drinking water

ওয়েবডেস্ক: শীত বিদায় নিয়েছে, যতো দিন যাচ্ছে ততো বাড়ছে অস্বস্তিকর আবহাওয়া। এই ঘর্মাক্ত আবহাওয়ায় নিজেকে সুস্থ রাখতে জলই ভরসা। রাস্তায় রোদের নিচে থাকুন বা চার দেওয়ালের মধ্য, জল আপনাকে খেতেই হবে।

চিকিৎসকরা বলেন দিনে অন্তত সাড়ে তিন লিটার জল আপনাকে খেতেই হবে। তবে জল খাওয়ার পদ্ধতিও আপনার জেনে রাখা দরকার, কারণ ভুল পদ্ধতিতে জল খাওয়া আপনার স্বাস্থ্যে প্রভাব ফেলতে পারে। দেখে নিন আয়ুর্বেদিক উপায় জল খাওয়ার সাতটি পদ্ধতি

১) দাঁড়িয়ে নয়, বসে জল খান

মনে রাখবেন, দাঁড়িয়ে জল খাওয়া কখনই উচিত নয়। সব সময়ে চেষ্টা করুন বসে জল খেতে। দাঁড়িয়ে জল খেলে শরীরে জলের ভারসাম্য নষ্ট হবে এবং শরীরের গাঁটে জল জমে যেতে পারে। এর ফলে মানুষের শরীরে আর্থরাইটিস থাবা বসাতে পারে। বসে জল খেলে আপনার শরীর সহজেই জল হজম করে নেবে। বসে জল খেলে আপনার কিডনিও সুস্থ থাকবে।

২) একসঙ্গে অনেকটা নয়, অল্প অল্প জল খান

তাড়াহুড়োর মধ্যে আমরা অনেকেই একসঙ্গে অনেকটা জল খেয়ে ফেলি। সেটা অনুচিত। অনেকটা নয়, অল্প অল্প জল খান। এর ফলে একদিকে যেমন খাবার হজম হবে তেমনই ওজন কমাতেও সাহায্য করত।

৩) ফ্রিজের জল নয়, সাধারণ জল বা একটু উষ্ণ জল খান

গরম কালে আমাদের অনেকের অভ্যাস ফ্রিজ থেকে বের করে ঢকঢক করে জল খেয়ে নেওয়া। এটাও এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবেন। কারণ ঠান্ডা জল খেলে শরীরে রক্ত চলাচল ব্যহত হয়। এর ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যও দেখা দিতে পারে। সাধারণ জল আপনাকে হজমে সাহায্য করবে আর জলকে একটু উষ্ম করে খান তাহলে আপনার কলেস্ট্রল এবং আর্থরাইটিসমুক্ত হয়ে যাবেন।

৪) তেষ্টা পেলে তবেই জল খান

যখন তেষ্টা পাবে, একমাত্র তখনই জল খাবেন, তা ছাড়া নয়। প্রত্যেক মানুষের শরীরের গঠন আলাদা, সুতরাং সবাই এক সময়ে সমপরিমাণ জল গ্রহণ করতে পারেন না। তেষ্টা না পেলেও যদি খুব বেশি জল খান তাহলে আপনার শরীর সেই জল হজম করতে পারবে না।

৫) কখন বুঝবেন আপনি তৃষ্ণার্ত?

আপনার জল তেষ্টা পেয়েছে কি না আপনি নিজে বুঝতে পারবেন, শরীরের কিছু আচরণ দেখে। আপনার প্রস্রাবের রঙ যদি হলুদ হয়ে যায়, তাহলে বুঝবেন আপনার শরীরে জল অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। শরীরে জল থাকতে প্রস্রাব হবে সম্পূর্ণ পরিষ্কার। এ ছাড়াও আপনার ঠোঁট যদি শুকিয়ে যায় তাহলেও বুঝে যাবেন যে আপনার শরীর এখন জল চাইছে।

৬) ঘুম থেকে উঠে আগে জল খান

ঘুম থেকে উঠে অন্য কোনো কাজ শুরুর আগে কিছুটা জল খেয়ে নিন। এর ফলে শরীর রোগমুক্ত থাকে। আপনার অন্ত্রও পরিষ্কার থাকবে।

৭) রুপো এবং তামার পাত্রে রাখা জল খাওয়ার চেষ্টা করুন

এই পদ্ধতি অনেকের বাড়িতেই করা সম্ভব নয়। তবুও যদি চেষ্টা করেন তাহলে আপনি ভালো থাকবেন। রুপো এবং তামার পাত্রে জল ধরে রেখে সেই জল খাওয়ার চেষ্টা করুন। তামার পাত্রে ব্যাকটেরিয়ারোধী ক্ষমতা রয়েছে। এর ফলে যে জল আপনি খাচ্ছেন সেটা সম্পূর্ণ বিশুদ্ধ। অন্যদিকে রুপোর পাত্রে জল খেলে আপনার শরীর শীতল থাকবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here