winter rain in kolkata

কলকাতা: ভারী বা অতি ভারী বৃষ্টি নয়, নিম্নচাপের একনাগাড়ে হালকা বৃষ্টির সুবাদে নকল শীত নেমে এল দক্ষিণবঙ্গে। আবহাওয়া দফতরের মতে, শনিবারের আগে আকাশ পরিষ্কার হওয়ার কোনো সম্ভাবনাই নেই।

বুধবার থেকেই যে দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে বৃষ্টি নামবে, খবর অনলাইন তা বেশ কিছু দিন আগেই জানিয়ে দিয়েছিল। সেই পূর্বাভাসকে সঠিক প্রমাণ করে বুধবার সকাল থেকে বৃষ্টি নামে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায়। বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের প্রভাবেই এই বৃষ্টি বলে জানিয়ে দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

বুধবার দুপুরে প্রকাশিত বুলেটিনে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, এই নিম্নচাপটি শক্তি বাড়িয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলের কাছে অবস্থান করছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় এটি ওড়িশা উপকূলের দিকে এগিয়ে যাবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

গত শনিবারই এই বৃষ্টির কথা বলেছিল খবর অনলাইন

সকাল থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি এবং হাওয়ার সুবাদে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বাড়তেই পারেনি। কলকাতায় এ দিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৩ ডিগ্রি, স্বাভাবিকের থেকে যা ছ’ডিগ্রি সেলসিয়াস কম। দক্ষিণবঙ্গের বাকি জায়গাতেও গড়ে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করেছে ২৩ থেকে ২৪ ডিগ্রির মধ্যে।

নিম্নচাপটি যত ওড়িশার দিকে এগিয়ে আসবে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কিছুটা বাড়বে বলে জানিয়েছেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। তিনি বলেন, “শুক্রবার পর্যন্ত এই নিম্নচাপের ভালোই প্রভাব থাকবে দক্ষিণবঙ্গে। সারা দিনই হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে। উপকূলবর্তী অঞ্চলে বিক্ষিপ্ত ভাবে ভারী বৃষ্টিও হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।”

এই নিম্নচাপের প্রভাব কিন্তু উত্তরবঙ্গেও পড়বে। রবীন্দ্রবাবুর কথায়, বৃহস্পতিবার থেকে মেঘলা আকাশ সঙ্গী করে বিক্ষিপ্ত ভাবে হালকা বৃষ্টি হতে পারে সেখানে। তবে ভারী বা অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকায় বন্যার কোনো আশঙ্কা নেই।

এই প্রসঙ্গে বলে রাখা ভালো, সকাল থেকেই হোয়াট্‌সআপে একটি কিঞ্চিৎ কুরুচিকর মেসেজ চালাচালি হচ্ছে, যেখানে বলা হচ্ছে রসগোল্লা যুদ্ধে হেরে গিয়ে ওড়িশা নাকি দক্ষিণবঙ্গে নিম্নচাপ পাঠিয়ে দিয়েছে। এটি সম্পূর্ণ ভুল। এই নিম্নচাপের সরাসরি প্রভাব ওড়িশাতেই পড়বে। আগামী তিন দিন সেখানে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর। বৃষ্টির প্রভাবে ওড়িশায় ক্ষয়ক্ষতিও হতে পারে।

সংশয়ে ইডেন টেস্ট

গত বছর নিউজিল্যান্ডের টেস্ট আয়োজন করেছিল ইডেন, এ বার মহালয়ার পরের দিনও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একদিনের ম্যাচ হয়েছিল। দু’টি ম্যাচই ভরা বর্ষায় আয়োজিত হলেও, বৃষ্টি সে ভাবে প্রভাব ফেলতে পারেনি। কিন্তু এ বারে বৃষ্টির জন্য প্রায় ভেস্তে যেতে বসেছে হেমন্তে আয়োজিত টেস্ট।

পূর্বাভাস যা তাতে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হতে চলে ভারত-শ্রীলঙ্কা টেস্টের প্রথম দিন তো বটেই পুরোপুরি ভেস্তে যেতে পারে দ্বিতীয় দিনই। তৃতীয় দিন, অর্থাৎ শনিবার থেকে আবহাওয়ার উন্নতি হলেও, বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি চলতে পারে।

সুতরাং খেলা হলেও, কোনো মীমাংসা হবে কি না সেই নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here