ওয়েবডেস্ক: সাম্প্রতিক এক সমীক্ষার ফলাফল বলছে কর্মক্ষেত্রে যৌন হেনস্থার শিকার হন যে সমস্ত মহিলা, অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ার সম্ভাবনা তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। অবসাদের সাথে সাথে অকারণ চিন্তা, খাদ্যাভ্যাসের সমস্যা, পোস্ট ট্রমাটিক স্ট্রেস ডিসর্ডার (পিটিএসডি) ইত্যাদি অসুখও এই মহিলাদের বেশি হয়। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে মহিলাদের ক্ষেত্রে যৌন নিগ্রহের সংখ্যা অনেক বেশি হলেও পুরুষরাও এর শিকার। গত পনেরো বছরে পুরুষদের ওপর যৌন নিগ্রহের হার বেড়েছে ১৫ শতাংশ।

অকুপেশনাল হেলথ্‌ সাইকোলজি জার্নালে প্রকাশিত সমীক্ষা অনুযায়ী পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের যৌন হেনস্থার অভিজ্ঞতা তুলনামূলক বেশি মারাত্মক হয়। মানসিক আতঙ্ক থেকে বেরোতে না পেরে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকে মহিলাদের। টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আয়োজিত সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ২০ শতাংশ মহিলা এবং ৭ শতাংশ পুরুষ কর্মক্ষেত্রে যৌন হেনস্থার শিকার। পুরুষ এবং মহিলা, সব মিলিয়ে ২০০০ জনের ওপর চলেছে এই সমীক্ষা।

সমীক্ষায় উঠে এসেছে একটি নতুন তথ্য। সামরিক বিভাগে থাকা পুরুষদের যৌন নিগ্রহের শিকার হওয়ার সম্ভাবনা সাধারণ নাগরিকের তুলনায় ১০ গুণ বেশি থাকে। তবে অধিকাংশ সময়ে (৮১%) নিগৃহীত ব্যক্তি অভিযোগ জানান না। সমীক্ষার ফলে নতুন করে প্রশ্নের মুখে পড়েছে বিভিন্ন সংস্থার যৌন হেনস্থা বিরোধী নীতি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কর্মীদের মধ্যেও সচেতনতা বাড়াতে হবে। অভিযোগ জানানোর পদ্ধতি এবং ফলাফল সম্পর্কে কর্মীদের অবগত রাখা নিয়োগকারী সংস্থার কর্তব্য।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here