Connect with us

খাওয়াদাওয়া

বাজে খেতে খাবারে মুহূর্তে স্বাদ ফেরাতে পারে এই ৭টি টিপ

Published

on

cook

খবরঅনলাইন ডেস্ক : রান্না একটি শিল্প৷ কিন্তু হাতে তৈরি যে কোনো শিল্পকর্মেই কমবেশি ভালোমন্দ কখনও কখনও হবেই, সেটাই স্বাভাবিক। তাই রান্নাও কখনও গলে যায়, ধরে যায়, নুনও বেশি বা কম হয়ে যায়, আবার বেশি পাতলা ঝোল বা বেশি গাঢ় হয়ে যায়। সে সব সময় রাঁধুনিরা একটু সমস্যায় পড়েন বই-কি। কিন্তু সেই সমস্ত সমস্যারই সহজ সমাধান আছে। তাই চিন্তার কোনও কারণ নেই৷

রইল তেমনই কয়েকটি টিপ, নিশ্চয়ই কাজে লাগবে –

১) তেলে ভাজা জাতীয় স্ন্যাক্স তৈরি করেছেন, কিন্তু স্বাদ ভালো হয়নি। কী করবেন? ভাজার সঙ্গে পরিবেশন করুন সস। তাতেই বাজিমাত। সস বানান নিজেই। খুব সহজ উপায়ে – সম পরিমাণ মেয়নেজ ও টমেটো কেচাপ নিন। তাতে খানিকটা চিলি সস, পাতিলেবুর রস, গোলমরিচ গুঁড়ো, ও সামান্য জল দিন। ভালো করে ফেটিয়ে নিন মিশ্রণটিকে। সস তৈরি। দারুণ স্বাদের এই সসই ভাজার স্বাদ বহু গুণ বাড়িয়ে দেবে।

Loading videos...

২) মাছের ঝোলে আঁশটে গন্ধ এমন হামেশাই হয়ে থাকে। কী করবেন? আঁশটে গন্ধ তাড়াতে ঝোলের মধ্যে কয়েকটা টমেটো টুকরো করে দিয়ে দিন। সঙ্গে ভাজা জিরার গুঁড়ো ছড়িয়ে দিন। ওপর দিয়ে দিন অনেকটা ধনেপাতার কুচি। সব কিছু দেওয়ার পর খানিকক্ষণ ঢাকা দিয়ে রাখুন। ঢাকা খুলে দেখবেন ম্যাজিক, টমেটো ধনেপাতা জিরের গন্ধে আঁশটে গন্ধ উধাও।

৩) মাংসের ঝোল বেশি পাতলা, ঝাল বেশি, কাঁচা মশলার গন্ধ অথবা মশলা পুড়ে গিয়ে তেঁতো হয়ে যাওয়ার সমস্যা অনেকেরই হয়। তখন কী উপায়? কিছুটা পেঁয়াজ ভাজা করুন। ভাজার সময়ই তেলে দিয়ে দিন গোটা গরম মশলা। এ বার এই পেঁয়াজ ভাজা দিয়ে দিন মাংসের ঝোলে। এ বার ভালো করে নেড়ে, আঁচ কমিয়ে ঢাকা দিয়ে রাখুন ১৫ থেকে ২০ মিনিট। স্বাদ ফিরে আসবে, কোনো রকম উগ্র গন্ধ ছাড়াই।

৪) মাংসের ঝোলে খুব বেশি নুন বা ঝাল হয়ে গেলে তাতে দিন দুধ। সঙ্গে সামান্য চিনি। তার পর ঢাকা দিয়ে অল্প আঁচে রাখুন। অতিরিক্ত নুন ও ঝাল দু’টোই কমে যাবে।

৫) আলুর চপ, পরোটা ইত্যাদি তৈরি করেছেন কিন্তু স্বাদ নেই। ওপরে দিয়ে ছড়িয়ে দিন যে কোনো স্বাদের চাট মশলা। সুস্বাদু হয়ে উঠবে ভাজা।

৬) গ্রিল চিকেন, শিক কাবাব বা অন্য যে কোনো কাবাব জাতীয় খাবার খেতে খুব বাজে হলে বা বেশি পুড়ে গেলে বা নুন-মশলা বেশি হয়ে গেলে চিন্তা করবেন না। একটি বিশেষ রায়তা সব সমাধান করবে। বানাবেন কী ভাবে? টক দইয়ে চিনি, সামান্য নুন, চাট মশলা, মিহি করে কাটা ধনে পাতা ও পুদিনা পাতা ও অল্প সরষে তেল দিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে নিন। রায়তা তৈরি। এই রায়তা কাবাবের সঙ্গে খেলে কোনো ত্রুটিই ধরা পড়বে না।

৭) ফ্রায়েড রাইস, পোলাও বা বিরিয়ানির ভাত বেশি গলে গিয়েছে, ডেলা পাকিয়ে গিয়েছে। ঝরঝরে করে তুলতে হলে একটি বড়ো পাত্রে ঢেলে ফ্যানের নীচে শুকাতে দিন। খুব ভালো করে ঠান্ডা হয়ে গেলে অনেকটা ঝরঝরে হয়ে আসবে। তার পর আবার তা ছড়ানো কড়াইয়ে গরম করে নিন। ব্যাস তৈরি ঝরঝরে ফ্রায়েড রাইস৷

শিখে নিন – খুব সহজেই বাড়িতে বানান কোল্ড কফি

খাওয়াদাওয়া

ভাইফোঁটার স্পেশাল রেসিপি ধুসকা

ধুসকা, মুলত বিহার ও ঝাড়খণ্ড একটি বিশেষ রান্না। ধুসকা আলু-টম্যাটো/ আলু-চানা সব্জির সঙ্গে পরিবেশন করা হয়।

Published

on

ধুসকা
রঞ্জনা
রঞ্জনা দাস

ধুসকা, মুলত বিহার ও ঝাড়খণ্ড একটি বিশেষ রান্না। ধুসকা আলু-টম্যাটো/ আলু-চানা সব্জির সঙ্গে পরিবেশন করা হয়।

উপকরণ :  

ভিজিয়ে রাখা গোবিন্দ ভোগ চাল ২০০ গ্রাম, ভিজিয়ে রাখা ছোলার ডাল ১০০ গ্রাম, ভিজিয়ে রাখা উরদের ডাল ৫০ গ্রাম, কাঁচা লঙ্কা ৪ টে, আদা ১ টুকরো, সাদা জিরে ১টেবিল চামচ/ হিং ১/২ ছিটে, হলুদ ১/৪tsp, নুন (পরিমাণ মতো), ধনে পাতা ২ টেবিল চামচ।

প্রণালী:

 প্রথমে গোবিন্দ ভোগ চাল মিক্সিতে একটু জল ঢেলে বেটে নেব। এরপর ছোলা ও উরদের ডাল একসঙ্গে মিক্সিতে দিয়ে, তার মধ্যে কাঁচা লঙ্কা, আদা ও একটু জল দিয়ে বেটে নেব। চাল ও ডাল আলাদা করে বাটতে হবে।

Loading videos...

এরপর চাল ও ডাল একসঙ্গে একটি পাত্রে রাখব ও তার মধ্যে সাদা জিরে, হিং, হলুদ, নুন ( পরিমাণ মতো ), ধনে পাতা দিয়ে ব্যাটারটি ভাল করে মিশিয়ে নেব, ব্যাটার গাঢ় হলে সামান্য জল দিতে হবে।

 ২ মিনিট পর্যন্ত ব্যাটার ফেটাতে হবে। কড়াইতে তেল গরম করতে দেব, আর নিজের পছন্দ মতো আকারে ছোট বা বড় মাপের গোল গোল করে ব্যাটার গরম তেলে ছাড়তে থাকব। ধুসকা তেলে ভাসতে শুরু করলে একটু উল্টে দেব ও বাদামি রঙ হওয়া পর্যন্ত ভাজতে থাকব। এরপর আলু-টম্যাটো কারির সঙ্গে পরিবেশন করুন।

আলু- টম্যাটো কারি

সরষের তেলে ( জিরে, হিং ফোড়ন, ৪-৫টি টম্যাটো, আদা ১ ইঞ্চি, কাঁচা লঙ্কা ) বাটা কড়াইতে দেব। এরপর নুন ও হলুদ দেব। মশলার থেকে তেল ছাড়লে, সেদ্ধ করে রাখা ৫টি আলু হাতে মেখে কড়াইতে দেব, আর ভাল করে কষিয়ে নেব।

সামান্য জল দিয়ে গা মাখা হলে, ওর মধ্যে চিনি, ধনে পাতা কুচি, আমচুর, গরম মশলা ছরিয়ে নামিয়ে দিতে হবে।

এই খাবারটি সকালে-দুপুরে-রাতে যেকোন সময়ে এর জন্য , কম উপকরণে পেট ভরা খাবার।

খবর অনলাইনে আরও রেসিপি

মহানবমীতে পেঁয়াজ রসুন ছাড়া নিরামিষ পাঁঠার মাংস

বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন স্বাস্থ্যকর কালারফুল খান্ডবি

Continue Reading

খাওয়াদাওয়া

১০টি রোগকে দূরে রাখতে নিয়মিত খান কমলালেবু, জেনে নিন উপকারিতা

সুমিষ্ট রসালো এই ফলে বিভিন্ন পুষ্টিদ্রব্যের পাশাপাশি রয়েছে অত্যন্ত শক্তিশালী অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। জেনে নিন কোন প্রতিরোধে সক্ষম এই ফল।

Published

on

কমলালেবু

খবর অনলাইন ডেস্ক : কার্তিক মাস। বাতাসে হালকা হিমেল হাওয়া। বাজারে এসে গিয়েছে কমলা লেবু। সুস্বাদু এই ফল এমনিতে বেশ জনপ্রিয়। তার উপর চলছে করোনা-কাল। এই সময় রোজ যদি একটি করে কমলা লেবু খাওয়া সম্ভব হয় তবে নানা রোগের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

সুমিষ্ট রসালো এই ফলে বিভিন্ন পুষ্টিদ্রব্যের পাশাপাশি রয়েছে অত্যন্ত শক্তিশালী অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। জেনে নিন কোন প্রতিরোধে সক্ষম এই ফল।

কমলালেবুর রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতা

হাই-ব্লাডপ্রেশার : উচ্চ রক্তচাপের রোগী প্রতিদিন একটি করে কমলা লেবু খেতে পারেন। এর মধ্যে রয়েছে, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন বি এবং হেসপিরিডিন নামে যৌগ রক্তের উচ্চচাপকে নিন্ত্রণ করে।

Loading videos...

দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি : ভিটামিন এ থাকায় এই ফল রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে। বয়েস সংক্রান্ত চোখের সমস্যাও প্রতিরোধে সাহায্য করে।

হৃদরোগ : কমলালেবুতে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, কোলিন, পটাশিয়াম, ডায়েটারি ফাইবার থাকে। যা স্ট্রোক, অ্যাথমিয়া এবং হার্ট অ্যাটাকের সম্ভবনা কমিয়ে দেয়।

ক্যান্সার : ত্বক, মুখের ভিতর, ব্রেস্ট, ফুসফুস, পাকস্থলী ও কোল ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। লিউকোমিয়া প্রতিরোধেও কমলালেবুর বিশেষ ভূমিকা রয়েছে।

স্থুলত্ব : ওজন কমাতে হলে নিয়মিত একটি কমলালেবু খেতে হবে। ডায়েটারি ফাইবার সমৃদ্ধ এই ফল কম ক্যালরির।

অরুচি, বদহজম এবং কোষ্ঠবদ্ধতায় : এই তিনটি সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সাহায্য করে।

ডায়বেটিস : কমলালেবুর ডায়েটারি ফাইবার এবং ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস রক্তে শর্করার মাত্রা নিন্ত্রয়ণে রাখতে সাহায্য করে।

ক্ষতস্থান নিরাময় : অন্যান্য যে কোনও সাইট্রাস ফলের মতো কমলালেবুরও দ্রুত ক্ষতস্থান নিরাময়ে সাহায্যে করে।

ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষা : ঝকঝকে ত্বকের জন্য ভিটামিন-সি এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ কমলালেবু অনবদ্য। ব্রন, সানবার্ন, ত্বকের শুষ্কতা ইত্যাদি বিভিন্ন সমস্যা থেকে ত্বককে রক্ষা করে কমলালেবু।

মানসিক অবসাদ : কমলালেবু স্ট্রেস হরমোনের ক্ষরণ কমিয়ে মুড বুস্টিং হরমোনের ক্ষরণ বাড়ায়। স্মৃতি শক্তি বাড়াতে কমলালেবু বিশেষ ভূমিকা রয়েছে।

তবে মনে রাখা ভালো

কমলালেবু অত্যন্ত উপকারী ও হলেও তা পরিমিত পরিমাণে খাওয়াই ভালো। অতিরক্তি পরিমাণে খেলে পেটেব্যথা, ডায়েরিয়া, বদহজম, গলা-বুক জ্বালা ইত্যাদি।

হার্ট ও কিডনির রোগে যাঁদের হাই পটাশিয়াম যুক্ত খাবারের উপর নিষেধাজ্ঞা আছে তাঁরা কমলালেবু খাওয়ার আগে পুষ্টিবিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করুন।

খবর অনলাইনে আরও পড়ুন

কেন খাবেন শশা? জেনে নিন ১৭টি উপকারিতা

কেন খাবেন পুঁইশাক? জেনে নিন ১৫টি উপকারিতা

Continue Reading

খাওয়াদাওয়া

কেন খাবেন শশা? জেনে নিন ১৭টি উপকারিতা

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক : শশা শরীর সুস্থ রাখতে খুব উপকারী ও দরকারী একটি নাম। শশার উপকারিতা অনেক। বেশির ভাগ রোগের ক্ষেত্রেই রোগীরা শশা খেতে পারেন, তার কারণ শশার খাদ্য ও পুষ্টিগুণ। শুধু রূপচর্চায় নয়, শরীরকে ভেতর থেকে ঠিক রাখতে শশা নিয়মিত খাওয়া দরকার

শশায় ভিটামিন বি, থিয়ামিন (বি১), রাইবোফ্লাবিন (বি২), নিয়াসিন (বি৪), প্যানটোথেনিক, বি৫, বি৬, ফোলেট (বি৯), ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, গ্লুকোজ, স্নেহপদার্থ, ফাইবার, প্রোটিন, বিভিন্ন ধরনের খনিজ পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেশিয়াম, লোহা, সোডিয়াম, দস্তা, ক্যালোরি, সব থেকে বেশি থাকে জলীয় পদার্থ।  

কেন খাবেন শশা?

১। জল শূন্যতায়

শরীরে জলের চাহিদা মেটাতে শশা খুবই উপকারী। একটি শশায় প্রায় ৯৫ শতাংশ জল থাকে। দুর্বলতা কাটিয়ে দ্রুত সতেজ করে তোলে।

Loading videos...

২। ভিটামিনের চাহিদায়

প্রতিদিন শরীরে যে সমস্ত ভিটামিনের প্রয়োজন বেশির ভাগই শশায় আছে। ভিটামিন এ, বি ও সি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

৩। ডায়াবেটিস প্রতিরোধে

শশা ডায়াবেটিস বা সুগারের সমস্যা প্রতিরোধ করে। শশায় থাকা বিশেষ উপাদান রক্তের কোলেস্টরলের মাত্রা কমাতে পারে।

৪। কিডনির পাথর 

শশার জলীয় অংশ দেহের বর্জ্য ও দূষিত পদার্থ বের করতে দারুণ কাজ করে। নিয়মিত শশা খেলে কিডনিতে সৃষ্ট পাথর গলে যেতে সহায়তা হয়। ইউরিনারি, ব্লাডার, লিভার ও প্যানক্রিয়াসের সমস্যার সমাধানে বেশ সাহায্য করে শশা।

৫। কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে

১০০ গ্রাম শশার রস খালি পেটে রোজ সকালে খালি পেটে খেলে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে আসে। সকালের খাবার ১৫ থেকে ২০ মিনিট আগে খেতে হবে। মাসখানেক এই ভাবে খেলে উপকার পাবেন।

৬। স্মৃতিশক্তিতে

শশার রস নিয়মিত খাওয়ার ফলে মস্তিস্কে ও ধমনীতে জমে থাকা প্রচুর এলডিএল হ্রাস করে। ফলে স্মৃতিশক্তিও বৃদ্ধি পায়।

৭। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে

শশায় আছে প্রচুর ভিটামিন সি, ম্যাগনিসিয়াম, সিলিকা, পটাসিয়াম ও আঁশপদার্থ।  এগুলি শরীরের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। শশার উপাদান উচ্চ এবং নিম্ন রক্তচাপ দু’ই নিয়ন্ত্রণ করে। হার্ট ও ফুসফুসের সমস্যায় উপকার করে।

৮। ওজন হ্রাসে

এতে উচ্চমাত্রায় জল থাকে। নিম্নমাত্রায় ক্যালরি থাকে। ফলে দেহের ওজন কমাতে আদর্শ এটি।

৯। হজমে

কাঁচা শশা চিবিয়ে খেলে ভালো হজম হয়। এরেপসিন নামক অ্যানজাইমের জন্য  দীর্ঘমেয়াদি কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। আলসার, গ্যাস্ট্রাইটিস, অ্যাসিডিটির ক্ষেত্রেও উপকারী।

১০। গেঁটেবাত

প্রচুর পরিমাণে সিলিকা থাকে এতে। গাজরের রসের সঙ্গে শশা রস মিশিয়ে খেলে দেহের ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা কমে। গেঁটেবাতের ব্যথা কমে। আর্থ্রাইটিসের ব্যথাও উপশম করে।

১১। মাথাব্যথায়

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর যে মাথাব্যথা হয়, শরীরে অবসাদ আসে তা শশার উপাদান সমূহ যেমন – ভিটামিন বি ও সুগার এ সব দূর করে। ঘুমাতে যাওয়ার আগে কয়েক টুকরো শশা খেলে ঘুম থেকে ওঠার পরের এই সমস্যা দূর হয়।

১২। ক্যানসারে

শশায় বিশেষ তিনটি আয়ুর্বেদিক উপাদান থাকে। এটি জরায়ু, স্তন ও মূত্রগ্রন্থিসহ বিভিন্ন স্থানে ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়।

১৩। চোখের যত্নে

শশা গোল করে কেটে চোখের পাতার ওপর রাখলে চোখের পাতায় জমে থাকা ময়লা  অপসারিত হয়, তেমনি চোখের জ্যোতি বাড়ায়। এমনকি চোখের প্রদাহ প্রতিরোধক উপাদানও তাহকে এতে। ছানি পড়া আটকায়।

১৪। চুল ও নখের জন্য

শশায় থাকা খনিজ চুল ও নখকে সতেজ ও শক্তিশালী করে। এ ছাড়া সালফার ও সিলিকা চুল বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।  

১৫। মুখের গন্ধ

শশা দেহের বর্জ্য ও দূষিত পদার্থ, টক্সিন দূর করে। নিয়মিত খেলে দুর্গন্ধ, সংক্রমণ, আক্রান্ত মাড়ির চিকিৎসা করে। গোল করে কেটে এক টুকরো শশা জিভের ওপরে তালুতে চাপ দিয়ে আধ মিনিট রাখলে তা বিশেষ বিক্রিয়া ঘটিয়ে মুখের জীবাণু ধ্বংস করে। নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ, দাঁত ও মাড়ির সমস্যা দূর করে।

১৬। দেহকলায়

সূর্যের তাপে ত্বকে জ্বালা অনুভব হলে ত্বকে শশা মাখলে ভালো ফল হয়। এতে উপস্থিত সিলিকা কার্টিলেজ, লিগামেন্টের কানেকটিভ টিস্যু গড়ে ওঠে এবং দেহকলাকে শক্তিশালী ও মজবুত করে।

১৭। রূপচর্চায়

স্বাস্থ্য রক্ষার সঙ্গে ত্বক এবং চুলের জন্যও সমানভাবে উপকারী। অ্যাগজিমা সারাতে ও আটকাতেও বিশেষ উপকারী শশা।

আরও – কেন খাবেন পুঁইশাক? জেনে নিন ১৫টি উপকারিতা

আরও পড়ুন – বয়স ৩০ বছর পেরিয়ে গেছে? তা হলে এই খাবারগুলির বিষয়ে সচেতন হন

Continue Reading
Advertisement
Advertisement

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

শীতের নতুন কিছু আইটেম, দাম নাগালের মধ্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: শীত এসে গিয়েছে। সোয়েটার জ্যাকেট কেনার দরকার। কিন্তু বাইরে বেরিয়ে কিনতে যাওয়া মানেই বাড়ি এসে এই ঠান্ডায়...

কেনাকাটা3 days ago

ঘর সাজানোর জন্য সস্তার নজরকাড়া আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক: ঘরকে একঘেয়ে দেখতে অনেকেরই ভালো লাগে না। তাই আসবারপত্র ঘুরিয়ে ফিরে রেখে ঘরের ভোলবদলের চেষ্টা অনেকেই করেন।...

কেনাকাটা6 days ago

লিভিংরুমকে নতুন করে দেবে এই দ্রব্যগুলি

খবর অনলাইন ডেস্ক: ঘরের একঘেয়েমি কাটাতে ও সৌন্দর্য বাড়াতে ডিজাইনার আলোর জুড়ি মেলা ভার। অ্যামাজন থেকে তেমনই কয়েকটি হাল ফ্যাশনের...

কেনাকাটা1 week ago

কয়েকটি প্রয়োজনীয় জিনিস, দাম একদম নাগালের মধ্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: কাজের সময় হাতের কাছে এই জিনিসগুলি থাকলে অনেক খাটুনি কমে যায়। কাজও অনেক কম সময়ের মধ্যে করে...

কেনাকাটা3 weeks ago

দীপাবলি-ভাইফোঁটাতে উপহার কী দেবেন? দেখতে পারেন এই নতুন আইটেমগুলি

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই কালীপুজো, ভাইফোঁটা। প্রিয় জন বা ভাইবোনকে উপহার দিতে হবে। কিন্তু কী দেবেন তা ভেবে পাচ্ছেন...

কেনাকাটা4 weeks ago

দীপাবলিতে ঘর সাজাতে লাইট কিনবেন? রইল ১০টি নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আসছে আলোর উৎসব। কালীপুজো। প্রত্যেকেই নিজের বাড়িকে সুন্দর করে সাজায় নানান রকমের আলো দিয়ে। চাহিদার কথা মাথায় রেখে...

কেনাকাটা2 months ago

মেয়েদের কুর্তার নতুন কালেকশন, দাম ২৯৯ থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজো উপলক্ষ্যে নতুন নতুন কুর্তির কালেকশন রয়েছে অ্যামাজনে। দাম মোটামুটি নাগালের মধ্যে। তেমনই কয়েকটি রইল এখানে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা2 months ago

‘এরশা’-র আরও ১০টি শাড়ি, পুজো কালেকশন

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই পুজো আর পুজোর জন্য নতুন নতুন শাড়ির সম্ভার নিয়ে হাজর রয়েছে এরশা। এরসার শাড়ি পাওয়া...

কেনাকাটা2 months ago

‘এরশা’-র পুজো কালেকশনের ১০টি সেরা শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো কালেকশনে হ্যান্ডলুম শাড়ির সম্ভার রয়েছে ‘এরশা’-র। রইল তাদের বেশ কয়েকটি শাড়ির কালেকশন অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা2 months ago

পুজো কালেকশনের ৮টি ব্যাগ, দাম ২১৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : এই বছরের পুজো মানে শুধুই পুজো নয়। এ হল নিউ নর্মাল পুজো। অর্থাৎ খালি আনন্দ করলে...

নজরে