ত্বকের মলম, ফেয়ারনেস ক্রিম ব্যবহার করে ফাংগাল সংক্রমণ ডেকে আনছেন না তো?

0
442
skin oinments

ওয়েবডেস্ক: আপনি হয়তো জানেন না যে ত্বকের মলম বা বাজারচলতি ফেয়ারনেস ক্রিম আপনি ব্যবহার করেন তার ফলে আপনার শরীরে ফাংগাল সংক্রমণ (যাকে সাধারণত দাদ বলা হয়) দেখা দিতে পারে। আপনার শরীর আর ফাংগাল সংক্রমণ প্রতিরোধী হতে পারবে না।

বেশ কয়েক বছর ধরেই মানুষের শরীরে ফাংগাল সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত লক্ষ করছেন ত্বক বিশেষজ্ঞরা। ত্বক বিশেষজ্ঞদের নিয়ে ভারতের বৃহত্তম এবং পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম সংগঠন ‘ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অফ ডার্মাটলজিস্ট ভেনেরিওলজিস্ট অ্যান্ড লেপ্রোলজিস্ট’ (এডিভিএল) গত ৬ এপ্রিল বিশ্ব ত্বক স্বাস্থ্য দিবস পালন করল। সেখানে স্টেরয়েডযুক্ত মলম, ফাংগাল সংক্রমণ এবং ত্বকের ক্ষেত্রে হাতুড়েগিরি নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বিজ্ঞাপন

গ্রাম হোক কী শহর, ভারতের অধিকাংশ মানুষই এখন এই স্টেরয়েডযুক্ত মলম ব্যবহার করেন ত্বকে। দিল্লির গঙ্গারাম হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত ত্বক বিশেষজ্ঞ ডঃ রোহিত বতরা বলেন, “এখন বাজারে প্রচুর মলম পাওয়া যায় যেখানে ভর্তি স্টেরয়েড। প্রেসক্রিপশন ছাড়াই বিভিন্ন দোকান থেকে এগুলি পাওয়া যায়। ত্বকের সমস্যা হলে মলম নয়, আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।”

বিভিন্ন ওষুধপ্রস্তুতকারী সংস্থা কোনো অনুমতি ছাড়াই এই ফাংগাসরোধী মলম যে ভাবে বাজারে নিয়ে আসছেন তাতেও চিন্তিত ত্বক বিশেষজ্ঞরা। আইএডিভিএলের সভাপতি রমেশ ভট্ট বলেন, “এখন ত্বকের রোগ বাড়ছে। এর পেছনে জলবায়ু পরিবর্তন, পরিবেশ দূষণ যেমন একটা কারণ, তেমনই একটা কারণ হল এই সব স্টেরয়েডযুক্ত মলম ব্যবহার করা। ত্বক আমাদের শরীরের সব থেকে বড়ো অঙ্গ। এর সব থেকে বেশি যত্ন নেওয়া উচিত।”

২৯১৩-এর একটি সমীক্ষার ভিত্তিতে দেখা গিয়েছে ত্বকের রোগের ভুগছেন ২,৯২৬ জনের মধ্যে ৪৩৩ (১৪.৮ শতাংশ) জনের রোগের কারণ এই মলম ব্যবহার করা। এঁদের মধ্যে ৩৯২ জনের রোগ অত্যন্ত গুরুতর।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here