লন্ডন : নারকেল তেল নিয়মত খেলে হৃদরোগের আশঙ্কা কমে। কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক দল গবেষক এমনটাই দাবি করছেন। তাঁরা বলছেন, সপ্তাহের মধ্যে মাত্র চার দিন নারকেল তেল খেলেই হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা উল্লেখযোগ্য ভাবে কমে যায়।

৫০ থেকে ৭৫ বছর বয়সের ৯৪ জন মানুষকে নিয়ে তাঁরা একটা গবেষণা করেন। এঁদের তাঁরা তিনটি দলে ভাগ করেন। তার মধ্যে একটি দলকে সপ্তাহে চার দিন ৫০ গ্রাম বা তিন টেবিল চামচ নারকেল তেল, অন্য একটি দলকে অলিভ ওয়েল এবং আর একটি দলকে নুন ছাড়া মাখন খেতে বলেন।  এর পর তাঁরা সকলের কলেস্টেরলের পরিমাণ যাচাই করে দেখেন।

তাঁরা দেখেন, যাঁরা নুন ছাড়া মাখন খেয়েছেন তাঁদের মধ্যে এলডিএল কলেস্টেরলের পরিমাণ ১০ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। এই এলডিএল কলেস্টেরল হল খারাপ কলেস্টেরল। হৃদরোগের অন্যতম মূল কারণই হল এই কলেস্টেরল।

যাঁরা অলিভ ওয়েল খেয়েছেন তাঁদের শরীরে এলডিএল কলেস্টেরলের পরিমাণ কিছুটা কমেছে। সঙ্গে এইচডিএল কলেস্টেরলের  মাত্রা পাঁচ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই এইচডিএল কলেস্টেরল হল ভালো কলেস্টেরল।

এর পর গবেষকরা দেখেছেন, যাঁরা নারকেল তেল খেয়েছেন তাঁদের শরীরে এইচডিএল কলেস্টেরলের পরিমাণ ১৫ শতাংশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সঙ্গে খারাপ কলেস্টেরলের পরিমাণ উল্লেখযোগ্য ভাবে কমে গিয়েছে।

তা ছাড়াও গবেষকরা বলছেন, শরীর সুস্থ রাখতে, ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে যে সব উপাদান দরকার সেগুলো নারকেলের মধ্যে উপযুক্ত পরিমাণে রয়েছে। নিয়মিত নারকেল তেল খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠে। এতে নানান ধরনের অ্যান্টি ফাঙ্গাল, অ্যান্টি ভাইরাল, অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল উপাদান রয়েছে। এই উপাদানগুলো শরীরের জন্য খুবই উপকারী ও প্রয়োজনীয়।

সব শেষে বলে রাখা ভালো, নারকেল তেলের মধ্যে কোলন ক্যানসার, ব্রেস্ট ক্যানসার ও এন্ডোমেট্রিয়াল ক্যানসারের কোষ ধ্বংস করার ক্ষমতা আছে।

এই গবেষণাটিতে নেতৃত্ব দিয়েছেন প্রফেসর কায় টি খাও এবং নিতা ফরৌহি।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন