ওয়েবডেস্ক: শুধু দেশে নয়, ভারতের বাইরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও রয়েছে হিন্দু ধর্মের বহু মন্দির। কোনোটির বয়স কম হলেও কোনোটি প্রাচীনত্বে পেয়েছে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ খেতাব। তাদের মধ্যে কোনোটি আবার রাধাকৃষ্ণ মন্দিরও। বা বিষ্ণু মন্দির। রইল তেমনই কয়েকটির খোঁজ।

নব বৃন্দাবন, পশ্চিম ভার্জিনিয়া আমেরিকা

ইসকনের প্রতিষ্ঠাতা প্রভুপাদ ১৯৬৮ সালে এই মন্দিরটি তৈরি করেন। ৪.৮৭ বর্গকিলোমিটার স্থান জুড়ে রয়েছে এই মন্দিরটি। এটি অনেকটা বৃন্দাবনের মতো করেই সাজানো হয়েছে। নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে এটি কৃষ্ণ মন্দির।

শ্রীকৃষ্ণ মন্দির, ওমান

গুজরাতের ব্যবসায়ীরা মিলে ওমানে এই কৃষ্ণ মন্দিরটি স্থাপন করেন। স্থাপিত হয় ১৯৮৭ সালে। মন্দিরের ভিতরটি অনেকটা জায়গা নিয়ে তৈরি। একই সঙ্গে প্রায় ৭০০ ভক্ত একসঙ্গে প্রার্থনা করতে পারবেন।

রাধামাধব ধাম, অস্টিন

২০০ একর জায়গার ওপর স্থাপিত এই রাধামাধব মন্দিরটি। এটি আমেরিকার সর্বাধিক প্রাচীন একটি মন্দির। এখানে রথযাত্রা ও জন্মাষ্টমী খুব ধুমধাম করে পালিত হয়।

হরেকৃষ্ণ টেম্পল অব আন্ডারস্ট্যান্ডিং, ডারবান, দক্ষিণ আফ্রিকা

মার্বেল আর গোল্ড পেন্ট দিয়ে সাজানো মন্দির। এই দেশের একটি বড়ো মন্দির হিসাবে সুপরিচিত। এটি তৈরি করেছে ইসকন গোষ্ঠী।

বিএপিএস শ্রী স্বামী নারায়ণ মন্দির, রবিন্সভিল, নিউজার্সি, আমেরিকা

রাধাকৃষ্ণ লক্ষ্মী নারায়ণ মূর্তি রয়েছে এই মন্দিরে। এটি ১৬০ একর জমির ওপর অবস্থিত এই মন্দির। ১৩ হাজার ইতালিয়ান মার্বেল পাথর দিয়ে তৈরি।

আঙ্কোরভাট, কম্বোডিয়া

কম্বোডিয়ার সিয়েম রিপে অবস্থিত আঙ্কোরভাট বিশ্বের সব চেয়ে বড়ো ধর্মীয় ইমারত। এটি এখন ইউনেস্কো ঘোষিত ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট এবং বিশ্বের অন্যতম সেরা বিস্ময়৷ এটি একটি প্রাচীন বিষ্ণু মন্দির। বর্তমানে বৌদ্ধ আরাধনা হয়। এটি ১৬২.৬ হেক্টর এলাকা জুড়ে অবস্থিত। ১২০০ সালে এখানকার রাজা সূর্যবর্মন ২ এটি স্থাপন করেছিলেন। সময় লেগেছিল ২৭ বছর।

এ ছাড়াও গোটা বিশ্বে আরও অনেক হিন্দু মন্দির রয়েছে।

আরও দেখুন – জন্মাষ্টমী তিথিতে উত্তর ও পশ্চিম ভারতের বিখ্যাত ৮টি কৃষ্ণ মন্দির দর্শন করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here