ডাক্তারের চেম্বার থেকে: নবজাতকের ত্বকের যত্ন

0
596

ডাঃ জয়ন্ত দাস, শিশু ত্বক বিশেষজ্ঞ
ছোট শিশুর ত্বক ফুলের মতন নরম ও সংবেদনশীল হয়। জন্মের পর থেকেই শিশুর ত্বকে নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এগুলো তেমন খুব বড় সমস্যা নয়। বাবা মার একটু যত্নে এই সকল ত্বকজনিত সমস্যা থেকে শিশুকে রক্ষা করা যায়। এর জন্য বাবা মার প্রয়োজন শিশুর ত্বকজনিত সাধারণ সমস্যাগুলো সম্পর্কে যথাযথ জ্ঞান।

জন্মদাগ
জন্মদাগ শিশুদের জন্য খুব সাধারণ একটি বিষয়। জন্মদাগ বিভিন্ন রকম হতে পারে। বিশেষ করে ১ থেকে ১০ টি কালো বা রঙিন জন্মদাগ থাকা শিশুর জন্য অস্বাভাবিক কিছু নয়। শিশু যখন মাতৃগর্ভে থাকে তখন বিভিন্ন কারণে এই ধরনের দাগের সৃষ্টি হতে পারে যা জন্মের কয়েক মাস পর্যন্ত থাকতে পারে। এই নিয়ে বাবা মাকে খুব বেশি দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই। বেশির ভাগ জন্মদাগ ধীরে ধীরে ফিকে হয়ে আসে। তবে প্রয়োজনে কোনো শিশু বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া যেতে পারে শিশুর দাগটি সত্যিই জন্মদাগ কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য।

ইরাইথেমা টক্সিকাম নিওনেটোরাম (মাসি-পিসি)
একটি শিশুর জন্মের দুই থেকে তিন দিন পর পরই মুখ, হাত, পা এমনকি সারা শরীরে লাল লাল দানা দেখা যায় যা দেখতে অনেকটা মশার কামড়ের মতো দেখায়। এদের চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় ইরাইথেমা টক্সিকাম নিওনেটোরাম যা প্রচলিত ভাষায় মাসি-পিসি নামে পরিচিত। এই ধরনের সমস্যায় শিশুর কোনো চিকিৎসার প্রয়োজন হয় না। আট থেকে দশ দিনের মধ্যেই আপনাআপনি এই দাগ চলে যায়। তবে লক্ষ রাখতে হবে শিশুরা যেন এই সময়টাতে অনেক বেশি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকে।

খোসার মতো ত্বক
শিশুদের ত্বকে অনেক সময় হালকা পেঁয়াজের মত খোসা খোসা উঠে আসে যাকে পিলিং বলা হয়ে থাকে। মাত্রাতিরিক্ত শুষ্কতার জন্য এই ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে। তাই শিশুর ত্বক শুষ্ক হয়ে আসছে কিনা সেদিকে খুব ভালোভাবে খেয়াল রাখতে হবে।

ডায়াপার র‍্যাশ
নিম্নমানের ডায়াপার ব্যবহার, অথবা ঠিক নিয়মে ডায়াপার পরানো এবং পরিবর্তন করা না হলে ডায়াপার র‍্যাশ হতে পারে। এটি এড়াবার জন্য আরামদায়ক এবং উচ্চ শোষণক্ষমতাসম্পন্ন ডায়াপার ব্যবহার করুন। একটি ডায়াপার অবশ্যই ছয়ঘন্টার বেশি ব্যবহার করা যাবেনা,  প্রতিবার ডায়াপার পরিবর্তনের সময় শুকনো নরম কাপড় দিয়ে পরিস্কার করে মুছে দিন।

শিশুর ব্রন
খুব ছোট বয়সে বাবা মা শিশুর যে ব্যাপারটি নিয়ে বেশি চিন্তিত হয়ে পরে সেটি হল শিশুর ব্রন বা পিম্পল যা অনেকটা স্বাভাবিক ব্রনের মতই দেখায়। মায়ের রক্তে হরমোনের প্রভাবে এই ধরণের ব্রন হতে পারে। ব্রণর ক্ষেত্রে মায়ের খুব বেশি বিচলিত হওয়ার প্রয়োজন পরে না বা কোনো প্রকার চিকিৎসার প্রয়োজন পরে না। কিছু দিনের মধ্যেই শিশুর ত্বকের এই সকল সমস্যা আপনা থেকেই সেরে যায়।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here