ওয়েবডেস্ক: এখন বেশিরভাগ মানুষই একটু মোটা হয়ে গেলেই আতঙ্কে ভোগেন। আর মেয়েদের ক্ষেত্রে সন্তান হওয়ার পর ওজন বেড়ে দ্বিগুণ হয়ে যায়। কিন্তু কে-ই বা চায় নিজের ওজন বেড়ে যাক।

অথচ এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আমরা কত কিছুই না করি।

সকালে দৌড়ানো থেকে শুরু করে ডাক্তারের কাছে যাওয়া। এ ছাড়া নিয়ম করে প্রতিদিন জিমে যাওয়া। এত পরিশ্রমের পরেও অনেক সময় তেমন কাজ হয় না।

চলুন জেনে নেওয়া যাক ঘরোয়া পদ্ধতিতে ওজন কমানোর উপায়-

১। গ্রিন টি

সকালে ঘুম থেকে উঠে সাধারণ চা খাওয়ার পরিবর্তে গ্রিন টি খান। কারণ, জানি গ্রিন টি নিলে ওজন কমে তা বহু প্রচলিত একটি উপায়।

প্রতিদিন যদি ৩-৪ কাপ গ্রিন টি খাওয়া যায় তা হলে ওজন দেখবেন ১ মাসের মধ্যে তো কমবেই। এ বার অনেকের পক্ষেই সম্ভব হয় না ৩-৪ বার গ্রিন টি খাওয়ার। তাঁরা অন্তত দিনে ২ বার খাওয়ার চেষ্টা করুন। গ্রিন টি যখন খাবেন তখন একটু আদা মিশিয়ে নিন। যদি মনে করেন, গ্রিন টি-তে একটু মিষ্টি দিয়ে খাবেন। তা হলে চিনির বদলে হাফ চামচ মধু মিশিয়ে খান।

২। রসুন

রসুন রোগা হতে সাহায্য করে এই কথাটা আমরা হয়তো অনেকেই জানি না। আবার অনেকে হয়তো পছন্দ করেন না রসুন খেতে। কিন্তু ওজন কমাতে গেলে অনেক সময় অনেক কিছু অপছন্দের কাজও আমাদের করতে হয়। ধরেই নিন না এটা তার মধ্যে একটা।

প্রতিদিন সকালে খালি পেটে দুই কোয়া রসুন খান। ৫ মিনিট পরে হালকা উষ্ণ জলে ২ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে খান। খেয়ে দেখুন আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন।

আরও পড়ুন: মদ্যপানের ফলে আপনার শরীরেও এই সব জটিল রোগ বাসা বাঁধছে না তো! 

৩। মিষ্টি

যদি মনে করেন রোগা হওয়া খুব জরুরি তা হলে তো মিষ্টি খাওয়া একেবারে বর্জন করতে হবে। শুধু চিনি খাওয়া নয়, মিষ্টি জাতীয় যে কোনো খাবার খাওয়া বন্ধ করতে হবে। এ ছাড়া ঠান্ডা পানীয় খাওয়াও বন্ধ করতে হবে।

কারণ এগুলি খেলে ওজন বেড়ে যাওয়াটাই স্বাভাবিক। মিষ্টি খেতে হলে চিনির জায়গায় মধু ব্যবহার করতে পারেন।

৪। নিয়ম করে হাঁটুন

অনেকেই সকালে হাঁটার সময় পান না। আবার অনেকের সারাদিনে কাজের চাপে ভোর বেলা ঘুম থেকে উঠতে পারেন না। বিশেষ করে তাঁদের জন্য সকালে উঠে হাঁটতে বেরোনো খুবই কষ্টের।

কিন্তু তা বললে কী করে হবে। ওজন তো কমাতেই হবে।

রাতে তাড়াতাড়ি খেয়ে নিয়ে অন্তত ১ ঘণ্টা হাঁটুন। খাবার পর হাঁটলে হজম ভালো হয়। আর শরীরের অতিরিক্ত ক্যালোরিও নষ্ট হয়ে যায়।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here