স্কুলে যাচ্ছে কচিকাঁচারা, কোভিড নিয়ে বিভ্রান্তি এড়ানোর ৭টি উপায়

0
ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া থেকে

পরিসংখ্যান বলছে, করোনার মারাত্মক প্রভাব এবং সংক্রমণের হার এখন অনেকটাই স্বস্তিদায়ক। যে কারণে কচিকাঁচাদের জন্য খুলে গিয়েছে স্কুল। এমন পরিস্থিতিতে কী করবেন?

1. ঢিলেমি-আতংক কোনটাই নয়

স্কুল খুলেছে মানেই কোভিড চলে গেছে, এমন ধরনের মানসিকতার পাশাপাশি অহেতুক কোনো গুজবে বাবা-মায়ের আশংকা, দু’টোই সমান ভাবে রয়েছে। তবে সন্তানের স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিয়ে মোটেই ঢিলেমি নয়। আবার বিভ্রান্তির কারণে অভিভাবকদের অযথা আতংকিত হওয়ারও কোনো কারণ নেই।

2. সবসময়ই ক্ষতির কথা ভাববেন না

সম্ভাব্য সমস্যার ব্যাপারে সজাগ থাকা ভালো। কিন্তু শিশুদের উপর কোভিডের প্রভাব সম্পর্কে বাবা-মায়ের স্পষ্ট ধারণা থাকা উচিত। অতিরিক্ত ক্ষতির কথা ভাবলে জটিলতা বাড়বে বই কমবে না।

3. ভুয়ো খবরের ফাঁদে পড়বেন না

অভিভাবকদের জানা উচিত, কোনটা সঠিক আর কোনটা সঠিক নয়। বাস্তবের সঙ্গে মিল নেই, এমন কোনো আশংকা না করাই ভালো। যতক্ষণ না প্রাসঙ্গিত তথ্য পাওয়া যাচ্ছে, ততক্ষণ কোনো সমস্যাই নেই। কিন্তু অভিভাবক হিসেবে সবসময়ই চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রাসঙ্গিত তথ্য অনুসরণ করা উচিত।

4. বিশ্বস্ত সূত্র অনুসরণ করুন

ইন্টারনেটে যা পাওয়া যায়, সব কিছুই সঠিক নয়। শিশুদের মধ্যে কোভিডের প্রভাবের আপডেট জানতে শুধুমাত্র নির্ভরযোগ্য সূত্র অনুসরণ করুন। সরকারি সংস্থা অথবা অসংখ্য মিডিয়ায় নিয়মিত কোভিড আপডেট মিলছে। আপনার জন্য কোনটা উপযোগী, সেটা বেছে নিন।

5. সঠিক পথ দেখান বন্ধু-বান্ধবদের

ভুয়ো খবরে একটা বড়ো অংশ আকৃষ্ট। আপনি যদি দেখেন, কোনো পরিচিত তেমনই ভুয়ো খবরে আকৃষ্ট হয়ে সেটাকে আরও পাঁচ জনের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছে, তাঁকে বিরত করুন। তথ্য যাচাই করতে শেখান।

6. সবকিছুই কোভিডের জন্য নয়

দু’বছর ধরে চেপে বসেছে কোভিড। শরীর এবং চিন্তাভাবনাতেও। বিভিন্ন জায়গায় এটা এখনও উদ্বেগের, তবে সব জায়গায় নয়। সংক্রমণের লক্ষণগুলি জানুন, তীব্রতা অনুভব করুন এবং সন্দেহ হলেই বিশেষজ্ঞ এবং চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

7. উপযুক্ত আচরণ অনুসরণ

শিশুদের সংক্রমণ থেকে দূরে রাখার মূল চাবিকাঠি উপযুক্ত আচরণ। যেগুলোর মধ্যে মাস্ক পরা, হাত ধোয়া অথবা বড়োদের টিকাকরণের মতো ব্যবস্থা সঠিক ভাবে অনুসরণ করা উচিত। এই মৌলিক নিরাপত্তা নিয়মগুলি অনুসরণ করার দিকে মনোনিবেশ করুন এবং আপনার সন্তানকেও একই শিক্ষা দিন।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল