লন্ডন: ‘ল্যানসেট ইনফেকশাস ডিজিজ’ পত্রিকায় প্রকাশিত একটি গবেষণায় উঠে এসেছে ডায়রিয়ায় মৃত্যুর আঁতুড়ঘরে পরিণত হয়েছে ভারত। ‘গ্লোবাল বার্ডেন অব ডিজিজ’ শীর্ষক ওই গবেষণায় গবেষকরা জানিয়েছেন, ২০১৫ সালে বিশ্বে পাঁচ বছরের নীচে ডায়রিয়ার কারণে মৃত্যু হয়েছে ৪ লক্ষ ৯৯ হাজার শিশুর। তার মধ্যে ৪২ শতাংশ হল শুধু ভারত আর নাইজেরিয়া মিলিয়ে।

গবেষণা বলছে, ২০১৫ সালে ভারতে এই রোগে মারা গেছে এক লক্ষ শিশু। ওই বছর গোটা বিশ্বে শুধু ডায়রিয়ায় মারা গেছে ১৩ লক্ষ পাঁচ-অনূর্ধ্ব শিশু। মৃত্যুর কারণ হিসেবে রোগের তালিকায় চার নম্বরে ছিল ডায়রিয়া। যে কোনো বয়সের মানুষই এই রোগে মারা যায়। ২০১৫ সালে এই রোগেই সব থেকে বেশি মানুষ মারা গেছে।

এই গবেষণায় গত ২৫ বছরের মৃত্যু, মৃত্যুর কারণ আর রোগের ব্যপ্তি নিয়ে গবেষকরা পর্যালোচনা করেছেন। তাতে এটাও উঠে এসেছে যে, পৃথিবীতে ডায়রিয়ায় মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমশ কমছে। কোনো কোনো দেশে খুব দ্রুত এর প্রতিরোধ গড়ে তোলা হচ্ছে। ২০০৫ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে এই রোগে পাঁচ বছরের নীচে শিশুর মৃত্যুর হার ৩৪.৩% কমেছে। আর সব বয়সের মানুষের ক্ষেত্রে ডায়রিয়ায় মৃত্যুর হার ২০.৮% কমেছে। তবে সাব সাহারান আফ্রিকা ও দক্ষিণ এশিয়ায় ডায়রিয়ায় শিশুমৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি।

উল্লেখ্য, গবেষকরা বলছেন, ডায়রিয়া এমন একটি রোগ যার প্রতিরোধ সম্ভব। তার জন্য বিশ্ব জুড়ে চলছে নানা রকমের অভিযান। একে প্রতিরোধ করার জন্য দরকার সচেতনতা। তার জন্য চাই বিশুদ্ধ পানীয় জল, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন পরিবেশ ও শিশুদের উপযুক্ত পুষ্টি। তা হলেই সম্ভব হবে এই রোগকে পরাস্ত করা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here