hadiya

নয়াদিল্লি: কেরল লাভ জেহাদ মামলায় ফের হাদিয়ার পাশেই দাঁড়াল শীর্ষ আদালত। হাদিয়া ঠিক মানুষকে বিয়ে করেনি, এ রকম বলার অধিকার আদালতের নেই বলে সাফ জানিয়ে দিল প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ।

বৃহস্পতিবার হাদিয়া মামলার চূড়ান্ত শুনানি ছিল শীর্ষ আদালতে। সেই ডিভিশন বেঞ্চ বলে, “তিনি ঠিক লোককে বিয়ে করেননি এটা কোনো ভাবেই আমরা বলতে পারি না। তিনি কাকে বিয়ে করবেন সেটাও আমরা ঠিক করে দিতে পারি না।”

উল্লেখ্য, গত বছর হাদিয়া ওরফে অখিলা অশোকনের সঙ্গে সুফিন জঁহার বিয়েকে অবৈধ ঘোষণা করে কেরল হাইকোর্ট। তার পরেই শীর্ষ আদালতের দারস্থ হন হাদিয়ার স্বামী। সেই মামলার শুনানি চলছে শীর্ষ আদালতে।

কেরল হাইকোর্টের নির্দেশকে প্রমাণ স্বরূপ আদালতে পেশ করেন হাদিয়ার বাবার আইনজীবী। বারবার দীপক মিশ্রের ডিভিশন বেঞ্চে বোঝাতে চান যে সুফিন বেআইনি এবং অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত। তাই হাদিয়াকে সুফিনের সঙ্গে রাখা যাবে না বলা মন্তব্য করেন তিনি।

এর পরিপ্রেক্ষিতে শীর্ষ আদালত বলে, “কেউ যদি বেআইনি কাজকর্মে যুক্ত থাকে, তা হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আইন রয়েছে। কেউ যদি অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের জন্য বিদেশ চলে যাওয়ার চেষ্টা করে, তা হলে সরকারের হাতে যথেষ্ট ক্ষমতা রয়েছে, তার বিদেশযাত্রা আটকে দেওয়ার। কিন্তু আমরা এখানে একটা ব্যক্তিগত সম্পর্কের কথা নিয়ে আলোচনা করছি। এখানে কী ভাবে দু’জনের সম্পর্কের মধ্যে নাক গলাতে পারে আদালত?”

ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন বলে, কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে অপরাধমূলক কাজে জড়িত থাকা প্রমাণিত হলে সরকার তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। সরকারের কাজে এখানে কোনো ভাবেই আদালত হস্তক্ষেপ করবে না।

এ দিন যুক্তি এবং পালটা যুক্তি অসমাপ্ত থাকায় আগামী ৮ মার্চ এই মামলায় পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন