশের নির্লজ্জ ভাবে করোনাবিধি শিকেয় তুলে দেওয়ার ফল ভুগতে হচ্ছে এখন কলকাতাকে।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ। কলকাতার পরিস্থিতি তো আরও ভয়াবহ। সাধারণ মানুষের একটা বড়ো অংশের নির্লজ্জ ভাবে করোনাবিধি শিকেয় তুলে দেওয়ার ফল ভুগতে হচ্ছে এখন কলকাতাকে। শহরের সক্রিয় রোগীর সংখ্যাটা এখন রোজ প্রায় পাঁচ-ছশো করে বাড়ছে।

মঙ্গলবার একটি অত্যন্ত খারাপ রেকর্ড করেছে কলকাতা। করোনা সংক্রমণের প্রথম ঢেউয়ে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা যে সর্বোচ্চ স্তরে পৌঁছেছিল, সেটা এই দ্বিতীয় চূড়ায় ভেঙে গেল। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য দফতর প্রকাশিত রিপোর্ট বলছে কলকাতায় বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮ হাজার ৪০৬।

Loading videos...

গত বছর ১১ নভেম্বর সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ছিল ৭ হাজার ৬১৪। সেটাই ছিল সে সময়ের সর্বোচ্চ স্তর। এ বার সেটা পেরিয়ে গেল। কিছু দিন আগে দৈনিক সংক্রমণেও রেকর্ড করে ফেলেছে কলকাতা। প্রথম ঢেউয়ের সময়ে গত বছর ৩১ অক্টোবরে শহরে সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ রেকর্ড করা হয়েছিল (৯৩১)। কিন্তু এ বার গত তিন দিন ধরে সেই সংক্রমণ ১১০০-এর ওপরে থাকছে।

আরও ভয়াবহ বিষয় হল কত দ্রুততার সঙ্গে এই সংক্রমণ বেড়ে গেল। গত ১৬ ফেব্রুয়ারি কলকাতায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যা সর্বনিম্ন স্তরে ছিল (১,০৬৫)। অর্থাৎ মাত্র ৫৫ দিনে, শহরে সক্রিয় রোগী বেড়েছে প্রায় ৭ হাজার ৪০০। পরিস্থিতি আর কতটা ভয়াবহ হবে ভেবে পাওয়া যাচ্ছে। এর পরেও মানুষ সচেতন হবেন কি না, সেটাও বোঝা যাচ্ছে না।

তবে একটা বিষয় ঘটবে, সংক্রমণ যখন কমতে শুরু করবে, তখন কিন্তু প্রথম ঢেউয়ের থেকেও দ্রুততায় কমবে, এটা কার্যত নিশ্চিত। এই চূড়াটা যে ভাবে পৌঁছেছিল, ঠিক সেই ভাবেই চূড়া থেকে নামবে। কিন্তু সেটা কবে হবে, তারই কোনো উত্তর নেই কারও কাছে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

Coronavirus Second Wave: মুম্বইয়ে সংক্রমণ থিতু হওয়ার ইঙ্গিতের মধ্যেই আজ রাত থেকে মহারাষ্ট্রে ‘জনতা কার্ফু’

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
বাংলাদেশ7 mins ago

ভক্ত-সতীর্থদের চোখের জলে শেষ বিদায় কিংবদন্তি অভিনেত্রীকে

Remdesivir
দেশ3 hours ago

মধ্যপ্রদেশের সরকারি হাসপাতাল থেকে চুরি গেল কোভিডরোগীর চিকিৎসায় ব্যবহৃত রেমডেসিভির

Covid situation kolkata
রাজ্য3 hours ago

Bengal Corona Update: হুহু করে বাড়ছে সংক্রমণ, তার মধ্যেও সামান্য কমল সংক্রমণের হার

দঃ ২৪ পরগনা4 hours ago

গুজরাত রেল পুলিশ ক্যানিং থেকে উদ্ধার করল ৮ কেজি চোরাই সোনার গয়না

রাজ্য4 hours ago

Bengal Polls 2021: ভোটের শেষ লগ্নে অসুস্থ মদন মিত্র

দেশ5 hours ago

করোনায় নাভিশ্বাস দশা রাজ্যের, ‘বাংলায় ব্যস্ত’ প্রধানমন্ত্রীকে ফোনে পেলেন না মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে

বাংলাদেশ6 hours ago

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তির বিদায়, বনানী কবরস্থানে সমাহিত কবরী

রাজ্য6 hours ago

‘ফোন ট্যাপ করা হচ্ছে, সিআইডি তদন্তের নির্দেশ’ দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

রাজ্য11 hours ago

Bengal Polls Live: পৌনে ৬টা পর্যন্ত ভোট পড়ল ৭৮.৩৬ শতাংশ

পয়লা বৈশাখ
কলকাতা2 days ago

মাস্ক থাকলেও কালীঘাট-দক্ষিণেশ্বরে শারীরিক দুরত্ব চুলোয়, গা ঘেষাঘেঁষি করে হল ভক্ত সমাগম

ক্রিকেট3 days ago

IPL 2021: আরসিবির হয়ে জ্বলে উঠলেন বাংলার শাহবাজ, তীরে এসে তরী ডোবাল হায়দরাবাদ

রাজ্য3 days ago

স্বাগত ১৪২৮, জীর্ণ, পুরাতন সব ভেসে যাক, শুভ হোক নববর্ষ

কোচবিহার3 days ago

Bengal Polls 2021: শীতলকুচির গুলিচালনার ভিডিও প্রকাশ্যে, সত্য সামনে এল, দাবি তৃণমূলের

গাড়ি ও বাইক2 days ago

Bajaj Chetak electric scooter: শুরু হওয়ার ৪৮ ঘণ্টা পরেই বুকিং বন্ধ! কেন?

ক্রিকেট3 days ago

দুর্নীতির অপরাধে ক্রিকেট থেকে ৮ বছরের জন্য বহিষ্কৃত জিম্বাবোয়ের কিংবদন্তি হিথ স্ট্রিক

ক্রিকেট1 day ago

IPL 2021: দীপক চাহরের বিধ্বংসী বোলিং, চেন্নাইয়ের সামনে মুখ থুবড়ে পড়ল পঞ্জাব

ভোটকাহন

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 weeks ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা3 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে