ওয়েবডেস্ক: কোথাও বেশি, কোথাও কম বৃষ্টি হলেও এসে গিয়েছে বর্ষা। এ সময়ের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা স্বাভাবিক রাখাই লক্ষ্য হওয়া উচিত। বৃষ্টিতে ভেজা, হাঁটু-সমান রাস্তার জল পার হয়ে বাড়ি ফেরা অথবা পানীয় জলবাহিত রোগের হাত থেকে দূরে থাকতে চাই বাড়তি নজরদারি। এ প্রসঙ্গেই চলে আসে ডাব অথবা নারকেলের জলের কথা।

ডাবের জলে রয়েছে অপরিহার্য পুষ্টি, যে কারণে শারীরিক পুষ্টির ঘাটতি মেটাতে এই জল এক কথায় অনবদ্য। অন্য দিকে এর মধ্যে রয়েছে অপরিহার্য ভি‌টামিন এবং খনিজ রয়েছে যা নিত্যদিনের খাবার থেকে ঘাটতি সৃষ্টি হলেও ডাবের জলে তা পূরণ করে দিতে পারে।

শরীরের যত্ন নেওয়ার জন্য বা সুপার রেফ্রেশিংয়ের জন্য এই স্বাস্থ্যকর ডাবের জলের উপর নির্ভর করতে পারেন। নারকেলের জলের সুফল প্রচুর পরিমাণে, যা সারা বিশ্ব জুড়ে সমান ভাবে প্রচলিত।

[ আরও পড়ুন: উপহাস নয়! অনেক কম্মে লাগে ঢেঁড়স ]

ডাবের জলে থাকা ম্যাগনেসিয়াম , পটাশিয়াম ও ভিটামিন সি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। অন্য দিকে এর মধ্যে মজুত কার্বোহাইড্রেড এই ভ্যাপসা গরমে শরীর থেকে বেরিয়ে যাওয়া জলের ঘাটতি পূরণ করে শক্তি বাড়ায়।

ডায়েটিশিয়ানরা প্রায়শই খাবারে নারকেলের জল ব্যবহার করার পরামর্শ দেন। এর কারণ, ডাবের জলে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট খাবারের বিষাক্ত উপাদানগুলিকে দেহ থেকে পৃথক করতে সহায়তা করে।

খাদ্য বিশারদরা বলেন, ডাবের জলে শুধুমাত্র ইলেক্ট্রলাইট-ই নেই, এর মধ্যে রয়েছে সেই ক্ষমতা যা ত্বক এবং হৃদযন্ত্রের পরিচর্যায় লাগে। বর্ষাকালে অনেকে অযাচিত স্কিনের সমস্যায় ভুগতে থাকেন। ডাবের জলে থাকা অ্যান্টিব্যাক‌টিরিয়াল এবং অ্যান্টিফ্রাঙ্গাল গুণ ত্বকের রোগ প্রতিরোধে সক্ষম।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here