কী কারণে করোনাভাইরাসের বেশির ভাগ বলি শুধুমাত্র বয়স্ক অথবা পুরুষরা?

0
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: ভারতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১১ জনের। এঁদের মধ্যে বেশিরভাগই বয়স্ক এবং পুরুষ। ঠিক কী কারণে করোনাভাইরাসের বেশির ভাগ বলি শুধুমাত্র বয়স্ক অথবা পুরুষরা?

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, ভারতে করোনাভাইরাসের (Coronavirus) প্রথম বলি কর্নাটকের কালাবুর্গির এক ৭৬ বছরের বৃদ্ধ। তিনি গত ১২ মার্চ মারা যান। কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হওয়ার আগে থেকেই তাঁর উচ্চরক্তচাপ, হাঁপানি এবং ডায়াবেটিস ছিল।

ভারতে দ্বিতীয় মৃত ব্যক্তি এক জন বৃদ্ধা। গত ১৩ মার্চ দিল্লির ওই মহিলার মৃত্যু হয়। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, তাঁরও উচ্চরক্তচাপ এবং ডায়াবেটিস ছিল। বিদেশ থেকে ছেলে দেশে ফেরার পর তিনি করোনাভাইরাসে সংক্রামিত হন। এখানেও দেখা যাচ্ছে, তিনিও তাঁর ছেলে অর্থাৎ, কোনো পুরুষের কাছ থেকে ভাইরাসটিতে সংক্রামিত হন।

কোভিড ১৯ (Covid-19) আক্রান্ত হয়ে রাজ্যের দমদমের যে প্রৌঢ়ের মৃত্যু হয়, সেই ৫৭ বছরের ব্যাক্তিও পুরুষ। অন্য দিকে বিহারের মুঙ্গেরে যে ব্যক্তির মৃত্যু হয়, তাঁর বয়স ৩৮ বছর হলেও , তিনি এক জন পুরুষ। মহারাষ্ট্রের প্রথম মৃত ব্যক্তিও পুরুষ। অর্থাৎ, মৃতদের গড় বয়স দেখা যাচ্ছে ৫০-৬০ বছরের মধ্যেই ঘোরাফেরা করছে।

এ ব্যাপারে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেসের (এইমস)-এর ডিরেক্টর ডা. রণদীপ গুলেরিয়া সংবাদ সংস্থা আইএএনএসকে আগে বলেছিলেন, “সারা বিশ্বে চিকিৎসক মহল যে তথ্যটি নিয়ে গবেষণা করেছে, সেটা ভারতেও প্রযোজ্য। মৃতদের মধ্যে অধিকাংশই পুরুষ”। তবে তিনি পরামর্শ দেন, “এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর জন্য এই জাতীয় আরও তথ্যের প্রয়োজন রয়েছে”।

গুরুগ্রামের পরস হসপিটালের ইন্টারন্যাল মেডিসিন ডিপার্টমেন্টের ডা. পি ভেঙ্কট কৃষ্ণ জানান, “যখনই কোনো নতুন ভাইরাস দেশে প্রবেশ করে, তখনই বেশি বয়সের মানুষের মৃত্যু ঘটনা বেশি ঘটতে দেখা যায়। করোনার ক্ষেত্রেও তেমনটা হচ্ছে। বয়স্কদের মধ্যে ঝুঁকি বেশি থাকেই, কারণ তাঁরা তুলনামূলক ভাবে দুর্বল এবং সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতাও তাঁদের অপেক্ষাকৃত কম। কোনো মানুষ দীর্ঘ দিন বেঁচে থাকতেই পারেন, কিন্তু তিনি যে পুরোপুরো সুস্থ-স্বাভাবিক ভাবে বাঁচছেন, তেমনটা নয়। ফলে বয়স্কদের ক্ষেত্রে আরও বেশি করে সতর্ক হতে হবে”।

আরও পড়ুন: হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন এবং জিথ্রোম্যাক্সের সংমিশ্রণেই কি সারবে কোভিড-১৯?

একই ভাবে গাজিয়াবাদের কলম্বিয়া এসিয়া হসপিটালের পালমোনোলজিস্ট ডা. জ্ঞান ভারতী বলেন,”প্রবীণদের মধ্যে ডায়াবেটিস বা হৃৎপিণ্ড, ফুসফুস বা কিডনির মতো রোগের ঝোঁক বেশি থাকে। যা তাঁদের শরীরে সংক্রামিত রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতাকে দুর্বল করে দেয়। এ ছাড়াও, তাঁদের মধ্যে অনেকে বিচ্ছিন্ন ভাবে জীবনযাপন করেন এবং সঠিক তথ্যও সময় মতো পান না। যেমন কী করণীয় এবং করা উচিত নয়, সেগুলি জানতে পারেন না”।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.