এন্ডোমেট্রিওসিস রয়েছে, সেক্সকে কম বেদনাদায়ক করতে জেনে নিন কী করবেন

0
endometrosis
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক :  যে সব মহিলার এন্ডোমেট্রিওসিস আছে তাঁদের যৌন জীবন খুবই বেদনাদায়ক। এই রোগ যে শুধু যৌন জীবনকেই ব্যাহত করছে তাই নয়। এই সমস্যার কারণে বছরের পর বছর ধরে ঋতুস্রাবের সমস্যা ও যন্ত্রণা ভোগ করেন তাঁরা। পরবর্তী ধাপে গিয়ে গর্ভধারনে সমস্যার তৈরি হয়। সর্বোপরি মানসিক স্বাস্থ্যের হানী ঘটে।

এই এন্ডোমেট্রিওসিস আসলে কী?

এন্ডোমেট্রিওসিস হল এক ধরনের কোষ বা টিসুর বৃদ্ধি। এই টিসু ইউটেরাস বা জরায়ু, ওভারি বা ডিম্বাশয়, ফ্যালোপিয়ান টিউব, পেলভিক টিসু, ব্লাডার বা মূত্রথলি, গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইন্যাল ট্র্যাক এবং শরীরের যে কোনো অংশে বৃদ্ধি পেতে পারে। এই ধরনের টিসুকে এন্ডোমেট্রিয়াম বলা হয়।

স্বভাবতই প্রশ্ন আসে এন্ডোমেট্রিওসিসের উপসর্গগুলি কী কী?

এন্ডোমেট্রিওসিস থাকলে শিরা লিগামেন্ট পেশিতে টান ধরা, যন্ত্রণা, প্রচুর ঋতুস্রাব, ক্লান্তি, মলত্যাগের সমস্যা অস্বস্তি, গর্ভধারনে সমস্যা ইত্যাদি হতে থাকে। কালক্রমে তার থেকে মানসিক শান্তি বিঘ্নিত হতে শুরু করে।

২০১৭ সালে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছিল। ওই গবেষণায় দেখা গিয়েছিল, এন্ডোমেট্রিওসিস আছে এমন মহিলাদের মধ্যে দুই তৃতীয়াংশই যৌনজীবনে সমস্যার সম্মুখীন হন। ফলে তাঁরা যৌন জীবনে পূর্ণাঙ্গ তৃপ্তি পান না। কষ্টের শিকার হন। এই সমস্যাকে বলা হয় ডিসপেরুনিয়া।

গবেষণা কী বলছে?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ১০ জনের মধ্যে এক জন মহিলা এই সমস্যায় ভোগেন। নয় বছরের বেশি বয়সের মেয়েদের মধ্যে এই সমস্যার সূত্রপাত শুরু হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সঠিক সময় এর চিকিৎসা হয় না। অনেকে একে সাধারণ ঋতুর সমস্যা বলে এড়িয়ে যান।

ভারতের ছবিটাও প্রায় একই রকম। বেশিরভআগে ক্ষেত্রে শহরাঞ্চলের মহিলাদের মধ্যে এই সমস্যা দেখা দেয়।

নিউজার্সির এক জন সেক্স থেরাপিস্ট, নিউরোসায়েন্টিস্ট ও ‘হোয়াই গুড সেক্স ম্যাটারস’-এর লেখক ন্যান ওয়াইস। তিনি বলেন, এই ভুল চিকিৎসা আর বুঝতে না পারার কারণেই অনেক যুবতীই বছরের পর বছর সেক্স লাইফে কষ্ট ভোগ করেন।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সেক্স লাইফ বা যৌন জীবনে এই কষ্ট সহ্য করার হাত থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার উপায় আছে।

পড়তে পারেন – কচুশাকের সাত কাহন

যাঁদের এন্ডোমেট্রিওসিস আছে তাঁরা সকলেই যে যৌনজীবনে ব্যথা যন্ত্রণা ভোগ করেন তা কিন্তু নয়। তবে যাঁদের এই সময় ব্যথা হয় তাঁদের ব্যখ্যা অনুযায়ী, এই ব্যথা প্রথমে হালকা থাকে। তার পর ক্রমশ বাড়ে। তীক্ষ্ণ যন্ত্রণা শুরু হয়। তারপর তা সহ্যের বাইরে বেরিয়ে যায়।

ডাঃ শেরি এ রস বলছেন, সেক্সের সময় যদি শিরা, লিগামেন্ট বা পেশিতে এই সমস্যার কারণে টান ধরে তা ক্রমশ তীব্র যন্ত্রণার আকার নেয়। কখনও কখনও তো সেই যন্ত্রণা কমতে ঘণ্টা পেরিয়ে দিনও কেটে যায়। শেরি হলেন, ‘শি – ওলজি :  দ্য শি কোয়েল’-এর লেখক।

‘হেলদি সেক্স ড্রাইভ, হেলদি ইউ’-র লেখক ডাঃ ডিয়ানা হোপে বলেছেন, সে ক্ষেত্রে এমন একটি আনন্দের বিষয় সমস্যা আর অবসাদের বিষয় হয়ে ওঠে। তা শুধু যে এন্ডোমেট্রোসিসে আক্রান্ত মহিলার জীবনকেই দুর্বিসহ করে তোলে তাই নয়, তার সঙ্গীটিকেও দুঃখিত করে।    

তাই এখানে রইল তেমন কিছু টিপস যা ব্যথা এড়িয়ে সুস্থ জীবনযাপনে সাহায্য করবে।

১) সমস্যার বিষয়ে সঙ্গীকে জানান

ডাঃ রস বলেন, এন্ডোমেট্রিওসিস নিয়ে আপনার সমস্যার কথা আপনার সঙ্গীটিকে জানাতে লজ্জা পাবেন না। সাধারণ অবস্থায় তাঁকে খুলে বলা উচিত আপনার কী ভালো লাগে আর কী না। কী সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে আর কী নয়। তাতে তাঁর পক্ষেও পদ্ধতি বদলাতে সুবিধা হবে।

২) বিভিন্ন ভঙ্গি এবং অবস্থায় চেষ্টা করুন

ডাঃ হোপে বলেন, সাধারণ পদ্ধতি বা অবস্থানে যদি আপনার সমস্যা হয় তা হলে দুই জনে পরামর্শ করে পদ্ধতি ও অবস্থান ইত্যাদি বদল করে দেখতে পারেন। তা আপনার কষ্টের পরিমাণ কমাবে।

৩) সঠিক সময়টি নির্ধারণ করুন

সাইকোলজিস্ট ও সেক্স থেরাপিস্ট জানেট ব্রিটো বলেন, গোটা মাস ধরেই বিভিন্ন সময় ঘনিষ্ট সম্পর্ক স্থাপন করে দেখুন। অর্থাৎ ঋতুস্রাবের আগে বা পরে, অথবা তার থেকে কত দিন আগে বা পরে – কোন সময়ে আপনার ক্ষেত্রে ব্যথার সমস্যা কম থাকছে বা সমস্যা থাকছে না। তা হলে সেই সময়টিকে ধরে এগিয়ে চলুন।

৪) ভ্যাজাইনাল পেনিট্রেশনের বদলে অন্যান্য যৌন কর্মে বেশি মনোযোগ দিন

ব্রিটো বলেন, কিছু কিছু ক্ষেত্রে ভ্যাজাইনাল পেনিট্রেশন খুবই কষ্ট দায়ক হয়। সে ক্ষেত্রে উত্তেজনা সৃষ্টি ও বৃদ্ধির নতুন নতুন ইরোজেনাস জোন আবিষ্কার করুন। ভ্যাজাইনাল পেনিট্রেশন ছাড়াও সেক্সের অন্যান্য পদ্ধতিগুলি চেষ্টা করুন। যেমন – ওরাল সেক্স, অ্যনাল সেক্স, মাস্টারবেশন-সহ  ইত্যাদির কথা ভেবে দেখা যেতে পারে।

৫) পিচ্ছিল কারক পদার্থের ব্যবহার করুন

রস বলেন, অনেক ক্ষেত্রে যোনি পথ শুকনো থাকার কারণেও সেক্স করতে গেলে ব্যথা লাগে। তাই ইন্টারকোর্স করার সময় যোনিপথ যাতে পিচ্ছিল থাকে সেই দিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। এতে করে বোঝা সম্ভব হবে যে এটি এন্ডোমেট্রোসিসের ব্যথা না কি অন্য কিছু।

৬) খুব মনোযোগ সহকারে সেক্সে লিপ্ত হন, উপভোগ করুন

ব্রিটো বলেন, সেক্স চলাকালীন শুধু সেই দিকেই মনোনিবেশ করুন। প্রত্যেকটি মুহূর্ত উপভোগ করুন। জোরে জোরে শ্বাস নিন। সেক্স ক্রিয়া ধীরে ধীরে করুন।  

৭) যৌন উদ্দীপনা সম্পর্কে চিন্তা করুন

এই ধরনের চিন্তার বিশেষ ভূমিকা থাকে। ওয়াইস বলেন, সেই বিষয়েও গুরুত্ব দিতে পারেন। এর থেকে প্রাপ্ত আনন্দকে খাটো করে দেখবেন। কারণ এই চিন্তা মস্তিষ্ককে এতটাই উত্তেজিত করতে পারে যে মনে হবে প্রত্যক্ষ যৌন উত্তেজনায় সাড়া দিচ্ছেন। ২০১৬ সালের একটি গবেষণায় এই বিষয়টি খুব ভালো ভাবে প্রমাণ হয়ে গিয়েছিল। সেই গবেষোনায় অংশগ্রহণকারীরা একটি ডিল্ডোর আকৃতি কল্পনা করেই মানসিক ভাবে যৌন উত্তেজনা লাভ করেছিলেন। এর থেকে প্রমাণ হয় যৌন উত্তেজনা কল্পনা করা সম্ভব এবং তা এই ক্রিয়ায় খুবই সাহায্য করে।

৮) বিশেষজ্ঞের সঙ্গে পরামর্শ করুন

এই বিষয়ে একজন পেলভিক হেলথ ফিজিক্যাল থেরাপিস্টের পরামর্শ নিন। আপনার যৌন জীবন ও স্বাভাবিক জীবনে সমস্যা শূন্য ভাবে শান্তির জীবন কাটানোর পদ্ধতি নিয়ে তিনিই আপনাকে সঠিক পরামর্শ দিতে পারবেন ।  

তা ছাড়া সেক্স থেরাপিস্ট বা এন্ডোমেট্রিওসিস নিয়ে পড়াশুনো আছে এমন  মানুষের সাহায্য ও পরামর্শও নিতে পারেন। এক্ষেত্রে তিনি সঠিক পথ বাতলানোর সঙ্গে সঙ্গে সঠিক উপকরণ বা সরঞ্জামও আপনাকে বাতলে দিতে পারেন। যাতে করে আপনি আপনার সঙ্গীর সঙ্গে সুস্থভাবে যৌনজীবন যাপন করতে পারেন।   

আরও পড়ুন

নিজেকে ফুরফুরে রাখতে নিয়মিত সেক্স করলে ক্ষতি নেই

------------------------------------------------
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.