winter

নয়াদিল্লি: গত বছরের থেকে ঠান্ডা বেশি পড়ার পূর্বাভাস দিলেও, এ বারও ঠান্ডার ব্যাপারে আশাপ্রদ কোনো খবর শোনাতে পারল মৌসম ভবন। তাদের পূর্বাভাস এ বারও স্বাভাবিকের থেকে কিছুটা বেশিই থাকবে সারা দেশের গড় তাপমাত্রা।

এই বছর শীত কেমন হবে, সেই নিয়ে বৃহস্পতিবার একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর। সেখানে দেখা যাচ্ছে একমাত্র দক্ষিণ ভারতের কিছু অংশ ছাড়া, গোটা দেশেই তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে বেশি থাকার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, ডিসেম্বর থেকে ২০১৮-এর ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রাজস্থান, কাশ্মীর, হরিয়ানা, চণ্ডীগড় এবং দিল্লিতে গড় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। এ ছাড়া, উত্তর ভারতের বাকি রাজ্য এবং পশ্চিম ভারতের কিছু অংশে গড় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে স্বাভাবিকের থেকে ০.৫ থেকে এক ডিগ্রি করে বেশি। পশ্চিমবঙ্গ-সহ দেশের বাকি অংশে তাপমাত্রা থাকবে স্বাভাবিক থেকে ০.৫ ডিগ্রি বেশি। একমাত্র অন্ধপ্রদেশে তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে কম থাকার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

অন্য দিকে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার ক্ষেত্রে, আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, গুজরাতে তাপমাত্রা থাকবে স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। পঞ্জাব এবং পশ্চিমবঙ্গের কিছু অংশে তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে ০.৫ ডিগ্রি থেকে ১ ডিগ্রি পর্যন্ত বেশি থাকার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। দেশের বাকি অংশে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের কাছাকাছি থাকারই পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

শৈত্যপ্রবাহের ব্যাপারে আবহাওয়া দফতর মনে করে, সাধারণত ভাবে শীতকালে যত বার শৈত্যপ্রবাহের কবলে পড়ে উত্তর ভারত, এ বার তার থেকে কম শৈত্যপ্রবাহ হতে পারে উত্তর ভারতে। তবে স্বাভাবিকের থেকে বেশি তাপমাত্রার পূর্বাভাস দেওয়া হলেও, গত বছরের তুলনায় এ বার শীতের ছবিটা আশাব্যঞ্জক।

উল্লেখ্য, ভারতের ইতিহাসে চতুর্থ উষ্ণতম শীতকাল হিসেবে গণ্য হয়েছিল গত মরশুম। ওই বছর দেশের গড় তাপমাত্রা ছিল স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি সেলসিয়াসেরও বেশি।

তবে আবহাওয়ার খামখেয়ালিপনা সব সময় বজায় থাকে। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অক্ষরে অক্ষরে মিলে যাবে এমন নাও হতে পারে।

দক্ষিণবঙ্গে তাপমাত্রা বাড়ল

নভেম্বরের শেষ দিন পনেরোর নীচে তাপমাত্রা নামলেও, ডিসেম্বরের প্রথম দিন তাপমাত্রা ফের বেড়ে গেল। শুক্রবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৫.৬ ডিগ্রি, স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি। শুধু কলকাতাই নয়, তাপমাত্রা বেড়েছে দক্ষিণবঙ্গের সর্বত্র। শ্রীনিকেতনে এ দিন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১১.৪ ডিগ্রি, বাঁকুড়ায় ১৩.১ ডিগ্রি। আপাতত আগামী দিন পাঁচেক এ রকমই বজায় থাকবে তাপমাত্রা। সামনের সপ্তাহের মাঝামাঝি ফের বাড়তে পারে পারদ।

শক্তি বাড়িয়ে লাক্ষাদ্বীপের দিকে এগোচ্ছে অক্ষি

ক্রমশ শক্তি বাড়িয়ে লাক্ষাদ্বীপের দিকে এগোচ্ছে ঘূর্ণিঝড় অক্ষি। বৃহস্পতিবার তামিলনাড়ুর কন্যাকুমারী এবং নাগেরকোয়েল এবং কেরলের তিরুঅনন্তপুরম ও কোল্লমে তাণ্ডব চালিয়েছে অক্ষি। ঘূর্ণিঝড়ের সরাসরি প্রভাব না পড়লেও, দমকা হাওয়া এবং প্রবল বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এই সব অঞ্চলে। এখনও পর্যন্ত দুর্যোগে মোট আট জনের মৃত্যু হয়েছে।

অতীতে লাক্ষাদ্বীপে কোনো ঘূর্ণিঝড়ের আঘাত হানার ঘটনা ঘটেনি। অক্ষিই প্রথম এমন ঘূর্ণিঝড়, যে এই ছোট্টো দ্বীপে আঘাত হানতে চলেছে। এর ফলে সমগ্র দ্বীপে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করছে প্রশাসন।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here