ওয়েবডেস্ক: মূলত খাবারের স্বাদ এবং সুগন্ধ বাড়াতেই ব্যবহৃত হয় এই সাদা রঙের গুঁড়ো। তাই বলে সাধারণ লবণ বা চিনি তো নয়-ই। এর রায়ায়নিক নাম সোডিয়াম গ্লুটামেট বা মনো সোডিয়াম গ্লুটামেট। মূলত রেস্তোঁরার খাবারেই এর ব্যবহার বেশি হলেও গৃহস্থের রান্নাঘরেও বিশেষ পদে এর কদর তো আছেই। সেখানে এর নাম টেস্টিং সল্ট।

লবণ বা চিনির মতোই এই সাদা ক্রিস্টাল দানা অনেক বেশি উজ্জ্বল। খাবারের স্বাদ কতটা বাড়ায়, তা নিয়ে বিতর্ক থাকলেও সুগন্ধ বৃদ্ধিতে এর ভূমিকা অনস্বীকার্য। বিশেষ করে মাংসল সুগন্ধ সৃষ্টিতে সিদ্ধহস্ত এই বিশেষ সোডিয়াম দানা। কিন্তু স্বাদ বাড়ানোর জন্য ব্যবহৃত এই বস্তুটির পরিমাণ যতই কম হবে ততই মঙ্গল। কারণ অধিক মাত্রায় নিলে কয়েক মিনিটের মধ্যে শরীরে অ্যালার্জি সৃষ্টি হয়। আবার দীর্ঘদিন ধরে নিতে থাকলে এই অধিবিষ মানব শরীরে নানাবিধ সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে বলে জানাচ্ছেন খাদ্য বিশারদরা।

দেখা গিয়েছে, সস, চিপস, প্যাকেটজাত সুপ বা কৌটো বন্দি খাবারে এই উপরকরণটি বেশি মাত্রায় ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তাই বলে পাড়ার মোড়ে চাউমিনের দোকানেও যে এর চল নেই, তা ভাবলে ভুল হবে। কী ক্ষতি করতে পারে এই বিশেষ সোডিয়াম যৌগ?

Testing-Salt
প্রতীকী ছবি

খাদ্য বিশারদরা বলেছেন, স্বাভাবিক পাচন প্রক্রিয়ার উপর সাংঘাতিক প্রভাব ফেলে। শরীরের স্থূলতা বৃদ্ধি, শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা, বুকের ব্যথা, দুর্বলতা বা হরমোনাল অসামঞ্জস্যের সৃষ্টি করে। অকারণে খিদে বাড়িয়ে দেওয়ার তাত্‍ক্ষণিক প্রবৃত্তি সৃষ্টিও করতে পারে। আবার মস্তিষ্কের কোষেও এর প্রভাব পড়ার ঘটনা পর্যবেক্ষণে দেখা দিয়েছে।

[ অতিরিক্ত মেদ জমেছে পেটে? মেনে চলুন এই ৭টি সিক্রেট টিপস ]

তবে তাঁরা জানাচ্ছেন প্রাকৃতিক কিছু খাদ্য উপকরণের মধ্যেও এর উপস্থিতি দেখা যায়। যেমন পনির, টমেটো, মটর, আখরোট বা গমের মধ্যেও হাজির থাকে এই যৌগ। কিন্তু তার জেরে আশঙ্কার কিছু নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here