Connect with us

খাওয়াদাওয়া

কষা আমলকী চিবিয়ে খেতে অসুবিধা হয়? রইল ৭টি উপায়

amla

ওয়েবডেস্ক: শরীর সতেজ টানটান আর উজ্জ্বল রাখতে আমলকী খাওয়া খুবই ভালো একটি অভ্যাস। প্রতিদিন একটি করে কাঁচা আমলকী চিবিয়ে খাওয়া যেতে পারেন। আমলকী খাবেন কেন? নিয়মিত আমলকী খেলে কী কী উপকার হয়? সেই নিয়ে এর আগেই আলোচনা করা হয়েছে। তাই সে ব্যাপারে কথা না বাড়িয়ে বরং কাঁচা চিবিয়ে খাওয়া ছাড়া আর কী ভাবে আমলকী খাওয়া যায় সেই ব্যাপারে কয়েকটি টিপস দেওয়া যাক।

আমলকীর যাবতীয় গুনাগুণ ভরপুর পেতে হলে সাধারণ ভাবে কাঁচা চিবিয়ে খাওয়াই সব থেকে ভালো। কিন্তু আমলকীর সাংঘাতিক কষ আর টক ভাবের জন্য অনেকেই চাইলেও চিবিয়ে খেতে পারেন না। তাঁদের জন্য রয়েছে আরও কয়েকটি অন্য উপায়ও। দেখে নেওয়া যাক সেই পদ্ধতিগুলি ঠিক কী?

১। রস করে-

খাওয়া যেতে পারে আমলকীর রস। সে ক্ষেত্রে অন্যান্য ফলের মতো এটিও জুসার বা ব্লেন্ডার দিয়ে জুস বানিয়ে খাওয়া যেতে পারে। তার জন্য আগে আমলকীর ভেতরের বীজটি বের করে নিতে হবে। তাই আগে আমলকী ভালো করে ধুয়ে নিয়ে কুচি করে কেটে নিতে হবে। তার পর সেই টুকরোগুলি ব্লেন্ডার বা জুসারের মধ্যে দিয়ে সামান্য পরিমাণ জল দিতে হবে। এ বার মেশিন অন করতে হবে। রস হয়ে গেলে ছেঁকে নিয়ে খাওয়া যেতে পারে।

২। মধু দিয়ে –

আমলকীর রস করে নিয়ে সেই রস খেতেও অনেকেরই অতিরিক্ত টক লাগে। তাই রসের সঙ্গে মিশিয়ে নেওয়া যেতে পারে স্বাদ বদলের জন্য সামান্য পরিমাণ মধু। মধু শরীরের জন্য উপকারী। তাই আমলকীর সঙ্গে মধু দিলে আরও একটি উপকারী জিনিস শরীরে যায়। এতে স্বাদেরও বদল হয়। উপকারেও লাগে।

৩। সৈন্ধব লবণ দিয়ে –

অনেকেই মিষ্টি খেতে পছন্দ করেন না। সে ক্ষেত্রে স্বাদটা অন্য দিকে ঘুরিয়ে দিতে খাওয়া যেতে পারে সামান্য নুন দিয়ে। তবে তা সাধারণ সাদা নুন না হয়ে যদি সৈন্ধব লবণ হয় তা হলে বেশি ভালো হয়। কারণ এই নুন শরীরের ক্ষতি করে না। আবার রক্তচাপের সমস্যা যাঁদের আছে তাঁদের জন্যও কোনো সমস্যা তৈরি করে না। এ ছাড়াও বিট নুন দিয়েও খাওয়া যায় এই রস।

৪। বড়ি বানিয়ে –

এই তো গেল রস বানিয়ে খাওয়ার কয়েকটি পদ্ধতি। রস ছাড়াও খাওয়া যায় গুলি বা বড়ি বানিয়ে। তার জন্য আমলকীকে আগে ছেঁচে বা কুরে নিতে হবে। তার পর তা সামান্য জল দিয়ে সেদ্ধ করে নিতে হবে। সেদ্ধ আমলকী ভালো করে চটকে তার মধ্যে বিট নুন বা সৈন্ধব লবণ দিয়ে ভালো করে মেখে নিতে হবে। এ বার গোল গোল ছোটো ছোটো বলের মতো পাকিয়ে নিয়ে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে। ব্যস, তৈরি আমলকীর বল। নিয়মিত একটি দু’টি করে বল দুপুরে খাবার পর খেয়ে ফেলুন। দেখবেন খেতেও ভালো লাগবে আর হজম শক্তিও বাড়বে। সঙ্গে মিলবে অন্যান্য উপকারও।

৫। আচার বানিয়ে –

হালকা সেদ্ধ করা গোটা আমলকীতে নুনের রস মেখে ভালো করে রোদে দিয়ে অল্প শুকিয়ে নিয়ে তৈরি করে রাখা যায় আমলকীর আচার। এই আচার ভাতের সঙ্গেও খাওয়া যেতে পারে।

৬। আমলকি চূর্ণ –

প্রথমে গোটা আমলকী টুকরো করে কেটে রোদে ভালো করে খটখটে করে শুকিয়ে নিতে হবে। পরে তা মিক্সিতে দিয়ে গুঁড়ো করে নিতে হবে। গুঁড়োটা একটি কাচের বয়মে রাখতে পারলে ভালো হয়। এই গুঁড়ো জলের সঙ্গে খেতে হয়। প্রয়োজনে স্বাদ আনতে মধু মেশানো যেতে পারে, মাখনও মেশানো যেতে পারে।

৭। আমলকির কোয়া –

কোয়া কোয়া করে আমলকী কেটে সামান্য ভাপিয়ে নিয়ে তাতে সৈন্ধব লবণ বা বিট নুন, পাতি লেবুর রস, আদার কুচি, সামান্য পরিমাণ সরষের তেল দিয়ে মেখে চড়া রোদে দিয়ে শুকিয়ে নেওয়া যেতে পারে। তার পর তা বারে বারে খাওয়া যেতে পারে। তবে কেউ চাইলে এই সরষের তেল না-ও দিতে পারেন।

তবে সব ক্ষেত্রেই কিন্তু সংগ্রহ করার সময় পরিষ্কার কাচের বয়ম ব্যবহার করাই ভালো।

পড়তে পারেন – কাঁচা আমলকী কেন খাবেন? ৩২টি উপকারিতা

শীতের শুরুতে আপনাকে সুস্থ রাখবে আমলকী, জেনে নিন এই ৫টি গুণাগুণ

খাওয়াদাওয়া

প্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে রোজের খাদ্যতালিকায় অবশ্যই রাখুন এই খাবারগুলি

food

খবরঅনলাইন ডেস্ক :  করোনাকালে সব থেকে বেশি দরকার রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ানো। তা হলে এই ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য দরকার উপযুক্ত খাবারেরও। কয়েকটি খাবার নিয়মিত খেলে রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়বেই বাড়বে।

১। রসুন –

এটি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। ধমনীতে দূষিত পদার্থ জমতে দেয় না। রক্ত সংবহনতন্ত্র সংকীর্ণকারী উৎসেচক নির্গত হওয়া কমায়।

২। চকোলেট –

শুনলে অবাক হবেন না, চকোলেটও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে খুব সাহায্য করে। হৃদরোগ ও স্ট্রোকের আশঙ্কা কমায়। হাভার্ডের একটি গবেষণায় জানা গিয়েছে, নিয়মিত বিশুদ্ধ কোকো খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে ও হাইপারটেনশন হয় না।

৩। আমন্ড –

এটি কগনেটিভ ফাংশনকে ভালো করে, হৃদরোগ হতে দেয় না। খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।

৪। বেদানা –

রক্তনালি সাফ রাখতে সাহায্য করে বেদানা। প্রচুর অ্যান্টিওক্সিডেন্টে ভরপুর তাই অক্সিডেন্ট জমতে দেয় না। প্রস্টেট ক্যানসার, মধুমেহ, স্ট্রোক ইত্যাদির আশঙ্কা কমায়।

৫। বিট –

যদিও শীতকাল ছাড়া পাওয়া একটু সমস্যা। তবুও বিট স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ। প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, খনিজ রয়েছে এতে।

৬। হলুদ –

হলুদের তুলনা হয় না। হৃদযন্ত্র বড়ো হয়ে যাওয়া আটকায় হলুদ। উচ্চ রক্তচাপ কমায়, মোটা হয়ে যাওয়া আটকায়। খাদ্যগুণ অসীম।

৭। আপেল –

এতে আছে প্রচুর পরিমাণ মিনারেল, অ্যান্টিওক্সিডেন্ট, ভিটামিন। হৃদরোগের আশঙ্কা কমায়, উচ্চ রক্তচাপ কমায়।

৮। বেগুন –

নাম বেগুন হলেও গুণ অপরিসীম। ফ্ল্যাবোনয়েড, খনিজ, ভিটামিন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে প্রচুর। হৃদরোগের আশঙ্কা কমায়।

৯। ব্রকলি –

রক্তনালির ক্ষমতা বাড়ায়, খারাপ কোলেস্টেরল কমায়। রয়েছে অ্যান্টিইনফ্লেমটারি উপাদান। ব্ল্যাড সুগার সংক্রান্ত সব রকম সমস্যা কমায়।

১০। গাজর –

হৃদযন্ত্র ভালো রাখতে অন্যতম খাদ্য গাজর। প্রচুর খনিজ ও ভিটামিন রয়েছে। ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। হাড় ও হৃদযন্ত্রের ক্ষমতা বাড়ায়।  

পড়ুন – করোনা কালে হৃদযন্ত্রকে শক্তিশালী করতে এই ১০টি খাবার অবশ্যই খান

Continue Reading

খাওয়াদাওয়া

করোনা কালে হৃদযন্ত্রকে শক্তিশালী করতে এই ১০টি খাবার অবশ্যই খান

food

খবরঅনলাইন ডেস্ক : শুধু করোনা প্রতিহত করতে নয়, সার্বিক ভাবেই হৃদযন্ত্রকে শক্তিশালী করা দরকার। তাতে অনেক সমস্যার হাত থেকে রেহাই পাওয়া যায়। আর হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বাড়াতে হলে নিয়ম মেনে জীবনযাপনের পাশাপাশি দরকার কিছু এমন খাবার খাওয়া যা হৃদযন্ত্রকে শক্তিশালী করতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। এমন খাবার আমাদের চারপাশে অনেকই আছে। তার মধ্যে দশটি আজ দেখে নেওয়া যাক –

১। ছোলা বা চানামটর –

দেখতে ছোটো হলেও গুণ অনেক। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার, নানান পুষ্টিগুণ, পটাশিয়াম, ভিটামিন ইত্যাদি। এর খাদ্যগুণে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে, হৃদরোগের আশঙ্কা কমে।

২। কফি –

কফি কম না বেশি কতটা খাওয়া উচিত তা নিয়ে বিতর্ক থাকলেও কফি কিন্তু হৃদযন্ত্রের জন্য খুবই ভালো। উপযুক্ত পরিমাণ কফি সেবন হার্ট অ্যাটাক, হার্ট ফেল, করোনারি ডিজিজ ইত্যাদির আশঙ্কা কমায়।  

৩। ক্র্যানবেরি –

বেরি জাতীয় এই খাবারটি খেতেও সুস্বাদু, গুণেও ভরপুর। এতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও খনিজ। এটি বহু রকমের হৃদরোগ, ইউরিনারি ট্র্যাক ইনফেকশন, দাঁতের সমস্যা, স্টম্যাক আলসার এবং ক্যানসারের আশঙ্কা কমায়।

৪। ডুমুর –

তেমন কদর না দিলেও ডুমুরের উপকারিতা কিন্তু প্রচুর। হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে এর তুলনা নেই। এতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ফাইবার রয়েছে। কার্ডিওভাসকুলার রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষেত্রেও এর তুলনা নেই। 

৫। ফ্লেক্স সিড –

যারা মাছ ও বাদাম খান না তাদের জন্য ফ্লেক্স সিড আদর্শ। এই খাবারগুলির অভাব পূরণ করতে অর্থাৎ ওমেগা থ্রি পেতে হলে ফ্লেক্স সিড। হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্যরক্ষায় এটি উপকারী। এতে আছে প্রচুর ইস্টোজেন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, খনিজগুণ।  

৬। লাল ক্যাপসিকাম –

এটি হৃদযন্ত্রের সুরক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে। এটি খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

৭। আদা –

যাঁরা নিয়মিত আদা খান তাঁদের জন্য সুখবর। আদা কার্ডিওভাসকুলার রোগের আশঙ্কা কমায়। উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে করে, করোনারি হার্ট ডিজিজের আশঙ্কা কমায়।

৮। গ্রিন টি –

শরীর ও হৃদযন্ত্র সতেজ করে। প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ পানীয়। ট্রাইগ্লিসারয়েড, কোলেস্টেরল, এলডিএল কমায়। সুতরাং হৃদযন্ত্রকে স্বাস্থ্যবান করতে গ্রিন টি খুবই ভালো।  

৯। কিডনি বিনস –

অনেকে একে শিম বীজও বলে থাকেন। এতে ম্যাগনেশিয়াম, ফোলেট, প্রোটিন, ফাইবার রয়েছে প্রচুর পরিমাণে। খুব কম পরিমাণ ফ্যাট। সব রকম হৃদরোগ, ক্যানসারের আশঙ্কা কমায়।

১০। কমলা লেবু –

এতে প্রচুর ভিটামিন সি, পটাশিয়াম, খনিজ পদার্থ, ফাইবার রয়েছে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে।

দেখতে পারেন – বাতের ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন? এই ৮টি খাবার খাদ্য তালিকায় অবশ্যই রাখুন

Continue Reading

আহার-বিহার

রেসিপি পাঠিয়ে পুরস্কার জিতুন মিডিয়া ফাইভের ‘মুঠোয় হেঁশেল.কম’-এ

cook

খবরঅনলাইন ডেস্ক : মিডিয়া ফাইভের মুকুটে যুক্ত হল আরও একটি পালক। শুরু হয়ে গেল মিডিয়া ফাইভের চতুর্থ প্রচেষ্টা ‘মুঠোয় হেঁশেল.কম’। রকমারি সুস্বাদু রান্নার এক অসামান্য পোর্টাল এই ‘মুঠোয় হেঁশেল’। পাঠকদের পাঠানো রান্নার রেসিপি প্রকাশ করা হয় এই সাইটে। সঙ্গে রয়েছে সেরা রান্নার রেসিপি প্রেরকের জন্য বিশেষ পুরস্কারও।

আপাতত চটজলদি রান্না, ফিউশন ফুড, রকমারি ব্রেকফাস্ট, মা ঠাকুমার রান্না এই চারটি বিভাগের জন্য রান্নার রেসিপি নেওয়া হচ্ছে। রেসিপি পাঠাতে পারেন ‘মুঠোয় হেঁশেল’-এর ফেসবুক পেজের ইনবক্সে। ফেসবুক পেজটি হল https://www.facebook.com/MuthoyHeshel/। অথবা হোয়াটস অ্যাপ করতে পারেন ৭৮৯০৭৮৫৩০৭ এই নম্বরে।

এ ছাড়াও ‘মুঠোয় হেঁশেল’-এর রয়েছে নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলও। ইউটিউব চ্যানেলের লিঙ্ক হল https://www.youtube.com/channel/UCmno4zAKYBq6mGTIWT63Bbg

প্রতি মাসে সেরা রেসিপি প্রেরকের জন্য রয়েছে বিশেষ পুরস্কার। যে রেসিপিতে সব থেকে বেশি রেটিং থাকবে সেই রেসিপি প্রেরককে দেওয়া হবে পুরস্কার।

আপনারা জানেন, মিডিয়া ফাইভের ‘মুঠোয় হেঁশেল’ ছাড়াও রয়েছে খবরের সাইট ‘খবরঅনলাইন.কম’ । সব রকম খবরের খুঁটিনাটি নজরে আনতে নির্ভরযোগ্য সাইট খবর অনলাইন।

ভ্রমণ সংক্রান্ত সমস্ত খবরাখবরের জন্য রয়েছে ‘ভ্রমণঅনলাইন.কম’। কাছে দূরের ভ্রমণ নিয়ে যাবতীয় তথ্য ও পরামর্শ পেতে এটি একটি বিশ্বাসযোগ্য সাইট।  

স্বাস্থ্য সম্বন্ধীয় সাইট রয়েছে ‘স্বাস্থ্যঅনলাইন.ইন’

Continue Reading
Advertisement

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা6 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

smartphone smartphone
কেনাকাটা1 week ago

লকডাউনের মধ্যে ফোন খারাপ? রইল ৫ হাজারের মধ্যে স্মার্টফোনের হদিশ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ঘরে বসে যতটা কাজ সারা যায় ততটাই ভালো। তাই মোবাইল ফোন খারাপ...

কেনাকাটা1 week ago

১০টি ওয়াশেবল মাস্ক দেখে নিন

খবর অনলাইন ডেস্ক : বাইরে বেরোচ্ছেন। মাস্ক অবশ্যই ব্যবহার করুন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে তিন স্তর বিশিষ্ট মাস্ক...

নজরে