ওয়েবডেস্ক: ঘুমের সময় ভুল করেও মোবাইল ফোন কাছে রাখবেন না। মোবাইল ফোনের রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি থেকে হতে পারে নানান সমস্যা। বিশেষ করে কোনো ফাইল আপলোড বা ডাউনলোড করার সময় এই ফ্রিকোয়েন্সি বা চলন্ত গাড়িতে মোবাইলের টাওয়ার ধরার সময়টাও বেশ ক্ষতিকারক। অন্তত ক্যালিফোর্নিয়ার ডিপার্টমেন্ট অফ হেলথের একটা গবেষণা সেই রকমই বলছে। সংস্থার পক্ষ থেকে সম্প্রতি এই বিষয়ে প্রচারও করা হচ্ছে।

আসুন জেনে নেওয়া যাক কী কী সমস্যা হতে পারে মোবাইলের এই তরঙ্গ থেকে –

১) ক্যানসার – মোবাইল ফোন শরীরের কাছে রেখে ঘুমোলে তার তরঙ্গ থেকে ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই যখন ফোন ব্যবহার করা হচ্ছে না সেই সময় অন্তত মোবাইলটা শরীরের থেকে দূরে সরিয়ে রাখাই বাঞ্ছনীয়। তাতে ক্যানসারের আশঙ্কা কিছুটা কমে।

এনভায়রনমেন্টাল হেলথ ট্রাস্টের ডাঃ দেভরা ডেভিস বলেন, মোবাইল ফোন শরীরের কাছাকাছি রাখা মোটেই বুদ্ধিমানের কাজ নয়। এমনকি মোবাইল ফোন প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘অ্যাপেল’-ও এই সম্পর্কে সহমত প্রকাশ করেছে। আই ফোনে ‘রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি’-র ব্যাপারে নোটিফিকেশন দেওয়ার জন্য আলাদা অপশনও আছে।

২) মস্তিষ্কের বিকাশ – শিশুদের মস্তিষ্কের বিকাশের পথে অন্তরায় সৃষ্টি করে এই তরঙ্গ। এই বিষয়ে বাবা-মায়েরা সে ভাবে সচেতন নন।

ডাঃ দেভরা ডেভিস বলেন, বড়োদের থেকে ছোটোদের ওপর এর কুপ্রভাব অনেক বেশি।

৩) কানের সমস্যা – মোবাইল ফোনের এই তরঙ্গ বা ফ্রিকোয়েন্সি মাথার সঙ্গে সঙ্গে ক্ষতি করে কানেরও। শ্রবণ শক্তি কমে এই ফোনের বেশি ব্যবহারের দরুণ।

৪) মনঃসংযোগে ঘাটতি – মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, মোবাইল ফোন বেশি ব্যবহারের ফলে মনঃসংযোগের ক্ষেত্রে ঘটতে পারে ঘাটতি।

৫) মানসিক স্থিতি – মনঃসংযোগের সঙ্গে সঙ্গে মানসিক স্থিতাবস্থাতেও সমস্যা হতে পারে।

৬) নিদ্রাল্পতা – বয়ঃসন্ধির ছেলেমেয়েদের নিদ্রাল্পতা একটা বড়ো সমস্যা। তার জন্য দায়ী মোবাইল ফোনের এই তরঙ্গ।

এই কারণগুলোর জন্যই সম্প্রতি ফ্রান্সে প্রাইমারি থেকে মাধ্যমিক পর্যন্ত স্কুলগুলোতে মোবাইল ফোন ব্যান্ড করে দেওয়া হয়েছে।

৭) শুক্রাণুর গুণাকুণ ও পরিমাণ – বেশ কিছু গবেষক মোবাইলের তরঙ্গের কুফল হিসেবে শুক্রাণুর পরিমাণ ও গুণাগুণের বিষয়টি নিয়ে সচেতন করেছেন। গবেষণায় তাঁরা দেখেছেন, যাঁরা দীর্ঘক্ষণ পকেটে মোবাইল ফোন রাখেন তাঁদের স্পার্ম কাউন্ট অন্যদের তুলনায় অনেক কম হয়। তাও অনেকটাই খারাপ অবস্থায় থাকে।

কম বা বেশি তরঙ্গের ওপর এটা নির্ভর করে না। তরঙ্গ মাত্রই ক্ষতিকর।

৮) বংশবৃদ্ধি – উপরের সমস্যার হাত ধরেই সৃষ্টি হয় বংশবৃদ্ধির ক্ষেত্রে বাধা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন,

  • মোবাইল ফোন সরাসরি ব্যবহারের বদলে উচিত হেডফোন ব্যবহার করা।
  • ঘুমের সময় মোবাইল বালিশের নীচে বা পাশের বেডসাইড টেবিলে না রেখে আরও দূরে রাখাই বাঞ্ছনীয়।
  • মোবাইল শরীরের সঙ্গে লাগিয়ে না রাখাই ভালো। পকেট, বেল্ট হল্টার বা শরীরের অন্য কোথাও মোবাইল বহন না করে ব্যাগ ব্যবহার করা উচিত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here