Nightmares

ওয়েবডেস্ক : সকালে উঠেও ক্লান্ত মনে হয়। দিনের দিন চোখের তলায় পুরু কালি পড়ছে। সারা দিনের ক্লান্তির পর আবার রাত্রিবেলায় দুঃস্বপ্নের ঢল নামে চোখে? ফলে ঘুমটাও ভালো করে হচ্ছে না?

কিছুতেই এর থেকে মুক্তিও হচ্ছে না!

এই সমস্যা আপনার একার নয়। এখন প্রতি দু’ জনের মধ্যে এক জনেরই এই সমস্যা রয়েছে। ছোটোদের মধ্যে স্বপ্ন দেখে কেঁদে ওঠার রোগ থাকে। বড়োদের মধ্যে বা কিশোরদের মধ্যেও এটা অস্বাভাবিক নয়।

অনেক সময়ই এই স্বপ্ন মন খারাপ করিয়ে দেয়। মানসিক অস্বস্তি তৈরি হয়।

এর থেকে মুক্তি পেতে রয়েছে কয়েকটি উপায়। আজ রইল তেমনই কয়েকটি উপায় –

১) যোগ ব্যায়াম – মানসিক অবসাদ থেকেও রাত্রে ভালো ঘুম হয় না। এই অবস্থায় অবসাদ দূর করতে হলে করা যেতে পারে ব্যায়াম বা যোগাসন।

২) ঘরের পরিবেশ – ঘুমের জন্য একটা সুন্দর পরিবেশ তৈরি করা যায়। তাতে মনে একটা শান্তি ভাব থাকে। তার জন্য ঘরটা রাখতে হবে পরিষ্কার টিপটপ করে। হালকা একটা আলো আর সঙ্গে রাখতে হবে একদম স্বাভাবিক উষ্ণতা। তাতে ঘুম ভালো হয়।

৩) প্রযুক্তির নীল আলো – ফোন, ল্যাপটপ বা কম্পিউটার এই সব কিছুর একটা নীল আলো আছে। বলে রাখা ভালো এই আলো চোখের পক্ষে যেমন বেশ ক্ষতিকর তেমনই ক্ষতি করে ঘুমেরও। এই আলোয় বহুক্ষণ বসে কাজ করার ফলে ঘুম খুব পাতলা হয়। কিন্তু আজকালকার দিনে এই আলোর থেকে দূরে থাকা মোটেই সম্ভব নয়। তাই পারতপক্ষে ঘুমের আগে আগে এই সব যন্ত্রপাতি মানে আপনার মোবাইল বা ল্যাপটপ এই সব থেকে দূরে থাকুন।

৪) ভালো কিছু ভাবার চেষ্টা করুন – অনেক সময়ই এমন হয় আমরা খারাপ স্বপ্নটা নিয়েই ভাবতে থাকি। কিন্তু এ বার থেকে ভাবনার ধরনটা একটু বদলাতে হবে। খারাপ স্বপ্নের শেষটা হতে হবে আনন্দের। ধরুন এমন হল স্বপ্নে আপনি যদি দেখেন পড়ে গিয়েছেন, তার পর ভাবতে হবে আপনার কাছে একটা প্যারাস্যুট আছে। প্যারাস্যুটটা খুলে যাবে আর আপনি বেঁচে যাবেন।

৫) কারোর সঙ্গে আলোচনা – এমনও করা যেতে পারে, যে আপনার সমস্যাটা শুনবে বুঝবে – এমন এক জনের কাছে আপনার স্বপ্নটার ব্যাপারে বলুন। তিনি আপনার মানসিক অবস্থাটা বোঝার চেষ্টা করবেন। আপনাকে সুপরামর্শ দেবেন।

৬) ডাক্তারের পরামর্শ – সব শেষে যেটা বলা যায়, তা হল ডাক্তারের পরামর্শ নিন। অনেক সময় অনেক ওষুধ খাওয়ার কারণেও ঘুম পাতলা হয়ে যায়। সেই কারণেও মস্তিষ্কের কাজ সক্রিয় থেকে যায় ঘুমের সময়ও। এই সব ক্ষেত্রে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here