rains in west bengal countryside

ওয়েবডেস্ক: যা আশঙ্কা করা হচ্ছিল সেটাই হল। সোমবার সন্ধ্যার পর কলকাতাকে রেহাই দিলেও, রাঢ়বঙ্গকে কার্যত ভাসিয়ে দিয়েছে এই অতি গভীর নিম্নচাপটি। এর ফলে রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে বৃষ্টি চলছে অবিরাম।

মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতরের প্রকাশিত একটি বুলেটিনে জানানো হয়েছে, এ দিন ভোর সাড়ে পাঁচটার সময়ে বাঁকুড়ার কাছে অবস্থান করছিল এই অতি গভীর নিম্নচাপ। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই যে সেটি কিছুটা দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপে নেমে আসবে সে কথাও বলা হয়েছে ওই বুলেটিনে।

ওই নিম্নচাপটির সম্ভাব্য মতিগতি সম্পর্কে বলতে গিয়ে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা বলেছেন, “এই নিম্নচাপটি দুর্বল হয়ে ধীরে ধীরে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে সরবে। অর্থাৎ ঝাড়খণ্ড এবং লাগোয়া দক্ষিণ বিহারের কাছাকাছি অঞ্চলে পৌঁছে সেটি আরও দুর্বল হবে। তার পর উত্তর বিহার এবং উত্তরবঙ্গের কাছাকাছি গিয়ে সেটি আরও দুর্বল হয়ে যাবে।”

তবে নিম্নচাপের ভালো মতোই টের পেয়েছে রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলি। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় বর্ধমান, বীরভূম এবং বাঁকুড়াতেই সব থেকে বেশি বৃষ্টি হয়েছে। রেকর্ড বৃষ্টি হয়েছে পানাগড়ে। সেখানে বৃষ্টির পরিমাণ ১৬২ মিলিমিটার। এ ছাড়াও একশো মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টি হয়েছে বর্ধমান (১২৫) এবং শান্তিনিকেতনে (১১৭)। উল্লেখযোগ্য বৃষ্টি হয়েছে  বাঁকুড়া (৬৫ মিমি), ক্যানিং (৬২মিমি), ডায়মন্ড হারবারে (৫২মিমি)। তবে দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সবক’টি জেলাতেই কমবেশি বৃষ্টি হয়ে চলেছে।

আবহাওয়া দফতরের তরফ থেকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, নিম্নচাপটি দুর্বল হলেও, আরও ২৪ ঘণ্টা পশ্চিমাঞ্চলে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। পাশাপাশি এই নিম্নচাপের পরোক্ষ প্রভাবে উত্তরবঙ্গেও আগামী ৪৮ ঘণ্টা ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

কলকাতার আবহাওয়ার উন্নতি

অতি গভীর নিম্নচাপ দূরে চলে যাওয়ায় ধীরে ধীরে উন্নতি হতে শুরু করেছে কলকাতার আবহাওয়া। সোমবার সন্ধ্যার পর থেকে বৃষ্টি বন্ধ ছিল শহরে। তবে মঙ্গলবার সকালের দিকে কিছু অঞ্চলে হালকা বৃষ্টি হলেও সূর্যের দেখাও মিলেছে।

তবে রবীন্দ্রবাবু জানিয়েছেন নিম্নচাপ সরে গেলেও তার প্রভাবমুক্ত হয়নি শহর। আবহাওয়া বিজ্ঞানে একে বলে ‘ব্যাকওয়ার্ড পুল এফেক্ট’। এর প্রভাবে মঙ্গলবার শহরে দফায় দফায় হাল্কা বৃষ্টি হতে পারে। অল্প সময়ের জন্য  দু’এক পশলা ভারী বৃষ্টিও হতে পারে।

রাজ্য থেকে কবে বর্ষা বিদায় নেবে সে ব্যাপারে এখনও কিছু বলা যাচ্ছে না। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের উলটে ভাবাচ্ছে আন্দামান সাগরের একটি মতিগতি, যেখানে আগামী সপ্তাহে একটি নিম্নচাপের সৃষ্টি হতে পারে বলে ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here