winter

ওয়েবডেস্ক: ফুরফুরে উত্তুরে হাওয়াকে সঙ্গী করে রবিবার এক ধাক্কায় অনেকটাই নেমে গিয়েছিল কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। মরশুমের শীতলতম দিন রেকর্ড করা হয়েছিল। কিন্তু ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই ফের কিছুটা বাড়ল পারদ।

রবিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৪.৫ ডিগ্রি। সোমবার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১৫.৩ ডিগ্রি। যদিও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে বেশি খানিকটা কম থাকায় সারা দিনই শীতের মালুম হচ্ছে। শীত ফিরলেও তাপমাত্রার যতটা পতন হবে মনে করা হচ্ছিল সেটা কিন্তু হল না।

এর নেপথ্যে রয়েছে একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। নতুন এই পশ্চিমী ঝঞ্ঝা তুলনায় অনেকটা দুর্বল হলেও, উত্তুরে হাওয়া আটকানোর সব ক্ষমতা রয়েছে তার। বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা বলেন, “মঙ্গলবার থেকে ওই পশ্চিমী ঝঞ্ঝাটি কাশ্মীর, হিমাচল এবং উত্তরাখণ্ডে প্রভাব ফেলবে। এর প্রভাবে উত্তর ভারতের পাশাপাশি, দক্ষিণবঙ্গেও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কিছুটা বাড়বে।” রবীন্দ্রবাবুর মতে, আগামী তিন দিন কলকাতার তাপমাত্রা ১৬ ডিগ্রির কাছাকাছি থাকবে।

কলকাতায় ১৬ ডিগ্রি মানে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা বার-তেরো ডিগ্রির আশেপাশে ঘোরাঘুরি করবে। তবে এই ঝঞ্ঝাটি কেটে গেলে, আবার কলকাতার তাপমাত্রা নেমে ১৩-১৪ ডিগ্রির কাছে পৌঁছে যেতে পারে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু।

ইতিমধ্যে থাইল্যান্ড উপসাগরে একটি নিম্নচাপের সৃষ্টি হওয়ার ইঙ্গিত মিলেছে। আপাতত যা পূর্বাভাস তাতে এই নিম্নচাপের ফলে আন্দামানে বড়োদিনের সময়ে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। নিম্নচাপটি তার পর বঙ্গোপসাগরে ঢুকবে। কিন্তু তার সম্ভাব্য গতিপথ নিয়ে এখনই কিছু জানাতে পারছেন না রবীন্দ্রবাবু।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here