কাঁচা আমলকী কেন খাবেন? ৩২টি উপকারিতা

0
amla
আমলকী

ওয়েবডেস্ক: হজম শাক্তি বাড়াতে ও কোষ্ঠ্যকাঠিন্য থাকলে আমলকী অব্যর্থ ওষুধ, এই কথা এখন সবাই জানে। কিন্তু আমলকীর উপকার এখানেই থেমে নেই, এ এক মহৌষধি। এর উপকার অসীম। দেখে নিন আমলকীর আর কী কী গুণ রয়েছে, যার জন্য আপনি আমলকী খেতে পারেন।

১) বদ হজমে –

হজম শক্তি বাড়াতে আমলকীর তুলনা হয় না। অ্যাসিডিটির ক্ষেত্রেও আমলকী দারুণ কাজ দেয়।

২) বমি ভাবে –

অনেকেরই বমি ভাবের সমস্যা থাকে। এমন ক্ষেত্রেও আমলকী উপকারী।

৩) মস্তিষ্কের কর্ম ক্ষমতায় –

মাথা ও হৃদয়ের বেশ কিছু সমস্যার ক্ষেত্রে আমলকী উপকার করে। মাথায় রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করতে পারে। মস্তিষ্কের কর্ম ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

৪) হৃদয়ের সুস্থতায় –

হৃদয় ও ফুসফুসের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে।

৫) ব্লাড সুগারে –

ব্লাড সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে রেখে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

৬) কোলেস্টেরলে –

আমলকী কোলেস্টেরল লেভেলও কম রাখাতে যথেষ্ট সাহায্য করে।

৭) ভিটামিনের ঘাটতিতে –

শরীরে ভিটামিন সি, ভিটামিন বি১, বি২-এর ঘাটতি পূরণ করে।

৮) ত্বকের লাবণ্যে –

আমলকী ত্বকের লাবণ্য বৃদ্ধি করে। এর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ত্বকের কালো ছাপ দূর করে, উজ্জ্বলতা বাড়ায়।

৯) রক্ত পরিশ্রুত করতে –

রক্ত পরিষ্কার করতে আমলকী খুবই ভালো কাজ দেয়।

১০) সর্দি-কাশিতে –

সর্দি-কাশির সমস্যায় ভালো কাজ দেয় আমলকী।

১১) হাঁপানি ও ব্রঙ্কাইটিসে –

হাঁপানি ও ব্রঙ্কাইটিস থাকলে নিয়মিত আমলকী খাওয়া উচিত। এই সমস্ত সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

১২) অরুচিতে –

অনেক সময় মুখের রুচি স্বাদ কোরক নষ্ট হয়ে যায়। আমলকীর টক মিষ্টি স্বাদ সেই স্বাদ ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে।

১৩) খিদে বাড়াতে –

ক্ষুধামান্দে যারা ভুগছে তাদের খিদে বাড়াতে সাহায্য করে এই টক ফলটি।

১৪) পেটের সমস্যায় –

পেটের পীড়ায় উপকারী এই ফলটি।

১৫) পাইলসে –

পাইলসের সমস্যা দূর হয় এই ফল খেলে।

১৬) রক্তশূন্যতায় –

রক্তশূন্যতা দূরীকরণে বেশ ভালো কাজ করে আমলকী। রক্ত তৈরিতে সাহায্য করে। লোহিত রক্ত কণিকার সংখ্যা বাড়ে।

আরও পড়ুন – কচুশাকের সাত কাহন

১৭) দাঁত ও নখে –

রক্তে লোহিত রক্তকণিকার সংখ্যা বাড়িয়ে তুলে দাঁত ও নখ ভাল রাখে। শক্ত করে।

১৮) ফ্রি র‌্যাডিকালস প্রতিরোধে –

আমলকীর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান ফ্রি র‌্যাডিকালস প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। বুড়িয়ে যাওয়া ও সেল ডিজেনারেশনের অন্যতম কারণ এই ফ্রি র‌্যাডিকালস।

১৯) মেদ কমাতে –

যাঁরা মোটা হয়ে যাচ্ছেন বলে দুশ্চিন্তা করছেন তাঁদের ক্ষেত্রে ফ্যাট ঝরাতে সাহায্য করে আমলকী।

২০) যৌন সমস্যায় –

অনেকেই যৌনতা সংক্রান্ত নানান সমস্যায় ভোগেন। সেই সমস্যা দূর করতে পারে আমলকী। যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে।

২১) চুলের সমস্যায় –

আজকাল চুলের সমস্যায় সকলেই ভোগেন। আমলকী চুলের সমস্যায় খুবই ভালো।

২২) চুল ঝরায় –

চুল ঝরার সমস্যা বন্ধ করতে আমলকী ভালো। নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে, চুলের বৃদ্ধি তরান্বিত করে।

২৩) অকালপক্কতায় –

অকালপক্কতায় আমলকী খুবই ভালো। চুল কালো করতে পারে আমলকী।

২৪) খুসকিতে –

আমলকী খুসকিতে খুবই ভালো। চুলের গোড়া শক্ত করে আমলকী।

২৫) অনিদ্রায় –

ঘুমের সমস্যা অর্থাৎ অনিদ্রা থাকলেও আমলকী তার প্রতিকার করতে পারে।  

২৬) ডিজেনারেশন প্রতিরোধ –

চোখের সব রকমের রোগের ক্ষেত্রেই উপকারী আমলকী। ফাইটো-কেমিক্যাল যা চোখের সঙ্গে জড়িত ডিজেনারেশন প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

২৭) দৃষ্টিশক্তি –

দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধি করতে পারে আমলকী।

২৮) চোখের সমস্যা –

চোখে ফুসকুড়ি, চোখ থেকে জল পড়া, চোখে চুলকানি ইত্যাদি সমস্যা থেকে মুক্তি দেয় আমলকী।

২৯) নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ –

নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ দূর করতে পারে আমলকী।

৩০) নবজাতকদের জন্য –

নবজাতক শিশুর জন্যেও আমলকী খুবই ভালো।

৩১) গর্ভবতীদের জন্য –

গর্ভবতী মহিলাদের জন্যও আমলকী ভালো।

৩২) রোগ প্রতিরোধ –

আমলকীর থেকে প্রচুর পরিমাণ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা লাভ করা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here