বিশ্বের ১২ দেশে ছড়াল সংক্রমণ, মাঙ্কিপক্স কি কোভিডের মতোই অতিমারি ডেকে আনবে?

0

ইউরোপ, আমেরিকার বেশ কিছু জায়গায় ছড়িয়েছে মাঙ্কিপক্স। এখনও পর্যন্ত বিশ্বের ১২টি দেশ থেকে এই বিরল রোগে সংক্রমিতের হদিশ মিলেছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক’দিন আগেই বলেছিলেন, এই রোগ নতুন করে উদ্বেগ বাড়ানোর জন্য যথেষ্ট। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোনো মতেই কোভিডের মতো অতিমারি সৃষ্টি করবে না মাঙ্কিপক্স।

কী বলছেন বিশেষজ্ঞ?

ইউনিভার্সিটি অব মেরিল্যান্ড আপার চেসাপিক হেলথের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং চিফ কোয়ালিটি অফিসার ডা. ফাহিম ইউনুস বলেছেন, মাঙ্কিপক্সের সংক্রমণ উদ্বেগজনক হলেও এতে কোভিডের মতো অতিমারি সৃষ্টির ঝুঁকি শূন্য শতাংশ। মাঙ্কিপক্স ভাইরাস মোটেই কোভিডের কারণ সার্স-কোভ-২ ভাইরাসের মতো নয়।

তাঁর কথায়, গত কয়েক দশক ধরেই মাঙ্কিপক্স সম্পর্কে জানে গোটা বিশ্ব। এটা গুটিবসন্তের মতো একই ভাইরাস প্রজাতির অন্তর্গত। এই ভাইরাস সাধারণত মারাত্মক অথবা প্রাণঘাতী নয়। এমনকী এটা করোনাভাইরাসের থেকে তুলনামূলক ভাবে কম সংক্রমক।

এমনিতে গুটিবসন্তের টিকা রয়েছে। তাতেই চিকিৎসা চালাচ্ছে কিছু দেশ। বেশ কিছু দেশে আগে থেকেই গুটিবসন্তের টিকাকরণ হয়েছে। যা যথেষ্ট সুরক্ষা দিতে সক্ষম।

কী বলছে ‘হু’?

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফেও দাবি করা হয়েছে, মাঙ্কিপক্সের সংক্রমণ আটকে দেওয়া সম্ভব। সোমবার হু-র টেকনিক্যাল গ্রুপের প্রধান মারিয়া ভ্যান কেরখোভ রাষ্ট্রপুঞ্জের স্বাস্থ্য সংস্থার একটি লাইভ অনুষ্ঠানে বলেন, “এক জনের শরীর থেকে অন্যের শরীরে সংক্রমণ আটকাতে হবে। যে জায়গাগুলোতে এখনও এই সংক্রমণ ছড়ায়নি, সেখানে এটা করাই যেতে পারে। এটা মোটেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে নয়”।

এ ছাড়াও এখনও পর্যন্ত যতগুলো সংক্রমণের ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে, প্রায় প্রত্যেকটির ক্ষেত্রে ঘনিষ্ঠ শারীরিক সংস্পর্শের কথা জানা গিয়েছে। ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ হল মূল সংক্রমণের পথ, কারণ রোগের সাধারণ ক্ষতগুলি খুব সংক্রমক। মারিয়া আরও বলেন, কী ভাবে মাঙ্কিপক্সের সংক্রমণ রোধ করা যায়, তা নিয়ে দেশগুলোকে নির্দেশিকা এবং পরামর্শ জারি করতে হবে।

মারাত্মক নয় মাঙ্কিপক্স

মাঙ্কিপক্স বিরল একটি রোগ। তবে চিকিৎসকদের মতে, মারাত্মক নয়। ইউএস সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)-এর তথ্য অনুযায়ী, মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত ব্যক্তির মুখ ও শরীরে চিকেন পক্সের মতো ফুসকুড়ি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তার আগে ফ্লুর মতো উপসর্গ যেমন জ্বর, পেশিতে ব্যথা এবং টনসিল ফুলতে পারে।

কী ছড়ায় সংক্রমণ

আক্রান্ত ব্যক্তির ত্বকের ক্ষত এবং ড্রপলেট অন্য ব্যক্তির সংস্পর্শে এলে ছড়াতে পারে মাঙ্কিপক্স। একই বিছানা অথবা তোয়ালে-গামছা ব্যবহার করলেও এই রোগ ছড়াতে পারে। যৌনসম্পর্কের সঙ্গেও এই রোগের সংক্রমণ ছড়ানোর যোগ থাকতে পারে। হু-র মতে, সাম্প্রতিক কিছু ঘটনায় দেখা গিয়েছে সমকামী সম্প্রদায়ের মধ্যে এই সংক্রমণ ছড়িয়েছে। তবে স্বাস্থ্য বিভাগের তরফে খুঁটিয়ে দেখা হচ্ছে, এই রোগ কী ভাবে বাড়ছে?

চিকিৎসা কী ভাবে?

এখনও পর্যন্ত কারও এই রোগে মৃত্যু হয়নি। যাঁদের পক্সের টিকা নেওয়া আছে, তাঁদের ক্ষেত্রে এই রোগ মারাত্মক আকার নেবে না বলেও মত অনেকের। এর আগে সিডিসি জানিয়েছিল, এই রোগের বিশেষ কোনো ওষুধ নেই। তবে এর সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে গুটিবসন্তের টিকা সিডোফোভির, এসটি-২৪৬ এবং ভ্যাকসিনিয়া ইমিউন গ্লোবিউলিন ব্যবহার করা যেতে পারে।

আরও পড়তে পারেন:

প্রশান্ত কিশোর সাড়া দেননি, কংগ্রেসের বিশেষ কমিটিতে ঠাঁই মিলল তাঁর প্রাক্তন সহযোগীর

জুনে জিটিএ নির্বাচন, দিনক্ষণ ঘোষণা করল জেলা প্রশাসন

আড়াই মাসের মন্ত্রী! টেন্ডারে কমিশন দাবির অভিযোগে বরখাস্ত, গ্রেফতার পঞ্জাবের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্য ভবনে ফের ধুন্ধুমার পরিস্থিতি! রাস্তায় বসে পড়লেন আন্দোলনকারীরা, ব্যাপক যানজট

প্রত্যাবর্তনের পরই তৃণমূলে গুরুদায়িত্ব পেলেন অর্জুন সিংহ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন