জেনে নিন ওজন কমাতে কী খাবেন

ওয়েবডেস্ক: পেটের মেদ নিয়ে অনেকেই অস্বস্তিতে ভোগেন। অস্বাস্থ্যকর জীবনধারা এবং ভ্রান্ত খাদ্যাভ্যাসই মূলত পেটের মেদের জন্য দায়ী। আমাদের দৈনন্দিন জীবনের কিছু বদভ্যাস রয়েছে, যেগুলো পেটের মেদ বাড়িয়ে দেয়। সময় মতো পেটের এই মেদের দিকে নজর না দিলে ঝুঁকিপূর্ণ রোগের অন্যতম কারণ হতে পারে।

পেটের মেদ বেশি বেড়ে গেলেই হার্ট অ্যাটাক, রক্তচাপ, স্ট্রোক, কিডনির রোগ এমনকি ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। তাই এই সব রোগের হাত থেকে মুক্তি পেতে হলে যে নিয়মগুলি মেনে চলা দরকার, তা তো মানতেই হবে।

জেনে নেওয়া যাক সেই নিয়মগুলি সম্পর্কে-

১। চর্বি জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলা

নিজেকে সুস্থ রাখতে হলে চর্বি যুক্ত খাবার খাওয়া বন্ধ করতে হবে। যেমন- তৈলাক্ত মাছ, রেড মিট, দোকানের ফাস্টফুড, বেশি মশলাদার খাবার ইত্যাদি না খেলে আপনার শরীরের জন্যই ভালো হবে।

২। প্রচুর পরিমাণে ফল খান

শরীর সুস্থ এবং তরতাজা রাখতে নিয়ম করে দুপুরে খাওয়ার পরে যে কোনও ফল খেতে পারেন। ফল খেলে শরীরে যেমন প্রোটিন, ভিটামিন, সুগারের মাত্রা, ওজন, কার্বোহাইড্রেট, ক্যালোরির পরিমাণ সব কিছুই সঠিক থাকে।

৩। অলিভ অয়েলে রান্না

এত দিন যে তেল দিয়ে রান্না করতেন সে সব এ বার বন্ধ করে অলিভ অয়েলে রান্না করুন। কারণ অলিভ অয়েল দিয়ে আপনি যে খাবারই বানান তা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য যেমন ভালো, ওজন কমাতে সহায়ক। এ ছাড়া ডায়বেটিস, আর্থারাইটিস রোগীদের জন্য অলিভ অয়েলের রান্না খেলে স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ উপকারী।

আরও পড়ুন: ওজন নিয়ে চিন্তা? রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে মানুন এই ৫টি পদ্ধতি

৪। কী কী খাবেন না

প্রত্যেকটি শাক-সবজি, ফলের মধ্যে ভিটামিন আছে। যা শরীরে পুষ্টির জোগান দেয়। তবে যে খাবারগুলি খাবেন না একবার জেনে নেওয়া যাক। যেমন- ফুলকপি, কড়াইশুটি, আলু, মাশরুম ইত্যাদি।

৫। পর্যাপ্ত ঘুম

সারাদিনে কাজের চাপে ঘুমানো বড়ই কঠিন ব্যাপার। শরীর সুস্থ রাখার জন্য রাতের ঘুমটা মারাত্মক ভাবে দরকার। কারণ রাতের ঘুম ঠিক মতো না হলে শরীরে যেমন ক্লান্তি দেখা দেবে। সেই সঙ্গে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা প্রবল ভাবে থাকে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন