yogurt dahi

ওয়েবডেস্ক: হৃদরোগ থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য অনেকেই মেনে চলেন বিবিধ পন্থা। খাদ্যাভ্যাস তো আছেই, সঙ্গে চলে বিভিন্ন রকমের শরীরচর্চাও। তবে হাতের নাগালে এমন একটি দুগ্ধজাত খাদ্য রয়েছে, যা অনেকটাই হ্রাস করতে পারে হৃদরোগের সম্ভাবনা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত দই পাতে পড়লে হাইপারটেনশন বা উচ্চ রক্তচাপকে অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।

হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে দইয়ের এই কার্যকরী ভূমিকার বিষয়টি হাতে-কলমে প্রমাণ করার চেষ্টা করেছে এক দল গবেষক। আমেরিকার বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব মেডিসিন বিভাগের ওই গবেষকদের দাবি, ‘আমাদের গবেষণা প্রমাণ করেছে, শুধু মাত্র নিয়মিত দই খাওয়ার ফলে হৃদরোগের সম্ভাবনা কমতে পারে। অন্যান্য খাদ্য দ্রব্যের মধ্যে যে ক্ষমতা নেই, দই একাই তা করে দেখিয়েছে।’

গবেষকদের ওই পর্যবেক্ষণ পদ্ধতি প্রকাশিত হয়েছে জার্নাল অব হাইপারটেনশন নামে একটি বিজ্ঞান বিষয়ক গবেষণাপত্রে। গবেষকদের দাবি, উচ্চ রক্তচাপ জনিত রোগে ভুগছেন এমন ৩০-৫৫ বছরের ৫৫ হাজার মহিলাকে পর্যবেক্ষণের জন্য বেছে নেওয়া হয়। অন্য দিকে ৪০-৭৫ বছর বয়স্ক একই রোগে আক্রান্ত্র পুরুষকে বেছে নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: ক্যানসার আর হৃদরোগের হাত থেকে বাঁচতে খান নারকেল তেল, বলছে গবেষণা

টানা পর্যবেক্ষণ চালিয়ে দেখা গিয়েছে, ওই মহিলাদের মধ্যে ৩৩ শতাংশ এবং ১৯ শতাংশ পুরুষ দইয়ের কার্যকারিতার সুফল পেয়েছেন। আরও চমৎকার তথ্য, মাত্র এক সপ্তাহ দিনে দু’বার দই খাওয়ার পর গড়ে ২০ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে তাঁদের উচ্চ রক্তচাপ সংক্রান্ত্র সমস্যা।

ফলে উচ্চ রক্তচাপজনিত রোগের ঝুঁকি কমাতে দইয়ের অপরিহার্যতা নিয়ে গবেষকরা কোনো দ্বিমত রাখতে চান না। কিন্তু যাঁরা ওই পর্যবেক্ষণে অংশ নিয়েও সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারলেন না, তাঁরা কী করবেন?

গবেষকরা জানিয়েছেন, তাঁদের ক্ষেত্রেও দীর্ঘদিন টানা দইয়ের উপর জোর দিতে হবে। হাতে গরম সুফল না মিললেও সমস্যাকে নিয়ন্ত্রণে রাখার পথ খুঁজে পাবেন তাঁরাও।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন