Connect with us

খাওয়াদাওয়া

১৪টি রোগে মহৌষধি উচ্ছে

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: তেঁতো খেতে অনেকেরই হয়তো ভালো লাগে না। কিন্তু তেঁতো হলেও উচ্ছে বা করলা হল শরীরের জন্য মহার্ঘ্য। উচ্ছে বা করলায় আছে ভিটামিন, ফোলেট, জিঙ্ক, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ, বিটাক্যারোটিন, ফাইবার, আয়রন, প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি এবং অ্যান্টিভাইরাল উপাদান। উচ্ছে বা করলা সেদ্ধ শরীরের জন্য বেশ উপকারী। এই সবুজ সবজিটি খেলে কী কী উপকার হয় তা দেখে নেওয়া যাক –

১। সুগার কমায়

প্রথমেই আসা যাক সুগারে। উচ্ছেতে আছে প্রাকৃতিক ইনসুলিন। ফলে এটি ইউরিন ও রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে।

২। রক্ত বিশুদ্ধকরণ

বিভিন্ন কারণে রক্ত দূষিত হয়। তার থেকে চুলকানি-সহ নানান সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যার সমাধানে উচ্ছে খুবই ভালো। রক্ত পরিশ্রুত করে এটি। উচ্ছের রসের সঙ্গে পাতিলেবুর রস মিশিয়ে খাওয়া ভালো।

৩। রোগ প্রতিরোধ

এর উপাদানগুলি শরীরের রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়ায়।

৪। ম্যালেরিয়ায়

ম্যালেরিয়ায় খুবই ভালো। এ ক্ষেত্রে করলা পাতার রস খেলে উপকার হয়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, ম্যালেরিয়ার রোগী দিনে তিনখানা করলা পাতা ও তিনটি গোলমরিচ থেঁতো করে ৭ দিন খেলে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠে।

৫। জ্বরে

করলা পাতার রস খেলে জ্বর সেরে যায়। জ্বরের পরে মুখের অরুচি দূর হয়।

৬। কৃমি

ছোটো বড়ো অনেকেই কৃমির সমস্যায় ভোগেন। সে ক্ষেত্রে করলা বা উচ্ছে খেলে মলের সঙ্গে শরীর থেকে কৃমি বেরিয়ে যায়।

৭। হার্ট অ্যাটাক

বিশেষজ্ঞরা বলেন, করলা রক্তের চর্বি তথা ট্রাইগ্লিসারাইড বা খারাপ কোলেস্টেরল কমায় এবং ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায়। এতে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত থেকে। ফলে রক্তনালিতে চর্বি জমতে পারে না তাই হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমায়।

৮। লিভার ভালো রাখে

উচ্ছের রস লিভার পরিষ্কার করার কাজও করে। উচ্ছের রস পান করলে লিভারের যে কোনো সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

৯। বাতের ব্যথায়

চার চা-চামচ করলা বা উচ্ছেপাতার রস একটু গরম করে দেড় চা চামচ বিশুদ্ধ গাওয়া ঘি মিশিয়ে ভাতের সঙ্গে খেলে বাতের ব্যথা দূর হয়।

১০। অরুচি দূর করে

খাবারে অরুচি হলে এক চা-চামচ করে করলা বা উচ্ছের রস সকাল ও বিকালে খেলে খাবারে অরুচি দূর হবে।

১১। প্রস্রাব পরিষ্কার হয়

বিশেষজ্ঞরা বলেন, উচ্ছেপাতার রস ৫ থেকে ১০ চা-চামচ নিয়ে তাতে একটু হিং মিশিয়ে খেলে প্রস্রাব পরিষ্কার হয়।

১২। চোখের জন্য

উচ্ছের বিটাক্যারোটিন চোখের যে কোনো সমস্যা সমাধান করে। দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে উচ্ছে।

১২। বমি বন্ধে

ছোটোদের বমি করার অভ্যাস থাকে। কয়েকটি উচ্ছের বিচি ও তিনটি গোলমরিচ সামান্য জল দিয়ে বেঁটে কয়েক দিন খাওয়ালে বমি বন্ধ হয়।

১৩। পাইলসের জন্য

এক গ্লাস দুধে উচ্ছেপাতার রস তিন চা-চামচ মিশিয়ে খালি পেটে এক মাস খেলে উপকার হয়।

১৪। ক্যানসার প্রতিরোধ  

উচ্ছে রসের মধ্যে থাকা এনজাইম রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে।  ক্যানসারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে। ফলে ক্যানসারের আশঙ্কা খানিকটা কমে।

পড়ুন – কেন খাবেন মোচা? জেনে নিন ১৬টি উপকারিতা

আরও পড়ুন – কেন খাবেন গাঁটি কচু? জেনে নিন ১১টি উপকারিতা

খাওয়াদাওয়া

মহানবমীতে পেঁয়াজ রসুন ছাড়া নিরামিষ পাঁঠার মাংস

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নবমীর দিন মাংস খাওয়ার চল অনেক বাড়িতেই আছে। তাই রইল নিরামিষ কচি পাঁঠার মাংস রান্নার রেসিপি।

উপকরণ

কচি পাঁঠার মাংস ৮০০ গ্রাম, হলুদ ২ চা চামচ, নুন পরিমাণমতো, আদাবাটা ২ চা চামচ, জিড়েবাটা ২ চা চামচ, গোটা ধনে ১ চা চামচ, জিরে ১ চা চামচ, গোলমরিচ গোটা ১/২ চা চামচ, সেদ্ধ চাল ২ চা চামচ, গোটা গরম মশলা – দারুচিনি, ছোটো এলাচ, লবঙ্গ, জায়ফল, জয়িত্রী, কাঁচালঙ্কা ৪টে, পাতি লেবু ২টো, লঙ্কাগুঁড়ো দেড় চা চামচ, সরষের তেল, টক দই ২ টেবিল চামচ, টমেটো ২টো টুকরো করে কাটা।

পদ্ধতি

মাংসটি ভালো করে ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখতে হবে। তাতে পরিমাণমতো নুন, ১ চা চামচ হলুদগুঁড়ো, আদাবাটা, জিরেবাটা, লঙ্কাগুঁড়ো, পাতিলেবুর রস, সরষের তেল, টকদই, কাঁচা লঙ্কা দিয়ে ভালো করে চেপে চেপে মাখতে হবে। এর পর আধ ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখতে হবে।

এই সময়ের মধ্যে উনুনে কড়াই বসিয়ে শুকনো খোলায় মশলা ভেজে নিতে হবে। তার জন্য প্রথমে চালটা দিয়ে কিছুটা নেড়ে নিতে হবে। এর পর একে একে গোটা জিরে, গোটা ধনে, গোটা গোল মরিচ, গোটা গরম মশলা সমস্তটা দিয়ে ভালো করে ভেজে নিতে হবে। ভাজা মশলা গুঁড়িয়ে নিতে হবে।

খানিকটা জল গরম করে রাখতে হবে।

এর পর কড়াইয়ে ২ টেবিল চামচ সরষের তেল দিয়ে গরম হলে তাতে গোটা জিরে ফোঁড়ন দিতে হবে। ফোঁড়ন হালকা ভাজা হলে তাতে টমেটোর টুকরো দিয়ে নেড়ে তার পর মাংস দিতে হবে। এর পর মাংসের বাটিতে সামান্য জল দিয়ে বাটিধোয়া জলটা কড়াইয়ে দিয়ে দিতে হবে। এর পর ভালো করে কষিয়ে রান্না করতে হবে। মাঝে মধ্যে চাপা দিয়ে কষালে জল বেরিয়ে সেদ্ধ হতে থাকবে। এর পর জল শুকিয়ে হালকা ভাজা মতো হলে তাতে গরম জল দিয়ে ভালো করে নেড়ে জল কমে এলে আবার একটু গরম জল দিয়ে কষাতে হবে। এ বার তেল ছেড়ে গেলে এর পর প্রেসার কুকারে মাংস ঢেলে গরম জল দিয়ে ভালো করে নেড়ে কম আঁচে বসিয়ে একটা সিটি এলে বন্ধ করে দিতে হবে। এর পর গুঁড়িয়ে রাখা ভাজা মশলা ছড়িয়ে ভালো করে ফুটিয়ে একটা সিটি আসার আগেই নামিয়ে নিতে হবে।

তৈরি নিরামিষ মাংস।       

পড়ুন -পুজোর রেসিপি: মালপোয়া

Continue Reading

খাওয়াদাওয়া

পুজোর রেসিপি: মালপোয়া

দোকান থেকে নানা রকম মিষ্টি কিনে এনে অতিথিসেবার ব্যবস্থা করতে হয়। এ রকমই একটি জিভে জল আনা মিষ্টির পদ হল মালপোয়া।

Published

on

malpoa

মিষ্টি পদ দিয়ে পুজো শুরু করেছিলাম। মিষ্টি দিয়েই পুজো শেষ করি। বিজয়াদশমীর দিন বাড়িতে অতিথি আপ্যায়নের জন্য মিষ্টি তো লাগেই। দোকান থেকে নানা রকম মিষ্টি কিনে এনে অতিথিসেবার ব্যবস্থা করতে হয়। এ রকমই একটি জিভে জল আনা মিষ্টির পদ হল মালপোয়া। আসুন কিনে আনার পরিবর্তে বাড়িতে বানানো যাক। রইল সেই অতি লোভনীয় মালপোয়ার রেসিপি।

উপকরণ

২৫০ গ্রাম চিনির রস, ৫০ গ্রাম সুজি, ২৫০ গ্রাম ময়দা, কাজুবাদাম কুচি, পেস্তা কুচি, অল্প গোটা মৌরি, বড়োএলাচ গুঁড়ো পরিমাণমতো, সাদা তেল পরিমাণমতো, অল্প ঘি, দুধ পরিমাণমতো, জল।

পদ্ধতি

প্রথমেই একটি বড়ো পাত্র নিতে হবে। তাতে ময়দার সঙ্গে সুজি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। মিশ্রণের মধ্যে কাজুবাদাম কুচি, পেস্তা কুচি, মৌরি এক চিমটে, বড়োএলাচ গুঁড়ো দিয়ে আবার ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। এর পর পরিমাণমতো দুধ দিয়ে থকথকে করে ময়দাটা গুলে নিতে হবে। গোলা হয়ে গেলে ভালো ভাবে ফেটিয়ে নিতে হবে। এ বার ৩০ মিনিট রেখে দিতে হবে।

৩০ মিনিট পরে ব্যাটারটি গরম তেলে ভাজতে হবে। এর জন্য কড়াইয়ে পরিমাণমতো সাদা তেল ও ঘি মিলিয়ে গরম করতে হবে। গরম হয়ে গেলে ডাবু হাতা করে ব্যাটার তেলের মধ্যে ছাড়তে হবে। এক পিঠ এক পিঠ করে ভাজতে হবে। লাল লাল ভাজা হলে তেল ঝরিয়ে তুলে নিতে হবে।

অন্য একটি পাত্রে চিনি জলে মিশিয়ে গরম করতে হবে। এ ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে চিনি যদি দুই কাপ হয়, জল দিতে হবে এক কাপ। ভালো করে নেড়ে নেড়ে রস তৈরি করতে হবে।

তেল ঝরিয়ে তুলে নেওয়ার পর মালপোয়া চিনির রসে ডোবাতে হবে। ১০ মিনিট ডুবিয়ে রাখার পর মালপোয়ার ভেতরে রস ঢুকে যাবে।

এর পর পরিবেশনের পালা। পরিবেশনের সময় কিছুটা কাজুপেস্তা কুচি ওপর দিয়ে ছড়িয়ে দিলে দেখতে ভালো লাগবে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

পুজোর রেসিপি: লালশাক দিয়ে চিকেন

Continue Reading

খাওয়াদাওয়া

পুজোর রেসিপি: কাঁকরোলের দোরমা

পটলের দোরমা তো অনেকই খাওয়া হয়। কিন্তু পটলকে ছাড়াও দোরমা করতে এবং খেতে হলে ট্রাই করতে পারেন কাঁকরোল।

Published

on

kankrol's dorma
অনন্যা মল্লিক

দুর্গাপুজোর পাঁচ দিন বাড়িতে নানা রকম পদ বানিয়ে জিভের স্বাদ পালটাতেই পারেন। এ বার তো করোনার কারণে বাড়ির বাইরে খুব একটা যাওয়া হবে না। সুতরাং এ বারই সুযোগ আছে, নানা রকম পদ বানিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা করা।

দুর্গাপুজোর মহাষ্টমীতে বেশির ভাগ বাঙালি বাড়িতেই নিরামিষ খাওয়া হয়। পটলের দোরমা তো অনেকই খাওয়া হয়। কিন্তু পটলকে ছাড়াও দোরমা করতে এবং খেতে হলে ট্রাই করতে পারেন কাঁকরোল। এমনিতে কাঁকরোলের কদর খাবার তালিকায় তেমন নেই ঠিকই। কিন্তু তা দিয়ে দোরমা বানালে আট থেকে আশি সকলেই তা চেটে পুটে খাবে।

উপকরণ

কাঁকরোল ৬টা, তেল, জল

পুরের জন্য

১. পেঁয়াজ ১টা ছোটো করে কাটা

২. কাঁকরোলের মাঝের অংশটা

৩. পনির কুরোনো ১/২ কাপ

৪. আদা ১ ইঞ্চি

৫. রসুন ২-৩ কোয়া

৬. কাঁচা লঙ্কা ২-৩টে

৭. নুন পরিমাণমতো

৮. চিনি পরিমাণমতো

৯. গরম মশলাগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ

১০. কিশমিশ ১০-১২ টা

গ্রেভির জন্য

১. ছোটো এলাচ ২টো

২. লবঙ্গ ২টো

৩. দারচিনি ছোটো টুকরো

৪. গোটা গোলমরিচ ৩-৪ টে

৫. গোটা জিরে ১/২ চা-চামচ

৬. পেঁয়াজ টমেটোর পেস্ট ১/২ কাপ

৭. আদা-রসুনবাঁটা ১ চামচ

৮. লঙ্কাগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ

৯. জিরেগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ

১০. ধনেগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ

১১. হলুদগুঁড়ো ১/২ চা-চামচ

১৩. নুন পরিমাণমতো

১৪. চিনি পরিমাণমতো

১৫. ফেটানো টক দই ১/৪ কাপ

১৬. পোস্ত কাজুবাদামের পেস্ট ২ চা-চামচ

১৪. গরম মশলা ১/২ চা-চামচ

কী ভাবে বানাবেন

১. কাঁকরোলগুলোর গা ভালো করে ঘষে নিতে হবে, যাতে কাঁটাগুলো না থাকে।

২. কাঁকরোলের দু’ দিক অল্প করে কেটে নিতে হবে।

৩. এ বার একটা দিক ভালো করে কেটে চামচের পিছন দিয়ে ভিতরের বীজ, শাঁস সব বার করে নিতে হবে।

৪. কড়াইয়ে তেল গরম করতে হবে।

৫. কাঁকরোলগুলো ৬-৭ মিনিট ভেজে নিতে হবে।

কী ভাবে পুর তৈরি করবেন

১. কিশমিশগুলো জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে।

২. কাঁকরোলের মাঝের অংশ, আদা, রসুন, লঙ্কা, পনির সব মিক্সিতে পেস্ট করে নিতে হবে।

৩. কড়াইয়ে অল্প তেল গরম করতে হবে।

৪. কুচিয়ে রাখা পেঁয়াজ ভাজতে হবে।

৬. পেঁয়াজ ভাজা হয়ে গেলে তাতে পেস্টটা দিতে হবে।

৭. পরিমাণমতো নুন, চিনি, গরম মসলা, কিশমিশ দিয়ে ভালো করে নাড়তে হবে।

৮. মাখামাখা হয়ে গেলে নামাতে হবে।

হয়ে গেল পুর তৈরি। এ বার ভেজে রাখা কাঁকরোলগুলোর ভিতর পুরটা ভালো করে ভোরে দিন।

কী ভাবে গ্রেভি তৈরি করবেন

১. কড়াইয়ে তেল গরম করতে হবে।

২. ছোটো এলাচ, লবঙ্গ, দারচিনি, গোটা গোলমরিচ, গোটা জিরে ফোঁড়ন দিতে হবে।

৩. পেয়াঁজ টমেটোর পেস্টটা দিতে হবে।

৪. আদা-রসুনবাঁটা দিতে হবে।

৫. লঙ্কাগুঁড়ো, জিরেগুঁড়ো, ধনেগুঁড়ো, হলুদগুঁড়ো, নুন, চিনি দিয়ে অল্প জল দিয়ে ভালো করে কষতে হবে।

৬. তেল ছাড়লে ফেটানো টক দই, কাজু-পোস্ত পেস্টটা দিতে হবে।

৭. ভালো করে কষিয়ে তেল ছাড়লে জল দিতে হবে।

৮. এ বার কাঁকরোলগুলো দিয়ে ঢাকা দিতে হবে।

৯. ১৫ মিনিট পর ঢাকা খুলে একটু নাড়িয়ে আরও ৫ মিনিট ঢাকা দিতে হবে।

১০. এ বার গরম মশলাগুঁড়ো ছড়িয়ে দিতে হবে।

১১. ভালো করে ফুটিয়ে গা মাখা পছন্দ হলে গা মাখা করে, না হলে অল্প গ্রেভি রাখলেও হবে।

গরম গরম পরিবেশন করতে হবে কাঁকরোলের দোরমা।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

পুজোর রেসিপি: ইলিশ মাছের মাথা দিয়ে কচুশাক

Continue Reading

Amazon

Advertisement
দেশ21 mins ago

দৈনিক মৃতের সংখ্যা ফের ছ’শোর নীচে, সুস্থতার হার বেড়ে প্রায় ৯০ শতাংশ

দেশ55 mins ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৫০১২৯, সুস্থ ৬২০৭৭

currency notes
শিল্প-বাণিজ্য1 hour ago

মোরাটোরিয়াম: কয়েক দিনের মধ্যেই অ্যাকাউন্টে বাড়তি সুদের টাকা ফেরত পাবেন গ্রাহক

দেশ2 hours ago

কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল শেষ হতে পারে এপ্রিলের পর, তবে জরুরি ব্যবহারের সম্ভাবনা তার আগেই!

বিদেশ2 hours ago

কোভিড আক্রান্ত হওয়ার পর ক্ষমা চেয়ে নিলেন পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট

ক্রিকেট11 hours ago

নাটকীয় প্রত্যাবর্তন! হারের দরজা থেকে জয় ছিনিয়ে নিল পঞ্জাব

খাওয়াদাওয়া12 hours ago

মহানবমীতে পেঁয়াজ রসুন ছাড়া নিরামিষ পাঁঠার মাংস

শরীরস্বাস্থ্য12 hours ago

শ্বাসকষ্ট কেন হয়? জেনে নিন ৯টি কারণ

দেশ55 mins ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৫০১২৯, সুস্থ ৬২০৭৭

রাজ্য3 days ago

সপ্তমীর দুপুরে সুন্দরবনে আঘাত হানবে অতি গভীর নিম্নচাপ, ভারী বর্ষণে ভাসতে পারে কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী জেলা

কলকাতা2 days ago

কাশীবোস লেনে ‘দেবীঘট’, হাতিবাগানে ‘অসমাপ্ত’, নলীন সরকারে ‘পুজো এবার কাঠামোতে’, নর্থ ত্রিধারার ‘শ্রদ্ধার্ঘ্য’, সিকদারবাগানে ‘উৎসব’

ক্রিকেট2 days ago

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভরতি কপিল দেব

covaxin
দেশ2 days ago

ভারত বায়োটেকের ‘কোভ্যাকসিন’কে তৃতীয় দফার পরীক্ষার জন্য ছাড়পত্র

কলকাতা1 day ago

মহাসপ্তমীতে কলকাতা মহানগরীর অচেনা ছবি

ক্রিকেট2 days ago

মনীশ, বিজয়ের রেকর্ড জুটিতে রাজস্থানকে হারিয়ে দিল হায়দরাবাদ

ক্রিকেট2 days ago

ব্যাটে-বলে দাপট মুম্বইয়ের, ছিন্নভিন্ন চেন্নাই

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 weeks ago

মেয়েদের কুর্তার নতুন কালেকশন, দাম ২৯৯ থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজো উপলক্ষ্যে নতুন নতুন কুর্তির কালেকশন রয়েছে অ্যামাজনে। দাম মোটামুটি নাগালের মধ্যে। তেমনই কয়েকটি রইল এখানে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা3 weeks ago

‘এরশা’-র আরও ১০টি শাড়ি, পুজো কালেকশন

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই পুজো আর পুজোর জন্য নতুন নতুন শাড়ির সম্ভার নিয়ে হাজর রয়েছে এরশা। এরসার শাড়ি পাওয়া...

কেনাকাটা3 weeks ago

‘এরশা’-র পুজো কালেকশনের ১০টি সেরা শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো কালেকশনে হ্যান্ডলুম শাড়ির সম্ভার রয়েছে ‘এরশা’-র। রইল তাদের বেশ কয়েকটি শাড়ির কালেকশন অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা4 weeks ago

পুজো কালেকশনের ৮টি ব্যাগ, দাম ২১৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : এই বছরের পুজো মানে শুধুই পুজো নয়। এ হল নিউ নর্মাল পুজো। অর্থাৎ খালি আনন্দ করলে...

কেনাকাটা4 weeks ago

পছন্দসই নতুন ধরনের গয়নার কালেকশন, দাম ১৪৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজোর সময় পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়না পরতে কার না মন চায়। তার জন্য নতুন গয়না কেনার...

কেনাকাটা4 weeks ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা1 month ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা1 month ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা1 month ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা1 month ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

নজরে