জেনে নিন কী ভাবে নিজের ওজন কমাবেন

ওয়েবডেস্ক: রোগা হতে চাওয়া মানেই একটা লম্বা ডায়েটের চার্ট মেনে চলা। আর দিনের পর দিন ঘাম ঝরিয়ে জিম। সে খুব কষ্টের।

একেই শীতকাল। আর শীতকাল মানেই পার্টি, খাওয়া-দাওয়া। এই অবস্থায় না খেয়ে কি থাকা যায়? কিন্তু শরীরের খেয়ালও তো রাখতে হবে। ওজন বেড়ে গেলেও আবার মুশকিল হবে। খুব ভালো হতো না, যদি এই পার্টির মরশুমে খাওয়া না কমিয়েই ওজন কমানো যেত?

অবাক লাগছে? হ্যাঁ, খাওয়া না কমিয়েও রোগা হওয়া সম্ভব। জেনে নিন কী ভাবে?

১। না খেয়ে থাকবেন না

অনেকেই দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকেন। আর তার পর যখন খুব খিদে পেয়ে যায়, ব্যস যা পারেন তাই খান। এতে ওজন আরও বেড়ে যায়। তাই ওজন কমানোর জন্য না খেয়ে থাকার কোনও প্রশ্নই আসে না। এতে বরং শরীরে গ্যাস বা অন্যান্য সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই পেট খালি একদম রাখবেন না।

২। প্রচুর জল খান

প্রচুর জল খান। ঘুম থেকে উঠেই ১-২ গ্লাস জল খেয়ে নিন। সারা দিনে সম্ভব হলে গ্লাস মেপে জল খান। এতে জলটা বেশি খেতে পারবেন। জল শরীর থেকে ক্ষতিকর টক্সিন বার করে দেয়। তাই রোগা হতে আগে দরকার বেশি করে জলের।

৩। অন্যান্য খাবার

সকাল শুরু করুন গ্রিন টি দিয়ে। রোগা হতে গ্রিন টির উপকারিতা মোটামুটি সবাই জানেন। এর পর একটা হেলদি ব্রেকফাস্ট করুন। তাতে প্রোটিন, ভিটামিন, কার্বোহাইড্রেট সব রকম উপাদান যেন থাকে। যেমন শসা, টম্যাটো এ সব দিয়ে স্যান্ডউইচ, ডিমের সাদা অংশ, দুধ এ সব খান। প্রতিদিন ফল খান। ভাজাভুজি খেলেও খুব অল্প খান। হেলদি খাবার খান।

আর রাতের ডিনার হালকা করে করুন। চেষ্টা করুন নারকেল তেল দিয়ে রান্না করার। নারকেল তেল মেদ কমাতে দারুণ সাহায্য করে। মাঝে মাঝে খালি পেটে, অর্থাৎ ঘুম থেকে উঠে ১ কোয়া রসুন খান। এ ছাড়াও অন্যান্য মশলা যেমন, আদা, গোলমরিচ, ধনে, জিরে বেশি করে খান। বিশেষত গোলমরিচ ওজন কমাতে দারুণ সাহায্য করে।

আরও পড়ুন: ডালের জাদুতেই কমবে ওজন

৪। শরীরকে খাটান

শরীরকে তো একটু খাটাতেই হবে। তাই রোজ একটু জগিং করুন। বাইরে যেতে হবে না, বাড়ির ছাদেই করুন। এর সঙ্গে হালকা একটু এক্সসারসাইজ করুন। এগুলো করলেই কাজ হবে। আর পার্টির মরশুমে কোনও দিন খুব ফ্যাটি কিছু খাওয়া হলে, পরের দিন একদম হালকা খাবার খান। এক্সসারসাইজ করে ফ্যাট ঝরিয়ে নিন। মোট কথা ফ্যাটকে শরীরে জমতে দেবেন না।

৫। সোডা না খাওয়াই ভালো

সোডা শরীরের জন্য খুব ক্ষতিকারক। সোডা খুব বেশি ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। পার্টির মরশুমে একটু-আধটু তো চলতেই পারে। তবে অতিরিক্ত বেশি কোনও কিছুই ভালো না। সেটা মাথায় রাখবেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here