খবর অনলাইন ডেস্ক  মহিলাদের শরীরে স্তন ক্যানসারের মতোই জরায়ু ক্যানসারও একটি আতঙ্কের অসুখ। গোটা বিশ্বে বহু মহিলা জরায়ু ক্যানসারে আক্রান্ত। এই রোগে অনেকেরই মৃত্যু হয়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, এই মৃত্যুর মূল কারণ অনেক ক্ষেত্রেই প্রথমাবস্থায় চিকিৎসা না হওয়া। প্রথম থেকে চিকিৎসা হলে বেঁচে থাকার সম্ভবনা ৯৫%।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, প্রতি বছর গোটা বিশ্বে প্রায় ২ লক্ষ ৫০ হাজার মহিলা জরায়ু ক্যানসারে আক্রান্ত হন।

একটি ভুল ধারনা অনেকের মধ্যেই আছে, যে প্রাপ্ত বয়স্কদেরই জরায়ু ক্যানসার হয়। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, যে কোন বয়সেই জরায়ু ক্যানসার হতে পারে। তবে ৫০ বছর বা তার বেশি বয়সের মহিলারা এই ক্যানসারে বেশি আক্রান্ত হন।

জরায়ু ক্যানসারকে ‘সাইলেন্ট কিলার’ বলা হয়। কারণ, এর প্রাথমিক লক্ষণগুলি অনেক ক্ষেত্রেই বুঝতে পারা যায় না। পেটের কোনো সমস্যা খুব বেশি সময় ধরে চলতে থাকলে তা জরায়ু ক্যানসারের লক্ষণ হতে পারে।

জরায়ু ক্যানসারের প্রাথমিক কিছু লক্ষণ এখানে আলোচনা করা হল

১। প্রায়ই গ্যাস, বদহজম, কোষ্ঠকাঠিন্য।

২। অল্প খাওয়ার পরই পেট ভরতি লাগা।

৩। পেটে অস্বস্তির ভাব।

৪। পেট ফুলে থাকা।

৫। পেটে অতিরিক্ত ব্যথা।

৬। নিম্নাঙ্গের চারপাশে চাপ ভাব।

৭। বার বার মূত্রত্যাগ।

৮। সারাক্ষণ বমি বমি ভাব হওয়া অথবা, ঘন ঘন বমি হওয়া।

৯। হঠাৎ খিদে কমে যাওয়া।

১০। অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধি কিংবা হঠাৎ ওজন অনেক কমে যাওয়া।

১১। যৌনমিলনের সময় ব্যথা লাগা।

১২। সারাক্ষণ অতিরিক্ত ক্লান্তিবোধ।

১৩। মেনোপজ হওয়ার পরেও ব্লিডিং।

এই লক্ষণগুলির কোনোটি একটানা বেশ কয়েকদিন চললেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ফেলে রাখবেন না। তবে এই লক্ষণের কোনোটি হওয়া মানেই যে জরায়ুর ক্যানসারে আক্রান্ত এমন ভাবারও কোনো কারণ নেই। একই উপসর্গ বিভিন্ন রোগের হতে পারে, বা খুব সাধারণ কারণও হতে পারে। তাই নিজে সিদ্ধান্ত না নিয়ে বিশেষজ্ঞের পরামর্শই একান্ত কাম্য।

আরও – কোন কোন ক্ষেত্রে স্তন ক্যানসারের ঝুঁকি থাকে জানেন? পর্ব -১

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন