আপনি কি কোনো কারণে হতাশা বা ডিপ্রেশনে ভুগছেন? বুঝবেন এই লক্ষণগুলি থেকে: পর্ব ২

0

খবর অনলাইন ডেস্ক : এর আগের পর্বে ডিপ্রেশন বা অবসাদের ৮টি লক্ষণ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এই পর্বে রইল আরও কয়েকটি লক্ষণের কথা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লক্ষণগুলি হল

Loading videos...

১। উৎসাহের অভাব

পড়াশোনা বা খেলাধুলো বা অন্য যে কোনো কাজ করতে উৎসাহের অভাব বোধ করা, সব সময় ক্লান্তি বোধ, অলসতা, যে কোনো কাজে ইচ্ছার অভাব।

২। অনিচ্ছা

প্রাত্যহিক কাজ যেমন স্নান, খাওয়া, ঘরদোর পরিষ্কার করা, জামাকাপড় কাচা ইত্যাদিতে অনিচ্ছা।

৩। নিজের প্রতিও অনীহা

নিজেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতেও অনীহা।

৪। ঘুম

ঘুমের ব্যাপারে একটা বিশেষ পার্থক্য, হয় একদম ঘুম না হওয়া তা না হলে অতিরিক্ত মাত্রায় ঘুমোনো। সারাক্ষণ শুয়ে থাকতে ইচ্ছে করা।

৫। বয়ঃসন্ধিতে

হরমোনের পরিবর্তন ঘটলেও বয়ঃসন্ধিতে ডিপ্রেশন আসে।

৬। বায়না বা জেদ

ছোটোদের ক্ষেত্রে অবসাদ বিষয়টা কখনও কখনও একটু জেদি করে তোলে। তাদের প্রতিনিয়ত নতুন চাহিদা, অল্পতে সন্তুষ্ট না হওয়া। নানান বিষয় নিয়ে বায়না জেদ।

৭। নেশাভাঙ

প্রেম বা ভালোবাসায় যদি ব্যর্থতা আসে তা হলেও ডিপ্রেশন আসাটা অনেকের ক্ষেত্রেই স্বাভাবিক। তার ফলে নানান প্রবণতা দেখা দেয়, নেশাভাঙ করা, অপরাধমূলক কাজে লিপ্ত হওয়া।

৮। ক্রোধ

অতিরিক্ত ক্রোধ, হঠাৎ হঠাৎ রেগে যাওয়া, বিচার বিবেচনা বোধ কমে যাওয়া। এই সব ক্ষেত্রে অনেক সময়ই ওই ব্যক্তি ডিপ্রেশনের শিকার হতে পারে।

৯। অতিরিক্ত ইমোশনাল

বিশেষজ্ঞরা বলেন, অতিরিক্ত ইমোশনাল হওয়াও কিছু ক্ষেত্রে ডিপ্রেশনের লক্ষণ। অনেক ক্ষেত্রে ইমোশনাল ব্যক্তি অন্যকে নিজের প্রতি আকর্ষিত করতে চেষ্টা করে। কিন্তু সেটি যখন সম্ভব হয় না তখনই ভেঙে পড়ে, ডিপ্রেশন গ্রাস করে।

১০। আত্মহত্যার প্রবণতা

আত্মহত্যার প্রবণতাও অবসাদ বা ডিপ্রেশনের লক্ষণ। আত্মহত্যা করার প্রবণতা হল মানসিক ব্যাধি। এটি জন্ম নেয় অবসাদ বা ডিপ্রেশন থেকেই। ডিপ্রেশনের শেষ অবস্থায় আত্মহত্যার প্রবণতা আসে।

উল্লেখ্য অবসাদ বা ডিপ্রেশন যে কোনো বয়সেই হতে পারে। এর নির্দিষ্ট কোনো বয়স নেই। ছোটো ছেলেমেয়ে, কিশোর-কিশোরী, যুবক-যুবতী, তরুণ-তরুণী, মাঝবয়সি এবং বয়স্ক – যে কেউই ডিপ্রেশনের শিকার হতে পারে। তাই পরিবার পরিজনদেরই একে অপরের প্রতি সজাগ হতে হবে। কারও মধ্যে কোনো রকম সমস্যা হলে তাতে গুরুত্ব দিতে হবে। সেই সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করতে হবে।

এর পরের পর্বে ডিপ্রেশন থেকে বাঁচার জন্য কী কী করা যায় সেই নিয়ে আলোচনা করা হবে।

আরও – আপনি কি কোনো কারণে হতাশা বা ডিপ্রেশনে ভুগছেন? বুঝবেন এই লক্ষণগুলি থেকে: পর্ব ১

আরও পড়ুন – হাঁপানির সমস্যা? জেনে নিন কী কী খাবেন আর খাবেন না

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.