air force officer arrested for spying

নয়াদিল্লি: পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইকে ভারতের প্রতিরক্ষা সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচারের অভিযোগে গ্রেফতার হলেন বায়ুসেনার এক কর্তা। প্রেমের লোভেই তিনি এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ।

তাঁর বিরুদ্ধে সন্দেহ দানা বেঁধেছিল কয়েক সপ্তাহ আগে। বায়ুসেনার এক শীর্ষ আধিকারিকের নজরে বিষয়টি আসার পরই শুরু হয় অন্তর্তদন্ত। উঠে আসে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচারের মারাত্মক অভিযোগ। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গত ৩১ জানুয়ারি বায়ুসেনার গ্রুপ ক্যাপ্টেন, বছর ৫১-এর অরুণ মারওয়াকে আটক করে বায়ুসেনার গোয়েন্দা বিভাগ। বায়ুসেনার তরফ থেকে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের পর বৃহস্পতিবার তাঁকে দিল্লি পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

বায়ুসেনা সূত্রের খবর, কয়েক মাস আগে ফেসবুকে, মহিলা পরিচয় দেওয়া আইএসআইয়ের এক এজেন্টের সঙ্গে যোগাযোগ হয় মারওয়ার। ধীরে ধীরে ওই এজেন্টের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে তাঁর। হোয়াট্‌সঅ্যাপেও নাকি তাঁদের দু’জনের মধ্যে নিয়মিত কথাবার্তা চলত। এ ভাবে নিয়মিত কথাবার্তার মধ্যে দিয়েই মারওয়ার বিশ্বাস অর্জন করে ওই এজেন্ট। তদন্তকারীরা প্রাথমিক ভাবে মনে করছেন, মারওয়ার কাছ থেকে সাইবার ওয়ারফেয়ার, স্পেস এবং স্পেশাল অপারেশন সংক্রান্ত কিছু তথ্য হাতিয়ে নিতে পেরেছে আইএসআইয়ের ওই এজেন্ট।

মারওয়ার বিরুদ্ধে অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট-এ মামলা রুজু হয়েছে। এই আইনে তাঁর সাত বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে বলেও সূত্রের খবর। মারওয়ার গ্রেফতারি নিয়ে অবশ্য সরকারি ভাবে কোনো মন্তব্য করেনি বায়ুসেনা।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন