Connect with us

শরীরস্বাস্থ্য

গর্ভাবস্থায় এই ৭টি কাজ ভুল করেও করবেন না

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: গর্ভাবস্থা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সময়। এ সময় সুস্থ থাকাটাই একমাত্র লক্ষ্য। তাই মানতে হয় অনেক বিধিনিষেধ। বাদ দিতে হয় নিজের অনেক পছন্দ ও ভালো লাগাও। কারণ অনেক ক্ষেত্রে অজান্তেই ভুল কাজটি করে ফেলে অনেকে। তাই নিয়মের নড়চড় না করে মেনে চলাই ভালো।  

দেখে নেওয়া যাক কী কী বারণ –

Loading videos...

১। কাঁচা বা আধ কাঁচা খাবার

অভিজ্ঞরা বলেন, গর্ভবতী নারীদের কাঁচা খাবার খাওয়া উচিত নয়। এমনকি আধাসিদ্ধ ডিম মাংস বা মাছও খাবেন না। স্মোকড সি ফুড বা আনপাস্তুরাইজড দুগ্ধজাত দ্রব্যও খাওয়া উচিত নয়।

২। কফি খাওয়ার ইচ্ছা

বলা হয়, ক্যাফিন জাতীয় খাবার গর্ভবতী নারীদের মোটেও খাওয়া উচিত নয়। তাই গর্ভাবস্থায় কফিও খেতে বারণ করা হয়। এই জাতীয় খাবারে রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে। শরীরে জলের ঘাটতি হতে পারে। কফি ছাড়াও চা, চকোলেট, সোডাতেও কিন্তু ক্যাফিন থাকে। তাই এগুলি এড়িয়ে চলুন।

৩। নিজে ডাক্তারি

বিশেষজ্ঞদের আরও একটি পরামর্শ, ডাক্তার না দেখিয়ে কোনো ভাবেই ওষুধের দোকান থেকে বলে ওষুধ খাওয়া চলবে না। তা সে যত সামান্য কারণই হোক না কেন। সর্দি, কাশি, মাথাব্যথায় কিছুতেই নয়। কারণ এতে গর্ভস্থ সন্তানের ক্ষতি হতে পারে।

৪। একটানা দাঁড়িয়ে বা বসে থাকা

খুব বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে বা বসে থাকা গর্ভবতী নারীদের উচিত নয়। এতে পায়ের পাতা ফুলে যেতে পারে। অনেকক্ষণ পা ঝুলিয়ে বসে কাজ করতে বাধ্য হলে মাঝে মাঝে বিরতি দিন। দু’টো পা টুলের ওপরে তুলে রাখুন। পা ছড়িয়ে আরাম করুন।

৫। হটটাব বা সূর্যস্নান

অনেকেই হটটাবে স্নান করতে ভালোবাসেন, কারণ এতে মানসিক ও শারীরিক চাপ কষ্ট দূর হয়। কিন্তু গর্ভাবস্থায় এটি মোটেও উচিত নয়। সূর্যস্নানও করা উচিত হবে না। কারণ বিশেষজ্ঞরা বলেন, শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে গেলে গর্ভস্থ সন্তানের শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৬। মদ্য বা ধূমপান

গর্ভাবস্থায় ড্রাগ, অ্যালকোহল ও সিগারেট থেকে দূরে থাকা উচিত। তাতে গর্ভস্থ শিশু সুস্থ স্বাভাবিক ভাবে বেড়ে উঠতে পারে।

৭। লোকের কথায় কান

সব শেষে বলা ভালো, অনেকে অনেক কথাই এই সময় অনেক ক্ষেত্রে বলে থাকেন, কিন্তু কোনো কিছুতে ভয় পেয়ে গুমরে থাকবেন না। বরং যে কোনো সমস্যায় বিশেষজ্ঞ বা চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করুন।

আরও – শিশু-মহিলাদের সমস্যায় কালোজিরের ৫টি মোক্ষম প্রয়োগ

শরীরস্বাস্থ্য

Covid Infection: ছোঁয়াচে রোগে পুরুষদের বেশি সংক্রমিত হওয়ার কারণ কি টেস্টোস্টেরোন?

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনা অতিমারিতে হিসাব নিলে দেখা যাচ্ছে, এই রোগে মহিলাদের তুলনায় পুরুষরা অনেক বেশি সংক্রমিত হচ্ছে। কিন্তু কেন? এই প্রশ্নটাই ভাবাচ্ছে গবেষকদের।

এ ব্যাপারে নানা মুনির নানা মত। একটা তত্ত্ব হল, শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ওপর পুরুষদের যৌন হরমোন টেস্টোস্টেরোনের একটা নেতিবাচক প্রভাব কাজ করে। এই হরমোনের প্রভাবে পুরুষরা রোগ প্রতিরোধ করার ব্যাপারে কেমন একটা নিরুৎসাহ বোধ করে। ফলে নভেল করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে পুরুষরা বেশি সংবেদনশীল। কিন্তু প্রশ্ন হল এই তত্ত্ব কতটা সঠিক?

Loading videos...

বৈজ্ঞানিক প্রমাণাদির তত্ত্বতালাশ করলে দেখা যায়, মহিলাদের মূল যৌন হরমোন ওয়েস্ট্রোজেন শরীরের রোগ প্রতিরোধব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে এবং ওই ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। ও দিকে টেস্টোস্টেরোন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয় অথবা তাকে নিস্ক্রিয় করে ফেলে।

এই জন্যই পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের মারাত্মক ধরনের সংক্রমণ অনেক কম হয় এবং টিকাকরণ হলে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা আরও ভালো ভাবে সাড়া দেয়। আসলে টিকা মানে তো সেই ভাইরাসেরই একটা কম ক্ষমতাশালী সংস্করণ। যে সব পুরুষদের শরীরে বেশি মাত্রায় টেস্টোস্টেরোন নিঃসরণ হয়, তাদের রোগ প্রতিরোধব্যবস্থা দুর্বল হয়ে যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে দেখা যায়, ফ্লুয়ের বার্ষিক টিকাকরণের পরেও এদের অ্যান্টিবডি সাড়া কম মেলে।

তা হলে কি টেস্টোস্টেরোনের উপস্থিতির জন্য পুরুষরা ভাইরাস ও ব্যাক্টেরিয়া সংক্রমণের ক্ষেত্রে অনেক বেশি সংবেদনশীল? বৈজ্ঞানিক প্রমাণাদির আরও গভীর ভাবে বিশ্লেষণ করলে এত সহজে এই সিদ্ধান্তে আসা যায় না।

টেস্টোস্টেরোনের এই নেতিবাচক প্রভাব নিয়ে যে সব গবেষণা হয়েছে, তার বেশির ভাগই হয়েছে রোগ প্রতিরোধের একটিমাত্র ব্যবস্থা নিয়ে। কিন্তু মানুষের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা নানা ধরনের সেল, অরগ্যান, টিস্যু নিয়ে একটা জটিল ব্যবস্থা। একে দুটি ভাগে ভাগ করা যায় – ইনেট ইমিউনিটি অর্থাৎ সহজাত প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং অ্যাডাপ্টিভ ইমিউনিটি অর্থাৎ অভিযোজিত প্রতিরোধ ক্ষমতা।

সহজাত প্রতিরোধ ক্ষমতা মানে সামনের সারির প্রতিরোধব্যবস্থা। বাইরে থেকে কেউ আক্রমণ করলে সঙ্গে সঙ্গে সাড়া দেয় এবং লড়াই চালিয়ে সংক্রমণের প্রভাব কমাতে যতক্ষণ না শরীরের অ্যাডাপ্টিভ ইমিউনিটি তৈরি হয়।

শরীরের অ্যাডাপ্টিভ ইমিউনিটি সিস্টেম কাজ করতে সময় নেয়। বিদেশি শত্রুকে চিনতে তার কখনও কখনও কয়েক দিনও সময় লাগতে পারে। তার পর লড়াই করে সুনির্দিষ্ট অ্যান্টিবডি তৈরি করে। বিপদ চলে গেলে অ্যাডাপ্টিভ ইমিউনিটি সিস্টেম এই ঘটনা ‘মনে রেখে দেয়’। ওই একই ভাইরাস পরে আবার আক্রমণ করলে তখন অত্যন্ত দ্রুত, অনেক বেশি ক্ষমতা নিয়ে কার্যকর ভাবে তার মোকাবিলা করে।

পুরুষ মানুষ অসুস্থ হলে বা সংক্রমণের কবলে পড়লে তার টেস্টোস্টেরোনের মাত্রা কমে যায়। শরীরের এনার্জি তখন টেস্টোস্টেরোন নিঃসরণের কাজ না করে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতাকে জোরদার করতে ব্যয়িত হয়। তা ছাড়া শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার নানা রকম অঙ্গ আছে। যখন একটা অঙ্গ খুব জোরদার ভাবে কাজ করে তখন অন্য অঙ্গ নিস্ক্রিয় থাকতে পারে। আর টেস্টোস্টেরোন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার সমস্ত অঙ্গের ক্ষমতা কমিয়ে দেয় তা নয়।     

এর ওপর একটা বড়ো ফ্যাক্টর আছে। তা হল বয়স এবং অন্য কোনো রোগের প্রভাব। একটা সংক্রমণ কতটা মারাত্মক হবে, তা নির্ভর করছে যিনি সংক্রমিত হয়েছেন তাঁর বয়স এবং তাঁর কোনো রোগ আছে কিনা তার ওপর।

সব কিছু মিলিয়ে বলা যায়, করোনাভাইরাসে পুরুষদের বেশি সংক্রমিত হওয়ার কারণ যে শুধু টেস্টোস্টেরোন হরমোন তা নয়।           

Continue Reading

শরীরস্বাস্থ্য

সাবধান! বেশিক্ষণ ইয়ারফোন ব্যবহার করলে এই সব মারাত্মক সমস্যা হতে পারে

আপনিও যত্নবান সচেতন হন। কথায় কথায় ইয়ারফোন ব্যবহার বন্ধ করুন!

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: মোবাইলে কারও সঙ্গে কথা বলা অথবা গান শোনা, ভিডিও দেখার সময় ইয়ারফোন ব্যবহার করা সাধারণ একটা বিষয়। তবে চারপাশে এমন কিছু মানুষকেও দেখা যায়, যাঁরা সারাক্ষণ কানে ইয়ারফোন গুঁজে রাখেন। এ ধরনের অভ্যেস কিন্তু বধিরতা পর্যন্ত ডেকে আনতে পারে।

সত্যিই তাই, ইয়ারফোন ব্যবহার করলে মারাত্মক সমস্যা হতে পারে। কারণ ইয়ারফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার আপনার কানের ক্ষতি করতে পারে। আসুন অতিরিক্ত ইয়ারফোন ব্যবহারের অসুবিধাগুলি জেনে নিই-

Loading videos...

বধিরতা সমস্যা

ঘন ঘন বা এক টানা ইয়ারফোন ব্যবহার শ্রবণ ক্ষমতা ৪০ থেকে ৫০ ডেসিবেল হ্রাস করে। কানের পরদায় কম্পন শুরু করে। দূরবর্তী শব্দ শুনতে সমস্যা তৈরি করে। এমনকি এটা বধিরতার কারণ হতে পারে।

সমস্ত ইয়ারফোন উচ্চ ডেসিবেল তরঙ্গ তৈরি করে। যা ব্যবহার করে আপনি চিরকালের জন্য শোনার ক্ষমতা হারাতে পারেন।

সংক্রমণের সম্ভাবনা

দীর্ঘ সময় ধরে গান শুনে কানে সংক্রমণও হতে পারে। অন্য কারও সঙ্গে ইয়ারফোন ভাগ করে নেওয়ার পরে স্যানিটাইজারের সাহায্যে পরিষ্কার করতে ভুলবেন না।

মানসিক সমস্যা

উচ্চস্বরে আওয়াজ শোনার ফলে মানসিক সমস্যা, হৃদরোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একই কারণে ক্যানসারের ঝুঁকিও বাড়ে।

মস্তিষ্কের উপর প্রভাব

দীর্ঘকাল ইয়ারফোন দিয়ে গান শোনার ফলে মস্তিষ্কেও খারাপ প্রভাব পড়ে। এই গুরুতর সমস্যাগুলি এড়াতে কথায় কথায় ইয়ারফোন ব্যবহার বন্ধ করুন।

আরও পড়তে পারেন: মাড়ির ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন? ব্যথা কমাতে ৫টি পরামর্শ

Continue Reading

শরীরস্বাস্থ্য

মাড়ির ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন? ব্যথা কমাতে ৫টি পরামর্শ

Published

on

মাড়ির ব্যাথা

খবরঅনলাইন ডেস্ক: মাঝেমধ্যেই দাঁতের মাড়ির ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন, তার ওপর শীতকাল বলে শিরশিরানি ভাবও বেশ সমস্যায় ফেলছে। এই সমস্যা অনেক কারণেই হতে পারে। তবে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য রয়েছে বেশ কয়েকটি ঘরোয়া উপায়। এই উপায়গুলি অবলম্বন করলে স্বস্তি পেতে পারেন।

১। নুন জলে স্বস্তি

দাঁতের ক্ষেত্রে নুনের উপকারিতা অসীম। দাঁতের সমস্যায় খুবই সহজ একটি পদ্ধতি হল নুনজলে কুলকুচি করা। এক গ্লাস হালকা গরম জলে ১/৩ চা চামচ নুন ফেলে দিনের মধ্যে ৩ থেকে ৪ বার কুলকুচি করলে উপকার হবেই। এতে মুখে মধ্যে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা হ্রাস হয়। ফলে ব্যথা কমে। ফোলা ভাব হলে তা-ও কমে।

Loading videos...

২। লেবুর রসে কমবে ব্যথা

লেবুতে ঔষধি গুণ প্রচুর। তারই মধ্যে একটি হল দাঁতের সমস্যায় এর উপকারিতা। এতে আছে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল যৌগ। এই যৌগ সংক্রমণকারী জীবাণু মেরে ফেলে। মাড়িকে স্বস্তি দেয়, মুখের পিএইচ ভারসাম্যও বজায় রাখে। এক গ্লাস গরম জলে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে দিনে দু’ বার করে কুলকুচি করুন ব্যথা না কমা পর্যন্ত।

 ৩। গ্রিন টির প্রভাব

কমবেশি অনেকেই জানেন, গ্রিন টিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের কাজ হল প্রদাহ কমানো, ব্যাকটিরিয়া প্রতিরোধ করা। এই কাজটি মাড়ির ক্ষেত্রেও করে। ফলে গ্রিন টিতে দাঁতের ব্যথা কমানো যায়। ব্যথায় গরম গরম গ্রিনটি পান করে দেখতে পারেন।

৪। হলুদ দিয়ে ব্যথা দূর

দাঁতের ব্যথা হলে হলুদ ব্যবহার করুন। ১/৪ চা চামচ হলুদবাটা বা হলুদগুঁড়ো নিন। মাড়িতে যেখানে ব্যথা সেখানে মোটা করে প্রলেপ লাগিয়ে ৫ মিনিট রাখুন। এর পর গরম জলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ব্যথা না কমা পর্যন্ত প্রতি দিন হলুদ পেস্ট ব্যবহার করুন। হলুদ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান সমৃদ্ধ। মাড়ির ব্যথা, ফোলা এবং প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে।

৫। গরম ও ঠান্ডা সেঁক

মাড়ির ব্যথায় আর একটি সহজ ঘরোয়া ও উপকারী উপায় হল ঠান্ডা গরম সেঁক। খুবই আরামদায়ক একটি উপায়। মাড়ির ফোলা বা ব্যথা অংশে পরিষ্কার গরম কাপড় ও বরফ পুঁটলি দিয়ে সেঁক দিন। এক বার ঠান্ডা এক বার গরম এই ভাবে ৪ বার করুন। দিনে ২ বার  করতে পারলে ভালো। ব্যথা না কমা পর্যন্ত করে পদ্ধতিটি করতে পারলে ভালো।  

এই সমস্ত ঘরোয়া পদ্ধতি অনুসরণ করা ছাড়াও চিকিৎসকের পরামর্শ অবশ্যই নিন।

আরও – জেনে নিন, নাক-কান-দাঁতের সমস্যায় কী ভাবে কাজ করে জোয়ান?

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
Remdesivir
দেশ2 hours ago

মধ্যপ্রদেশের সরকারি হাসপাতাল থেকে চুরি গেল কোভিডরোগীর চিকিৎসায় ব্যবহৃত রেমডেসিভির

Covid situation kolkata
রাজ্য2 hours ago

Bengal Corona Update: হুহু করে বাড়ছে সংক্রমণ, তার মধ্যেও সামান্য কমল সংক্রমণের হার

দঃ ২৪ পরগনা3 hours ago

গুজরাত রেল পুলিশ ক্যানিং থেকে উদ্ধার করল ৮ কেজি চোরাই সোনার গয়না

রাজ্য3 hours ago

Bengal Polls 2021: ভোটের শেষ লগ্নে অসুস্থ মদন মিত্র

দেশ5 hours ago

করোনায় নাভিশ্বাস দশা রাজ্যের, ‘বাংলায় ব্যস্ত’ প্রধানমন্ত্রীকে ফোনে পেলেন না মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে

বাংলাদেশ5 hours ago

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তির বিদায়, বনানী কবরস্থানে সমাহিত কবরী

রাজ্য5 hours ago

‘ফোন ট্যাপ করা হচ্ছে, সিআইডি তদন্তের নির্দেশ’ দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Randeep Guleria
দেশ6 hours ago

কেন লাগামহীন করোনা? মূলত ২টি কারণকেই দায়ী করলেন এইমস ডিরেক্টর

রাজ্য10 hours ago

Bengal Polls Live: পৌনে ৬টা পর্যন্ত ভোট পড়ল ৭৮.৩৬ শতাংশ

পয়লা বৈশাখ
কলকাতা2 days ago

মাস্ক থাকলেও কালীঘাট-দক্ষিণেশ্বরে শারীরিক দুরত্ব চুলোয়, গা ঘেষাঘেঁষি করে হল ভক্ত সমাগম

রাজ্য3 days ago

স্বাগত ১৪২৮, জীর্ণ, পুরাতন সব ভেসে যাক, শুভ হোক নববর্ষ

ক্রিকেট3 days ago

IPL 2021: আরসিবির হয়ে জ্বলে উঠলেন বাংলার শাহবাজ, তীরে এসে তরী ডোবাল হায়দরাবাদ

কোচবিহার3 days ago

Bengal Polls 2021: শীতলকুচির গুলিচালনার ভিডিও প্রকাশ্যে, সত্য সামনে এল, দাবি তৃণমূলের

গাড়ি ও বাইক2 days ago

Bajaj Chetak electric scooter: শুরু হওয়ার ৪৮ ঘণ্টা পরেই বুকিং বন্ধ! কেন?

রাজ্য3 days ago

Bengal Polls 2021: ভয়াবহ কোভিড সংক্রমণের মধ্যে কী ভাবে ভোট, শুক্রবার জরুরি সর্বদল বৈঠক ডাকল কমিশন

শিক্ষা ও কেরিয়ার23 hours ago

ICSE And ISC Exams: দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা পিছিয়ে দিল আইসিএসই বোর্ড

ভোটকাহন

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 weeks ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা3 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে