india's wealth

ওয়েবডেস্ক: ভারতের অর্থনৈতিক অসাম্য ক্রমশই বাড়ছে। ভারতের মোট সম্পদের ৭৩ শতাংশই রয়েছে মাত্র এক শতাংশ ভারতবাসীর কাছে। এমনই জানাচ্ছে চ্যারিটিবল সংস্থাদের নিয়ে তৈরি সংগঠন ওক্সফাম।

২০১৭-এর ভিত্তিতে করা এই সমীক্ষার ফল সোমবার প্রকাশ করেছে ওক্সফাম। গত বছর এই সমীক্ষার ফলে দেখা গিয়েছিল, দেশের ওই এক শতাংশ জনগণ ৫৮ শতাংশ সম্পদের মালিক। ডাভোসে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের সম্মেলন শুরু হওয়ার কিছু আগেই প্রকাশিত এই সমীক্ষা রিপোর্টে দেখা গিয়েছে আর্থিক দিক থেকে ভারতের দরিদ্রতম ৬৭ কোটি মানুষের বার্ষিক আয় বেড়েছে মাত্র এক শতাংশ হারে।

অবশ্য গোটা বিশ্বের অবস্থার থেকে তুলনায় ভারতের অবস্থা কিছুটা ভালো। বিশ্বব্যাপী ফল দেখলে বোঝা যাবে সেখানে আর্থিক অসাম্যের চিত্রটা আরও খারাপ। গত বছর বিশ্বের মাত্র এক শতাংশ জনগণের দখলে বিশ্বে মোট উৎপাদিত সম্পদের ৮২ শতাংশ। অর্থাৎ বাকি ৯৯ শতাংশ জনগণের ভাগ্যে জুটেছিল মাত্র ১৮ শতাংশ সম্পদ। অন্য দিকে বিশ্বের দরিদ্রতম ৩৭ লক্ষ মানুষের গত এক বছরে কোনো আয় বাড়েইনি।

ওক্সফামের এই সমীক্ষার দেখা গিয়েছে, ভারতের যে এক শতাংশ মানুষ এই ৭৩ শতাংশ সম্পদের মালিক, তাদের গত এক বছরে আয় বেড়েছে ২০.৯ লক্ষ কোটি টাকা। ওক্সফাম বলেছে, “২০১৭-তে কোটিপতিদের সংখ্যা অভূতপূর্ব হারে বেড়েছে। গত বছরে দু’দিনে একটা করে নতুন কোটিপতি পেয়েছে বিশ্ব। ২০১০ থেকে প্রতি বছরে কোটিপতি আয় বেড়েছে ১৩ শতাংশ হারে। অন্য দিকে ঠিক একই সময়ে সাধারণ শ্রমিকদের আয় বেড়েছে মাত্র দু’শতাংশ হারে।”

দশটা দেশে মোট এক লক্ষ কুড়ি হাজার মানুষের ওপরে এই সমীক্ষা করেছে ওক্সফাম। এই সমীক্ষার ফল প্রকাশের পরে তারা জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী এই আর্থিক অসাম্যের সমস্যা এখনই মেটাতে হবে। ডাভোসের বিশ্ব অর্থনৈতিক সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তার আগে মোদীর প্রতি ওক্সফাম আবেদন করেছে, দেশের আর্থিক নীতি যেন প্রত্যেকের জন্য কাজ করে। শুধুমাত্র কয়েক জন যেন এই নীতির সুফল না পায়।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন