Turmeric University of California, Los Angeles

ওয়েবডেস্ক: বাংলা হোক বা ভারত-প্রায় সর্বত্র রান্নাঘরের অতি প্রয়োজনীয় দ্রব্য হলুদের গুণাগুণ নিয়ে বহু চর্চা হয়ে থাকে। সুস্বাদু খাদ্য ছাড়াও মানুষের শরীরে এর বহুবিধ উপকারিতা অনেকেরই অজানা নয়। কিন্তু এমন একটা অতিপরিচিত দ্রব্যের অজানা একটি ভূমিকার কথা সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে আমেরিকার জার্নাল অব জেরিয়েট্রিক সাইকিয়াট্রিতে। যা শুনলে অবাক হতে হয় বইকী!

ওই বিজ্ঞান বিষয়ক পত্রিকাটিতে দাবি করা হয়েছে, হলুদ যেমন মানুষের স্মৃতি শক্তি বাড়াতে সহায়ক ভূমিকা নিতে পারে তেমনই অ্যালঝাইমারের মতো দূরারোগ্য ব্যধিতেও উপশম দিতে পারে। এবং বলাই বাহুল্য তাদের এই দাবিকে তারা শক্ত ভিতের উপর প্রতিষ্টা করতে পরীক্ষার মাধ্যমে তা প্রমাণ করারও চেষ্টা করেছেন। প্রশ্ন উঠতে পারে, গবেষকরা হঠাৎ কেন হলুদকে নিয়ে পড়লেন? জবাবে তাঁরা যা বলছেন, তা শুনেও আপনার ভালো লাগবে। গবেষকরা বলেছেন, ভারতে কেন বয়োজ্যেষ্ঠ মানুষের মধ্যে অ্যালঝাইমারের প্রকোপ কম, এমন একটা প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়েই এই গবেষণা হাতে নেওয়া হয়েছিল। ভারতীয়দের খাদ্য তালিকা নিয়ে ব্যাপক কাটাছেঁড়ার পরই এই অভিনব উদ্ভাবন।

আরও পড়ুন: অ্যালঝাইমার্সের প্রথম ধাপ কী জানেন? জেনে নিন মুক্তি পাওয়ার সহজ উপায়

স্মৃতি শক্তির সঙ্গেই জড়িয়ে রয়েছে অ্যালঝাইমার্সের বিভিন্ন লক্ষণ প্রকাশের বিষয়গুলি। যা সারা পৃথিবীরে মধ্যে ভারতে তুলনামূলক ভাবে অনেকাংশে কম।

লস এঞ্জেলসের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক গ্যারি স্মল জানিয়েছেন, ‘মস্তিষ্কের প্রদাহ কমাতে এবং বিষণ্নতা নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী হতে পারে হলুদের অন্তর্বর্তী কারকিউমিন, যে জৈব রাসায়নিকটি হলুদের মধ্যে মজুত রয়েছে।’

এই গবেষণায় ৫০-৯০ বছর বয়সি এমন ৪০ জন ব্যক্তির উপর পরীক্ষা চালানো হয়েছে, যাঁরা ইতিমধ্যেই স্মৃতি শক্তি জনিত রোগে ভুগছেন। তবে প্ল্যাসেবো আক্রান্ত ব্যতীত প্রতিটি ক্ষেত্রেই সাফল্য পাওয়া গিয়েছে বলে গবেষকরা দাবি করেছেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন