cancer blood test

ওয়েবডেস্ক: শুধুমাত্র একটি বিশেষ রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমেই সাধারণ আটটি ক্যানসার নির্ণয় করা সম্ভব। বিজ্ঞানীরা আধুনিক এই পদ্ধতির সাহায্যে দেখিয়েছেন, কী ভাবে এক বার পরীক্ষা করলেই ক্যানসার নির্ণয়ের পাশাপাশি সেগুলির স্থানকেও সহজে চিহ্নিত করা যায়।

বিজ্ঞানীরা এই অভিনব পদ্ধতির নামকরণ করেছেন ক্যানসার-সিক। রক্তে বিভিন্ন ধরনের ক্যানসার প্রোটিন ও ক্যানসার জিনের পরিব্যাক্তি থেকেই এই নির্ণয় এবং চিহ্নিতকরণ সম্ভব বলে তাঁরা জানিয়েছেন। তবে সচরাচর যে ধরনের ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল তেমনই আটটিকে এই পদ্ধতিতে নির্ণয় সম্ভব। গবেষণা বলছে, গত কয়েক বছরে আমেরিকায় এই সাধারণ আটটি ক্যানসারয়ে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হার প্রায় ৬০ শতাংশ।

আমেরিকার জন হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের অনকোলজি ও প্যাথোলজি বিভাগের অধ্যাপক নিকোলাস পাপাদোপোলোস জানিয়েছেন, বর্তমানে ক্যানসার নির্ণয়ে সাধারণত যে ধরনের বায়োমারকার্সের সংমিশ্রণ ব্যবহার করা হয়, সেগুলির পরিবর্তনের প্রয়োজন রয়েছে। কারণ এগুলি তৈরি হয়েছে ক্যানসারের চিকিৎসায় ব্যবহৃত কিছু ওষুধের উপর নির্ভর করে।

পর্যবেক্ষকরা ইতিমধ্যেই কয়েকশো জিন এবং ৪০ রকমের প্রোটিন চিহ্নিতকারী রঞ্জকের ব্যবহার করে থাকেন। তবে অত্যাধুনিক পদ্ধতিতে ওই বিশাল সংখ্যক জিনের মধ্যে থেকে ১৬টি জিন এবং আট ধরনের প্রোটিন রঞ্জককেই বেছে নিতে সক্ষম হয়েছেন নিকোলাস ও তাঁর সহ-গবেষকরা। তাঁরা পরীক্ষার মাধ্যমে দেখিয়েছেন, মলিকিউলার টেস্টের মাধ্যমে ক্যানসার নির্ণয় পদ্ধতিটি খুবই ক্ষীণগতির। চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়গুলিকে মাথায় রাখতে গিয়ে ওই বিশাল সংখ্যক জিন বিশ্লেষণে অনেকটাই সময় চলে যায়। কিন্তু নিকোলাস জানিয়েছেন, তাঁদের ওই পদ্ধতিতে ক্যানসার নির্ণয় মোটেই সময়সাপেক্ষ নয়। আগামী দিনে এর ব্যাপক প্রয়োগ ঘটানোর গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁরা।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন