ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় শেয়ার বাজারের ঐতিহাসিক মুহূর্ত ছুঁয়ে ফেলল ৩০ স্টকের সূচক সেনসেক্স। সোমবারের এই সর্বকালীন রেকর্ডের পর খুশির মেজাজ ক্রমশ চড়া শেয়ার বাজারে। তবে অতীত অভিজ্ঞতা বলছে, এই খুশির মরশুমকে বিষাদের মোড়কে ঢেকে ফেলতে খুব একটা বেশি সময় ব্যয় করতে হয় না শেয়ার বাজারকে।

এ দিন বাজার খোলার সময় থেকেই সেনসেক্স অথবা নিফটির মোচড় ছিল চোখে পড়ার মতোই। একটা সময় সেনসেক্স বেড়ে পৌঁছাল ৩৫৬ পয়েন্টে ( ০.৯২ শতাংশ) অন্য দিকে নিফটির ঊর্ধ্বগমন ৯১ পয়েন্ট (০.৭৮ শতাংশ)। দিনে শেষে সেই অবস্থান থেকে অনেকটাই পিছু হঠতে হয়েছে দুই সূচককেই। বাজার বন্ধ হওয়ার সময় সেনসেক্স ৩৮৮৭১.৮৭ (০.৫১ শতাংশ) এবং নিফটি ১১৬৬৯.১৫ (০.৩৯ শতাংশ)।

বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, এ দিনের এই ঐতিহাস রচনার নেপথ্যে রয়েছে বেশ কয়েকটি ইতিবাচক অনুঘটকের কার্যকরী ভূমিকা। যেগুলির মধ্যে অন্যতম বিশ্ববাজারের হাতে গরম পরিস্থিতি। চিনের বৃদ্ধির শক্তিশালী লক্ষণকে সামনে রেখে গোটা বিশ্ববাজার চাঙ্গা। অন্য দিকে এ দেশের বাজারে বিদেশি বিনিয়োগের তড়িৎগতিতে পরিমাণ বেড়ে যাওয়া এবং সামনের লোকসভা ভোটে ফের বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রত্যাবর্তনের সম্ভাবনা শেয়ার বাজারের বিনিয়োগকারীদের মনে বদ্ধমূল হওয়া। ইত্যাদি।

এপ্রিলের শুরুতেই বাজারের হাতে এসেছে দমদার পরিসংখ্যান। জানা গিয়েছে, গত মার্চে এ দেশের শেয়ার বাজারে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৩৩ হাজার ৯৮০.৫৬ কোটি টাকা। তা হলে কেন সতর্কতা?  

নিফটির ৫০টি স্টকের মধ্যে ৩৪টিরই ঊর্ধ্বগমন দেখা গিয়েছে এ দিন, কিন্তু সেনসেক্সের রেকর্ড গড়ার দিনেই বিদ্যুৎ ক্ষেত্রের স্টকগুলির অবস্থা বিপরীতধর্মী। 

খুশির আবহে শুধুই উপরে ওঠার প্রবণতা বা চিন্তা বিনিয়োগকারীদের মাথায় চেপে বসলেও বিশেষজ্ঞ এবং বিনিয়োগকারীদের ধারণাকে ভুল প্রমাণ করার জন্য একটা অসাধারণ ক্ষমতা রয়েছে শেয়ার বাজারের। যা অতীতে অসংখ্যবার প্রমাণিত!

[ আরও পড়ুন: রেকর্ড বৃদ্ধি হল শেয়ারবাজারে, এই প্রথম ৩৯ হাজার ছুল সেনসেক্স ]

শেয়ার বাজারের প্রবাদপ্রতীম ব্যক্তিত্ব ওয়ারেন বাফেটের ‘কলরবকে উপেক্ষা’ করার মন্ত্রই তাই এক মাত্র সম্বল হয়ে উঠেছে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগকারীদের কাছে। একাধিক কারণকে সঙ্গী করে শেয়ার বাজারের সূচকগুলি উপরের দিকে ধেয়ে যেতে পারে, কিন্তু ধপাস করে তার পতনের শব্দে কানে তালা না-লাগলেও বিনিয়োগ ফরসা হয়ে যেতে পারে নিমেষেই। শেয়ার বাজারের তা করে দেখানোর ক্ষমতা যে পুরোমাত্রায় রয়েছে, তা গত চার বছরে একটার পর একটা হার্ডলস ভাঙা সেনসেক্স-নিফটির গ্রাফে চোখ বোলালেই স্পষ্ট।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here