রাখিতে নিজের হাতে বানানো আমের সন্দেশ খাইয়ে তাক লাগিয়ে দিন

0
mangosweets
প্রতীকী ছবি
ila-das
ইলা দাস

খুশির মুহূর্ত মানেই মিষ্টি মুখ। সেই মিষ্টি মুখের জন্য দোকানে রকমারি সন্দেশের  তো অভাব নেই। কিন্তু বিশেষ দিনে নিজে হাতে বিশেষ কিছু রান্না করে খাওয়ানোর আনন্দই আলাদা। তার ওপর তা যদি হয় খোদ সন্দেশ, তা হলে ব্যাপারটা পুরো জমে ক্ষীর। রাখি উপলক্ষ্যে বানিয়ে ফেলা যেতে পারে আমের সন্দেশ। খুব অল্প উপকরণে সহজ একটি প্রণালী। ফলে একটু অন্য রকম নতুন ধরনের কিছু রান্না করার জন্য এই আইডিয়াটা মন্দ নয়। আসুন দেখে নেওয়া যাক আমের সন্দেশ বানাতে কী কী লাগে?

উপকরণ –

খোয়া খির – ৫০ গ্রাম,

ছানা ৫০ গ্রাম,

চিনি – ২৫ গ্রাম,

আমসত্ত্ব – কুচি করে কাটা,

কাজু পেস্তা কুচি সামান্য,

সামান্য কেশর।

প্রণালী –

প্রথমেই যেটা করতে জবে তা হল ছানা থেকে জলটা ঝরিয়ে নিতে হবে। এ বার চিনিটা ছানার সঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। চিনি ছানা মিশে গেলে কড়াই উনুনে চাপিয়ে গরম করতে হবে। কড়াই গরম হয়ে গেলে তাতে ছানা চিনির মিশ্রণটি দিয়ে ভালো করে নাড়তে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন ধরে না যায়।

হালকা লালচে ভাব দেখা দিলেই বুঝতে হবে হয়ে গিয়েছে। এ বার নামিয়ে নিয়ে ঠান্ডা করতে হবে। এর পর ক্ষীর দেওয়ার পালা। আগে ক্ষীর ভালো করে গুঁড়িয়ে নিতে হবে। তার পর মিশ্রণটি ঠান্ডা হয়ে গেলে তাতে সুন্দর ভাবে মিশিয়ে নিতে হবে।

এ বার এই মণ্ডটিকে দুই ভাগ করতে হবে। এক ভাগের মধ্যে কেশর মিশিয়ে নিতে হবে ভালো করে। এই বার একটি থালায় সামান্য ঘি মাখিয়ে কেশর দেওয়া অংশটি ছড়িয়ে দিতে হবে। এ বার এই ওপর আমসত্ত্ব কুচিগুলি ছড়িয়ে দিতে হবে সমান ভাবে। চাইলে পিস করে কেটেও আমসত্ত্ব দেওয়া যেতে পারে।

এ বার তার ওপর আর একটি ভাগের মণ্ড সমান ভাবে ছড়িয়ে দিতে হবে। সব জায়গাটা সমান হলে হাতে করে ভালো ভাবে চেপে দিতে হবে। এর পর সন্দেশ তৈরি। খালি সুন্দর ভাবে টুকরো করে কেটে নেওয়ার পালা। ধারালো ছুরি দিয়ে চৌকো ভাবে কেটে নিতে হবে। এবার প্রতি টুকরোর ওপর কাবু আর পেস্তা কুচি ছড়িয়ে সাজাতে হবে। ব্যাস, আমের সন্দেশ তৈরি।

সুন্দর ভাবে থালায় সাজিয়ে পরিবেশন করুন। রাখি পরানো হয়ে গেলে নিজে হাতে আমের সন্দেশ খাইয়ে মুখ মিষ্টি করান আর সবাইকে তাক লাগিয়ে দিন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here