debopriya_picদেবপ্রিয়া মুখার্জি

দুর্গাপুজো বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব। এই উৎসবকে ঘিরে মানুষের উন্মাদনা থাকে চরমে। পুজোর প্রায় দেড় থেকে দুমাস আগে থেকেই শুরু হয়ে যায় পুজোর প্ল্যানিং। কবে কেমন সাজগোজ হবে, কবে কোন্‌ দিকের ঠাকুর দেখতে যাওয়া হবে – এসব কিছুই থাকে প্রি-প্ল্যানড। এইসময় আর একটা জিনিসও মাস্ট। সেটা হল বাইরে খাওয়া-দাওয়া। পুজোর চারটে দিন বাড়িতে নো রান্নাবান্না। পুজোর সময় পেটপুজোর প্ল্যানিং-এ আপনাদের হেল্প করতেই এসে গেছি আমরা।

যেহেতু এই চারটে দিন দুবেলাই বাইরে খাওয়ার পরিকল্পনা, তাই পকেটের চিন্তাটা মাথায় রেখেই পুরো প্ল্যানিংটা করতে হবে। ষষ্ঠীর দিন সকালে ঠাকুর দেখে চলে যেতে পারেন বড়বাজারের ‘গিরনার রেস্টুরেন্ট’-এনর্থ ইন্ডিয়ান, সাউথ ইন্ডিয়ান, চাইনিজ এবং ইতালিয়ান খাবার পাবেন এখানে। ষষ্ঠীর লাঞ্চটা সর্বদা হালকা করাই ভালো। সাউথ ইন্ডিয়ান খাবার আপনার পছন্দের তালিকায় থাকলে অর্ডার করতেই পারেন ইডলি, ধোসা অথবা উত্থাপম। চিজ ভেজিটেবিল উত্তাপম, চিজ মশলা দোসা, চিজ পেপার দোসা, ধনিয়া দোসার মতো স্পেশাল প্রিপারেশন এখানে পাবেন। এছাড়াও ট্রাই করতে পারেন ইটালিয়ান ক্যুইজিন। পিৎজা, পাস্তা, স্যালাডের নানান রেসিপি রয়েছে গিরনারে। এখানে খরচও খুব বেশি নয়। দুজনের জন্য খরচ ৪০০ টাকা। ষষ্ঠীর সকালে আপনাদের পেট এবং মন ভরাতেই পারে গিরনার।

girnar

লাঞ্চে যেহেতু হালকা খাওয়া হয়েছে, সেহেতু ডিনারে নিজের পেটকে একটু বেশি প্যাম্পার করা যেতেই পারে। ষষ্ঠীর রাতে যাওয়া যেতে পারে হাতিবাগানের ‘বারবিকিউ ওয়ার্ল্ড’-এনর্থ ইন্ডিয়ান, মোগলাই এবং কাবাবের জিভে জল আনা একাধিক রেসিপি নিয়ে আপনাদের জন্য হাজির বারবিকিউ ওয়ার্ল্ড। এখানে শুধুমাত্র ব্যুফে অ্যাভেলেবল। খরচ দুজনের জন্য প্রায় ১৩০০ টাকা। তাই ১৩০০ টাকায় আনলিমিটেড খাবারের মজা নিতে চলে যান ‘বারবিকিউ ওয়ার্ল্ড’-এনর্থ ইন্ডিয়ান, মোগলাই এবং কাবাব ছাড়াও এখানে ডেসার্টে পাবেন নানা ধরনের পেস্ট্রি, গোলাপজাম, আইসক্রিম এবং পায়েস। তাই অন্য কিছু না ভেবে ষষ্ঠীর ডিনারের প্ল্যানটা বারবিকিউ ওয়ার্ল্ডেই করুন।

barbeque

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন