world breastfeeding day 2018

ওয়েবডেস্ক: প্রতি বছরই ১-৭ আগস্ট পালন করা হয় বিশ্ব স্তন্যপান সপ্তাহ বা বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ। সারা বিশ্বের প্রায় ১২০টির বেশি দেশ এই কর্মসূচি পালন করে। শিশুকে স্তন্যপান করাতে মায়েদের আগ্রহী করে তুলতেই এই কর্মসূচির প্রচার। তবে এর বাইরেও শিশুকে স্তন্যপান করানোর আগ্রহ সৃষ্টিতে একাধিক সেলেব্রিটি প্রকাশ্য প্রচারে অংশ নিয়ে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছেন। ফিরে দেখা আলোড়ন সৃষ্টি করা তেমনই পাঁচ ঘটনা।

গিলু জোসেফ

গত মার্চ মাসে ‘গৃহলক্ষ্মী’ ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে উঠে এসেছিল গিলুর ছবি। দেশজোড়া বিতর্ক সৃষ্টি হয় এই মালয়ালম অভিনেত্রীর পদক্ষেপকে ঘিরে।

নিজেকে অতিসচেতন হিসাবে প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে এক ব্যক্তি কেরল হাইকোর্টে এই ছবিকে ‘নৈতিকভাবে অপ্রীতিকর’ আখ্যা দিয়ে আবেদন জানান। তবে আদালত সেই আবেদন খারিজ করে দেয়।

ক্রিস্চিয়ানো সেরাটস

‘দ্য ওয়াকিং ডেড’ ছবির নায়িকা নিজের শিশুকন্যাকে স্তন্যপান করানোর ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন। রে রে করে ওঠে একাংশ। কী হচ্ছে এ সব?

তাঁদের মোক্ষম জবাব দেন সেরাটস। তিনি লেখেন, “এটা আমার ইনস্টাগ্রাম পেজ, আর শরীরটাও আমার। ফলে আমি কী পোস্ট করব, সেটা নিতান্ত ভাবে আমার ব্যাপার। যদি কেউ অসম্মত হন, তা হলে আমার বাঁ দিকের ‘টিট’টা চুষতে পারে”। ছবি দেখলেই বিষয়টা স্পষ্ট হয়ে যায়।

সারা স্টেজ

বিখ্যাত ফিটনেস গাইড সারা নিজের ইনস্টাগ্রাম পেজে শিশুকে স্তন্যপান করানোর ছবি পোস্ট করেন। আর তাতেই ক্ষেপে লাল হয় তথাকথিত রক্ষণশীলদের একাংশ। সারা তাদের উদ্দেশে লেখেন, “যাঁরা আমার এই ছবি দেখে অস্বস্তি বোধ করছেন, তাঁরা নিজের মাথায় একটা কম্বল চাপা দিয়ে দিন”।

এখানেই থেমে না থেকে তিনি ফের একটা ছবি পোস্ট করেন।

তখন লেখেন, “পছন্দ না হলে আমাকে আনফলো করুন”।

ইকুইনিক্স

ইকুইনিক্স জিম অ্যান্ড ফিটনেস সেন্টার তাদের বিজ্ঞাপনে ব্যবহার করেছিল এই ছবি। অনামী মডেলকে দিয়ে করানো ওই ছবিতে দুই স্তনে দুই শিশুকে দুগ্ধপান করানোর ছবি নিয়ে বিশ্বজোড়া হইচই পড়ে যায়।

ওই ছবিতে দেখানো হয়েছিল, কী ভাবে ভালোবাসাকে সমান ভাগে ভাগ করে দেওয়া যায়। ওই বিজ্ঞাপনী ছবিকে কুরুচিকর এবং বিকৃত মানসিকতার ফসল হিসাবে আখ্যা দেয় কেউ কেউ। ফেসবুকে পোস্ট করা হয়েছিল ওই ব্যতিক্রমী ছবি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন