ডার্ক চকোলেট পচ্ছন্দ করেন? খেয়েই দেখুন না, কতটা উপকারী

    আরও পড়ুন

    খবরঅনলাইন ডেস্ক: চকোলেট কে না পছন্দ করেন? আট থেকে আশি কে নেই এই তালিকায়। চকোলেট, চকোলেট কেক, চকোলেট মিল্ক শেক, চকোলেট ব্রাউনি – নাম শুনলেই সকলের জিভে জল চলে আসে। এমনকি মনের মানুষকে প্রেম নিবেদনে চকোলেট মাস্ট। চকোলেট শুধু রসনার তৃপ্তি আনে তাই নয়, ডার্ক চকোলেট আছে নানা উপকারিতা।

    যদিও দাঁতের ক্ষয় কিংবা ডায়াবেটিস, কিংবা ওজন বৃদ্ধির ভয়ে ইচ্ছা থাকলেও অনেকেই চকোলেট খান না। কিন্তু সব চকোলেট শরীরের জন্য ক্ষতিকর নয়। চিকিৎসকদের মতে, বাজারে মূলত দু’ ধরনের চকোলেট বেশি পাওয়া যায়। ডার্ক চকোলেট এবং মিল্ক চকোলেট। ডার্ক চকোলেট স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী। চকোলেট মূল উপাদান হল কোকোয়া যা খাদ্যগুণে ভরপুর। কিন্তু এগুলো একই প্রক্রিয়ায় বানানো হয় না।

    Loading videos...

    চকোলেট নিয়ে হওয়া সাম্প্রতিক গবেষণাগুলোয় বলা হয়েছে, এটি উচ্চ রক্তচাপ স্বাভাবিক করে এবং হৃদ্‌যন্ত্রের বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমায়। এ ছাড়া চকোলেট রক্তে শর্করার হ্রাস-বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করে স্বাভাবিক রাখে এবং মানসিক চাপ কমায়।

    - Advertisement -

    অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর চকোলেট আছে প্রচুরপরিমাণ পলিফেনল, ফ্ল্যাভোনল, ক্যাটেচিন। অন্যান্য অনেক ফল যেমন ব্লুবেরি, ক্র্যানবেরি ও বেদানার থেকেও এতে বেশি পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায়। কিছু গবেষণায় দেখা গেছে চকোলেটর সঙ্গে দুধ মেশালে চকোলেটে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরে শোষিত হয় না।

    উপকারিতা

    হার্ট ভালো রাখে

    যারা নিয়মিত পরিমাণে ডার্ক চকোলেট খায় তাদের হার্টের রোগ হওয়ার ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় কম থাকে। ডার্ক চকোলেট রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখে এবং হার্ট সুস্থ রাখে।

    কোলেস্টেরল কমায়

    আমাদের শরীরে দু’ ধরনের কোলেস্টেরল থাকে। ভালো কোলেস্টেরল এবং খারাপ কোলেস্টেরল। ডার্ক চকোলেটের তেঁতো স্বাদ আমাদের শরীর থেকে খারাপ কোলেস্টেরল দূর করে ভালো কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়ায়।

    ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে

    কোকোয়া রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ কমিয়ে আনে এবং ইনসুলিন লেভেল নিয়ন্ত্রণে রাখে।

    স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়

    এটি উচ্চ রক্তচাপ স্বাভাবিক করে এবং হৃদ্‌যন্ত্রের বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমায়। এ ছাড়া চকোলেট রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে এবং মানসিক চাপ কমায়। ডার্ক চকোলেট স্ট্রোকের ঝুঁকি ২০ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে আনে।

    মুড ভালো করে

    চকোলেট খেলে নিমেষে মন ভালো হয়ে যায়। ব্যাপারটা শুধু যে আমাদের মস্তিষ্কের একটা অনুভূতি তা-ই নয়, চকোলেটে থাকা পলিফেনল বিষণ্ণতা ও দুশ্চিন্তা দূর করে মুড ভালো করতে সাহায্য করে। চকোলেট খেলে প্রাকৃতিক ভাবেই আমাদের শরীরে সেরোটোনিনের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। এই সেরোটোনিনই আমাদের মস্তিষ্কে ‘ফিল গুড’ বা ভালো থাকার বার্তা পাঠায়।

    ডিপ্রেশন কমায়

    ডিপ্রেশন একটা গুরুতর সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে, যা মন খারাপের সঙ্গে সঙ্গে শরীরও খারাপ করে। ফলে শরীরে বাসা বাঁধে নানা মারণরোগ। ডিপ্রেশন থেকে মুক্তি পেতে সঠিক মানসিক স্বাস্থ্য বজায় রাখার পাশাপাশি নিয়মিত ডার্ক চকোলেট গ্রহণ করা উচিত। ডার্ক চকোলেটের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ উপাদানগুলো মস্তিষ্কে রক্তপ্রবাহকে পরিচালনা করে। যার ফলে এমন এক ধরনের হরমোন নির্গত হয় যা মনকে ভালো রাখতে সহায়তা করে।

    এ ছাড়াও ডার্ক চকোলেটের মধ্যে থাকা অন্যান্য পুষ্টি-উপাদান শরীরে শক্তি সঞ্চয় করে মানসিক দৃঢ়তা বাড়াতে সহায়তা করে। যে কারণে যে সমস্ত রোগী ডিপ্রেশনে ভুগছেন তাঁরা অবশ্যই দৈনিক ডার্ক চকোলেট গ্রহণ করুন। এক সপ্তাহ ব্যবহার করলেই বুঝতে পারবেন পরিবর্তন হচ্ছে কি না। ডার্ক চকোলেটের মধ্যে থাকা উপাদানগুলো মনকে খুশি রাখতে সহায়তা করে।

    ক্যানসার প্রতিরোধ

    ডার্ক চকোলেটে থাকা ক্যাটেচিন নামে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পদার্থ ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীর থেকে টক্সিন বের করতে সাহায্য করে, যা ক্যানসারের সেল জন্ম নেওয়া থেকে রক্ষা করে।

    শরীরের শক্তি বাড়ায়

    ডার্ক চকোলেট অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর একটি খাদ্য উপাদান। এর মধ্যে থাকা উপাদানগুলি শরীরের রক্তপ্রবাহকে পরিচালিত করে। তবে এতে পুষ্টির সব ক’টি উপাদানই যথাযথ পরিমাণে রয়েছে, যা শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করতে পারে। কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফ্যাট এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় ভিটামিনের সব কিছুই এর মধ্যে রয়েছে। একটি ডার্ক চকোলেটের বারে ১০০ গ্রাম পর্যন্ত চকোলেট থাকে, যার মধ্যে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশই কোকো সামগ্রী। দৈনিক একটি চকোলেট বার খাওয়া গেলে তাতে ৬০০ ক্যালোরি শক্তি পাওয়া যাবে।

    ওজন কমায়

    গবেষণায় দেখা গেছে, যারা একেবারেই চকলেট খায় না তাদের থেকে নিত্য চকলেটখোররা হালকা-পাতলা হয়। এটা জেনে আবার হাত ভরে চকোলেট খাওয়া শুরু করবেন না। অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো না।

    আরও পড়ুন:মনের বড়ো ক্ষত হতাশা, কাটিয়ে উঠুন ডান্স মুভমেন্ট থেরাপির মাধ্যমে

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

    - Advertisement -

    আপডেট খবর