ওয়েবডেস্ক : ক্যানসার, মানসিক অবসাদ, ডায়াবেটিস- এই সবের হাত থেকে বাঁচতে চান? তা হলে কিছুটা হলেও আপনাকে সাহায্য করবে হট কফি। এমন তথ্যই উঠে এসেছে একটি নতুন গবেষণায়।

হট কফি নিয়ে অনেক খারাপ ধারণা বাসা বেঁধে আছে মানুষের মনে। ক্যাফিন থাকে কফিতে। তাই কেউ কেউ এমনও বলে থাকেন, কফি পান করা উচিতই নয়। তার ওপর হট কফি, তা তো কখনোই না। এতে অম্বল হল প্রথম সমস্যা। তার পর লুকিয়ে আছে একে একে অনেক বড়ো রকমের সমস্যার সূত্রপাত। যেমন হৃদরোগ, রক্তচাপ। আরও কত কী। আর গর্ভবতী মহিলাদেরও নাকি নিয়মিত হট কফি খাওয়া উচিত নয়। তাতে নাকি শিশুর ক্ষতি হয়!

Loading videos...

ব্যায়াম না করে চটজলদি এই ৮টি ঘরোয়া পদ্ধতিতে ওজন কমান

কিন্তু এই সব ধারণা ভেঙে দিয়ে গবেষকরা বলছেন ‘না’। উপকার বেশি হট কফিতেই।

কোল্ড কফি নয়, খান হট হট কফি। হট কফিতে আছে কোল্ড কফির থেকে অনেকগুণ বেশি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এই অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরকে দেয় অনেক বেশি সতেজতা। প্রতিরোধ ক্ষমতাও।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের থমাস জেফারসন ইউনিভার্সিটির গবেষকরা এই গবেষণাটি করেছেন। তাঁরা দেখেছেন, গরম অর্থাৎ হটকফিতে আছে অনেক বেশি টিট্রাটেবল অ্যাসিড। অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর মেগান ফুলার বলেন, এই গরম কফি স্বাস্থ্যের পক্ষে দারুণ ভালো। এতে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে।

তবে কোল্ড আর হট দু’রকমেই অম্লের মাত্রা, পিএইচ-এর মাত্রা একই। তবে এই ব্যাপারে দ্বিমত আছে বিশেষজ্ঞ মহলে।

গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে সায়েন্টিফিক রিপোর্টে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.