raja mitraরাজা মিত্র:

বাটি-র প্রথম উল্লেখ পাওয়া যায় ইবন বতুতার লেখাতে।

বাপ্পা রাওয়ালের মেওয়ার রাজ্য প্রতিষ্ঠার সময় থেকে এটি ছিল তার সৈন্যদলের যুদ্ধকালীন খাবার। যে কোনও দুর্গ দখল করতে হলে সবার আগে তার সরবরাহ ব্যবস্থা অর্থাৎ সাপ্লাই লাইন বন্ধ করতে হয়। কিন্তু বাটি’র দৌলতে এই সত্যটি বহু সময়েই খাটত না। কারণ বাটি অনেকদিন অবধি ঘোল বা ঘি-তে ডুবিয়ে রাখা যায়।

এরও বহু পরে লিট্টি’র আবির্ভাব। বাটি আর লিট্টি’র কিছু প্রভেদ আছে।

বাটি/লিট্টি চোখা রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ, বিহার এবং নেপালের নিত্য দিনের খাবার।

কী কী লাগবে

বাটি-র জন্য

১. আটা – ৫০০ গ্রাম

২. খাওয়ার সোডা – ২ ছোটো চামচ

৩. দই – ১ কাপ

৪. জোয়ান – ১ চিমটে

৫. ঘি – ১ বড় চামচ/১টি ছোটো বাটিতে গলানো ঘি

bati-1চোখা-র জন্য

১. আলু – ৫০০ গ্রাম

২. পেঁয়াজ – ২-৩টি

৩. আদা-রসুন – এক কাপের চার ভাগের ১ ভাগ, কুচো করে নেওয়া

৪. কাঁচা লঙ্কা – ৪-৫টি

৫. ধনেপাতা – ১ আঁটি, কুচো করে কাটা

৬. বেগুন – ১টি, ছোটো

৭. টমেটো – ২টি

৮. শুকনো লঙ্কা – ৪-৫টি

৯. গোটা ধনে- ২ ছোটো চামচ

১০. নুন – স্বাদমতো

১১. লেবু – ২-৩টি

পুরের জন্য

১. আদা/রসুন- আধ ইঞ্চি আদা, ৪-৫ কোয়া রসুন, কুচো করে নেওয়া

২. কাঁচা লঙ্কা – ১-২টি, কুচো করে নেওয়া

৩. ছাতু – আধ কাপ

৪. নুন – স্বাদমতো

৫. সরষের তেল- ২ বড়ো চামচ

৬. কালোজিরে – ছোটো চামচের অর্ধেক

৭. জিরে – ১ ছোটো চামচ

bati2কী ভাবে করবেন

১. আটা, সোডা, জোয়ান, ঘি এবং দই মিশিয়ে নিন। অল্প জল দিয়ে নরম করে মেখে নিন।

২. কড়াইতে অল্প সরষের তেল দিয়ে কালো জিরে আর জিরে ফোড়ন দিন।

৩. পেঁয়াজকুচো, আদা/রসুনকুচো আর লঙ্কাকুচো দিয়ে দিন।

৪. অল্প ভেজে চুলা বন্ধ করে দিন।

৫. ছাতু মিশিয়ে নিন। বেশ ঝুরঝুরে পুর হবে।

৬. চোখার জন্য বেগুন, টমেটো আর পেঁয়াজ চুলাতে ঝলসে নিন। ঠান্ডা হলে খোসা ছাড়িয়ে নিন।

৭. বেগুন, টমেটো, পেঁয়াজ, ধনেপাতা, কাঁচালঙ্কা থকথকে করে পিষে নিন। অনেকটা ‘সালসা’র মতো হবে।

৮. আলু এবং নুন মিশিয়ে নিন।

৯. শুকনো খোলাতে শুকনো লঙ্কা এবং গোটা ধনে ভেজে নিন। গুঁড়ো করুন।

১০. চোখার সঙ্গে মিশিয়ে নিন। লেবুর রস দিন। চখা তৈরি।

১১. আটার লেচি করুন। লেচিতে পুর ভরে গোল বলের মতো করুন। ব্যাসের মাপ প্রায় দেড় ইঞ্চির মতো হবে।

১২. ওভেনে ৩০ মিনিট ১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে বেক করুন অথবা কাঠকয়লা বা ঘুঁটেতে পুড়িয়ে নিতে পারেন।

১৩. গলানো ঘি-তে ডুবিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

ছবি: লেখক

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন